২য় বিয়ে করাই কাল হলো ব্যবসায়ী আব্দুস সালামের

প্রকাশিত: জুলাই ১৬, ২০২১; সময়: ৫:৩৯ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, জয়পুরহাট : পাকা চারতলা বাড়ি। ইলেকট্রনিক্স সামগ্রী বিক্রির দু’টি শো-রুমসহ প্রায় দুই কোটি টাকার মালিক ছিলেন ব্যবসায়ী আব্দুস সালাম। এক ছেলে ও এক মেয়ের জনক আব্দুস সালাম পরিবার ও ব্যবসা নিয়ে বেশ সুখেই ছিলেন। ছেলে মেয়ে দু’জনকেই বিয়েও দিয়েছেন। শাহিনুর আলম তার একমাত্র ছেলে। তাই সখ করে বাড়ির জায়গা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান উইল করেছেন তার নামেই। অর্থাৎ তার প্রায় দুই কোটি টাকার বাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিক ছেলে শাহিনুর আলম। স্ত্রীর নামানুসারে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নামও দিয়েছেন ‘নাজমা ইলেকট্রনিক্স’। কিন্তু দ্বিতীয় বিয়ে করার পর জীবনের সবকিছু ওলট পালট হয়ে গেছে ব্যবসায়ী আব্দুস সালামের। স্ত্রী সন্তানদের নির্যাতনে বাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে বিতাড়িত হয়ে গ্রামের বাড়িতে বড় ভাইদের আশ্রয়ে এখন দিন কাটছে তার। স্ত্রী ও পুত্রবধুকে মারপিটের অভিযোগে থানায় অভিযোগও হয়েছে তার বিরুদ্ধে।

জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল উপজেলার মাটিহাঁস গ্রামে বাড়ি বিত্তবান ব্যবসায়ী আব্দুস সালামের। ২০১১ সালে তিনি ইলেকট্রনিক্স ব্যবসা শুরু করেন বগুড়ার দুপচাঁচিয়া উপজেলা সদরে। তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নাম ‘নাজমা ইলেকট্রনিক্স’। নাজমা তার স্ত্রীর নাম। তার দুই সন্তানের মধ্যে মেয়ে শাহনাজ বেগম বড়,আর ছেলে শাহিনুর আলম এক বছরের ছোট। দু’জনেই বিবাহিত। ব্যবসায় সালাম মোটা পুঁজি বিনিয়োগ করেন গ্রামের জমি-জমা পুকুর ও পৈত্রিক বাড়ি বিক্রি করে। এতে তার বেশ সফলতাও আসে। দুপচাঁচিয়ায় সালাম তার ছেলের নামে জমি কিনে সেখানেই চারতলা বাসাও নির্মাণ করেন। ব্যবসা ভালো হওয়ায় সালাম ক্ষেতলালেও ‘নাজমা ইলেকট্রনিক্স’ নাম দিয়ে আরো একটি শো-রুম চালু করেন। দু’টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিকানাও ছেলের নামে। এ অবস্থায় সুখেই কাটছিল সালামের জীবন। কিন্তু হঠাৎ করে কালবৈশাখী ঝড়ের মত ওলট পালট হয়ে যায় বিত্তবান ব্যবসায়ী সালামের জীবন। সহায় সম্বল বিক্রি করে যাওয়া গ্রামের বাড়ি ক্ষেতলালের মাটিহাঁসে ভাইদের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন আব্দুস সালাম। এসবই হয়েছে তার দ্বিতীয় বিয়ে করার কারণে।

সালামের বড় ভাই আরাম আলী বলেন,‘প্রয়োজনে বিয়ে করা কি অপরাধ? ছেলেকে ভালোবেশে সবকিছু লিখে দিয়েছে বলেই বিয়ে করার অপরাধে বাবাকে বাড়ি থেকে এভাবে বিতাড়িত করবে ছেলে? মামলা হামলা করবে? আমরা অনেক চেষ্টা করেছি, কিন্তু সালামের ছেলে কোন কথায় শুনতে চায় না। সন্তান হয়ে বাবার গায়ে যে ছেলে হাত তুলতে পারে, তার পক্ষে সবকিছুই করা সম্ভব বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

প্রতিবেশি মাটিহাঁস গ্রামের জামাল উদ্দিন বলেন,‘সালাম চাচা একজন ভালো ব্যবসায়ী। গ্রামের বাড়ি পুকুর ও জমি-জমা বিক্রি করে প্রায় ৪০ লাখ টাকা চাচা ব্যবসায় ইনভেষ্ট করেছেন। সেটা গ্রামের সবাই জানে। তার ছেলে তাকে বাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে বের করে দিয়েছে শুনে আমরা বিশ্বাস করিনি। পরে শুনছি মারপিট করে তার বিরুদ্ধে দুপচাঁচিয়া থানায় মামলাও দিয়েছে। এটা খুবই দু:খজনক।

আব্দুস সালাম বলেন,‘সখ করে ছেলের নামে সবকিছু লিখে দেওয়ায় আজ আমি অসহায় জীবন যাপন করছি। স্ত্রীর শারিরীক অক্ষমতার কারণে দ্বিতীয় বিয়ে করার অপরাধে আমার সন্তান আমাকে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে। শুধু তাই নয় তার স্ত্রীকে মারপিট করার মিথ্যা অভিযোগে মামলা দিয়ে আমাকে এলাকা ছাড়া করেছে। প্রায় দুই কোটি টাকার সম্পদ ছেলেকে দিয়েও আজ আমি নি:স্ব। ভিখেরীর মত আমি ভাইদের দ্বারে দ্বারে ঘুরছি।

ছেলে শাহিনুর আলম বলেন,‘আমার বাবা আব্দুস সালাম চরিত্রহীন। আমার মা’র অনুমতি না নিয়ে তিনি দ্বিতীয় বিয়ে করে আমাদের সুখের সংসারে অশান্তির সৃষ্টি করেছেন। আমার মাকে মারপিট করেছেন। এজন্য মা থানায় অভিযোগও করেছেন। মেয়ে শাহনাজ বেগম বাবা সম্পর্কে বলেন,‘তিনি আর আমাদের সেই বাবা নেই। উনি বাবা নামের কলঙ্ক। উনি আমার বয়সের মেয়েকে বিয়ে করে সমাজে আমাদের মান-সম্মান শেষ করে দিয়েছেন’।
সালামের স্ত্রী নাজমা বেগম বলেন,‘স্বামী আব্দুস সালামের অভিযোগ সঠিক নয়। বরং ওনার কারণে আমাদের সংসারের অনেক ক্ষতি হয়েছে। ওনার নারী কেলেংকারীর কারণে আমরা সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন হয়েছি। আমার ছেলে কষ্ট করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন। দুপচাঁচিয়ার চারতলা বাড়িও আমার ছেলের উপার্জনের টাকা। ও তো নতুন বউ নিয়ে আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন। আর কোন দিন আসবেন না তার জন্য লিখিত অঙ্গীকারনামাও দিয়েছেন।

স্থানীয় বড়াইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু রাশেদ আলমগীর বলেন, ‘বিয়ে করার কারণে আব্দুস সালামকে তার ছেলে বের করে দিয়েছে,এ কথা শোনার পর খুব কষ্ট পেয়েছি। সালাম খুব বড় ব্যবসায়ী। ছেলের উচিৎ ছিল পারিবারিকভাবে বিষয়টির একটি সম্মানজনক সমাধান করার। এলাকার জনপ্রতিনিধি হিসেবে আমার প্রত্যাশা উভয় পক্ষ নমনীয় হয়ে বিষয়টির দ্রুত এবং স্থায়ী সমাধান করবেন।

  • 105
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে