নিয়ামতপুরে আর্জেন্টিনা সমর্থকদের সাথে তর্ক না করার অঙ্গীকার স্ট্যাম্পে সই

প্রকাশিত: জুলাই ৭, ২০২১; সময়: ৮:৪৪ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, নিয়ামতপুর : নিঃসন্দেহে ফুটবল বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলা। ৯০ মিনিটের এই খেলায় খেলোয়াড় এবং দর্শকদের মধ্যে বেশ উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। আর খেলা মানেই প্রতিনিয়ত রেকর্ড ভাঙার প্রতিযোগিতা। একজন খেলোয়াড়ের রেকর্ড আরেক খেলোয়াড় ভেঙে দিয়ে নতুন রেকর্ড গড়বেন, সৃষ্টি করবেন নতুন এক ইতিহাস-এটাই নিয়ম।

চলছে কোপা আমেরিকা ফুটবল খেলা। এই খেলাকে কেন্দ্র করে প্রতিনিয়ত আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিল ফুটবল সমর্থকদের মাঝে নানা বিরোধের খবর শুনতে পাওয়া যায়। এবার সেরকম খবর পাওয়া গেছে নওগাঁর নিয়ামতপুরে।

আর্জেন্টিনার সমর্থকদের সঙ্গে তর্কে জড়াবেন না বলে স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করেছেন এক ব্রাজিল সমর্থক। ওই ব্রাজিল সমর্থকের নাম আব্দুল্লাহ আল বাকি। তিনি নিয়ামতপুর সরকারি কলেজের অর্থনীতি বিভাগের ছাত্র। তিনিই ব্যতিক্রমী এই অঙ্গীকারনামা করেন।

স্ট্যাম্পে তিনি লেখেন, ‘আমি আব্দুল্লাহ আল বাকি, নিয়ামতপুর, নওগাঁ। আমি ২০ টাকা মূল্যের স্ট্যাম্পে লিখিতভাবে এই মর্মে অঙ্গীকার করছি যে, এই দুনিয়ায় যতদিন বেঁচে থাকব, ততদিন আর্জেন্টিনা দলের কোনো সমর্থকের সঙ্গে তর্কে জড়াব না। কারণ ওরা কোনো যুক্তিই বোঝে না। এদের আসল উদ্দেশ্য তর্কে জয়লাভ করা; খেলায় না। বিভিন্ন দলের শিরোপা সংখ্যার কথা আসামাত্রই এরা পাগলা ষাঁড়ের মত তেড়ে আসে।’

তিনি আরও লেখেন, ‘কতটা নির্বোধ হলে তারা আজও ‘সেভেন আপ, সেভেন আপ’ বলে চিল্লাপাল্লা করে, যা দেখে জার্মানির সমর্থকেরাও অনেকটা হতাশ। কারণ, জার্মানির অর্জনটাও তারা নিজেদের অর্জন বলে দাবি করে। তার চেয়ে বরং অন্যান্য দলের সমর্থকদের সঙ্গে তর্কে জড়ান। ইতালি বা জার্মানি আছে, তাদের সঙ্গে জড়ান। শেয়ানে শেয়ানে লড়াই জমবে। কেন পাঁচতারকা থেকে ঠেলে দুই তারকার লেভেলে আনবেন?”

ওই অঙ্গীকারনামায় নিজের সদ্য তোলা এক কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবিও যুক্ত করেন বাকি। সাক্ষী হিসেবে রেখেছেন আশিকুজ্জামান নামের আরেক ব্রাজিল সমর্থককে। পরে পরিচিত আর্জেটিনা সমর্থকদের কাছে স্ট্যাম্পের ফটোকপি বিলিও করেছেন তিনি। পোস্ট করেছেন নিজের ফেসবুক আইডিতেও।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আল বাকি বলেন, আমার ছাত্ররাজনীতির সহযোদ্ধা, বন্ধুবান্ধব, আত্মীয়দের সঙ্গে সুসম্পর্ক থাকলেও ফুটবল খেলার সময় এলে তাদের সঙ্গে মতবিরোধ তৈরি হয়। বারবার বোঝানোর পরেও ব্যর্থ হয়ে আমার এই অঙ্গীকারনামা; যাতে করে আর কখনো তাদের সঙ্গে আমার তর্কে জড়াতে না হয়। তাই এই বিষয়টিই যুক্তি সহকারে বোঝানোর চেষ্টা করেছি আমার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের বন্ধুদের।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে