জয়পুরহাটে গৃহবধূর মাথার চুল কেটে নির্যাতন, সতীন গ্রেপ্তার

প্রকাশিত: জুলাই ৫, ২০২১; সময়: ৯:৫৪ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, জয়পুরহাট : জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল উপজেলার ধনকুরাইল গ্রামে স্বামী ও সতীনের বিরুদ্ধে গৃহবধূর মাথার চুল কেটে নির্যাতন করার আভিযোগ পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে ক্ষেতলাল থানায় মামলা হলে পুলিশ সতীনকে গ্রেপ্তার করেছে।

এলাকাবাসী ও ক্ষেতলাল থানা সূত্রে জানা গেছে, গত রোববার রাতে ক্ষেতলাল উপজেলার ধনকুড়াইল গ্রামে গৃহবধূ বিউটি খাতুনের মাথার চুল কেটে নিয়ে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন চালানোর আভিযোগ পাওয়া গেছে। নির্যাতিত বিউটি খাতুন ওই গ্রামের সুলতান কাজীর প্রথম স্ত্রী। সুলতান কাজী ও তার দ্বিতীয় স্ত্রী তারা বানু বিউটিকে শারীরিক নির্যাতনের এক পর্যায়ে তার মাথার চুল কেটে নেয়। এসময় বিউটি আহত হলে তাকে উদ্ধার করে ক্ষেতলাল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

এ বিষয়ে গৃহবধূ বিউটির বাবা মোখলেছার রহমান বাদী হয়ে ক্ষেতলাল থানায় ৩ জনকে আসামী করে নারী নির্যাতনের মামলা দায়ের করেছেন। মামলার পর পুলিশ গৃহবধূ বিউটির সতীন তারা বানুকে কালাই থেকে গ্রেপ্তার করেছে।

ক্ষেতলাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নীরেন্দ্রনাথ মন্ডল বলেন, গৃহবধূ বিউটির বাবা তিনজনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। আসামীদের মধ্যে একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

আহত বিউটি জানান, তার স্বামী বাড়ি থেকে কিছু জিনিসপত্র নিয়ে ছোট স্ত্রীর বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি নেয়। এসময় সে বাধা দিতে গেলে তার স্বামী ও সতীন তাকে মারধর করে এবং কাঁচি দিয়ে মাথার চুল কেটে দেয়।

নির্যাতিত বিউটির মেয়ে সীমা খাতুন জানায়, তার মাকে তার বাবা ও সৎ মা মিলে নির্যাতন করেছে। সে এঘটনার বিচার চায়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে