রাণীনগরে অগ্নিকান্ডে চার দোকান ভস্মিভূত, ২০ লাখ টাকার ক্ষতি

প্রকাশিত: জুন ২৮, ২০২১; সময়: ৮:৩১ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাণীনগর : নওগাঁর রাণীনগরে আগুন ধরে চারটি দোকান পুড়ে ভস্মিভূত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার গভীর রাতে উপজেলার বিলকৃষ্ণপুর বাজারে সোনালী মার্কেটে। অগ্নিকান্ডে ওই চার দোকানের প্রায় ২০ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন দোকান মালিকরা।

দোকান মালিক বেনাজুল ইসলামসহ কয়েকজন জানান, প্রতিদিনের ন্যায় ব্যবসা করে দোকানপাঠ বন্ধ করে চলে যান ব্যবসায়ীরা। হঠাৎ করেই রবিবার রাত অনুমান সাড়ে ১২টা নাগাদ সোনালী মার্কেটে দোকান ঘরে দাউ দাউ করে আগুন জ্বলতে দেখে স্থানীয়রা। এসময় স্থানীয় লোকজন ৯৯৯ সেবা নাম্বারে এবং রাণীনগর ফায়ার সার্ভিসে ফোন করেন। এর পর রাত অনুমান ১টা নাগাদ ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিট এসে প্রায় এক ঘন্টা ২০ মিনিটের চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। এর পরেও বেনাজুল ইসলামের সোমাইয়া ট্রেডার্স,রাসেল আহম্মেদ এর ওসমান হার্ডওয়ার,রুহুল আমিনের মন্ডল ট্রেডার্স ও রায়হান আলমের এক্সেল কম্পিউটার এ্যান্ড ডিজিটাল স্টুডিও দোকানের সম্পন্ন মালামাল ভস্মিভূত হয়ে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শী আনিক আহম্মেদসহ কয়েকজন জানান,দোকান ঘরে রান্নায় ব্যবহৃত এলপিজি গ্যাসের সিলিন্ডার,পেট্রল,মবিল,ডিজেল,কিটনাশক ওষুধ,সিমেন্ট.সারসহ বিভিন্ন দাহ্য পদার্থ থাকার কারনে দ্রুত আগুনের লেলিহান শিখা বিস্তার করছিল।

দোকান মালিক বেনাজুল ইসলাম বলেন,তার দোকানে প্রায় ৪০টি এলপিজি গ্যাসের সিলিন্ডার ছিল। অধিকাংশ সিলিন্ডার প্লাস্টিকের হওয়ায় গলে গেছে এবং লোহার সিলিন্ডার গুলো থেকে সব গ্যাস বেড় হয়ে গেছে। এছাড়া দোকানে পেট্রল,ডিজেল,মবিল,সিমেন্ট,কিটনাশক,সার,গ্যাসের চুলাসহ প্রায় ৬লক্ষ টাকার মালামাল ভস্মিভূত হয়েছে। এছাড়া ওসমান হার্ডওয়ার এর ইলেক্ট্রিক সামগ্রী,মেশিনারী পার্সসহ দোকানে থাকা প্রায় ৬ লক্ষ টাকার মালামাল,মন্ডল ট্রেডার্সের পেট্রল,কিটনাশক,গ্যাসের সিলিন্ডার,মোবাইল ফোন ও নগদ ৫০ হাজার টাকাসহ ৪ লক্ষ টাকার মালামাল এবং রায়হান আলমের দোকানের কম্পিউটার,মোবাইল,আইপিএসসহ প্রায় ৪লক্ষ টাকার মালা মাল ভস্মিভূত হয়েছে বলে জানিয়েছেন তারা। খবর পেয়ে রাতেই রাণীনগর থানাপুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন বলে জানিয়েছেন রাণীনগর থানার ওসি মো: শাহিন আকন্দ।

রাণীনগর উপজেলা ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশন কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেন বলেন,খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে দুইটি ইউনিট প্রায় এক ঘন্টা ২০ মিনিটের চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হয়েছে। দোকান ঘরে গ্যাস,পেট্রল,ডিজেল,মবিলসহ বিভিন্ন দাহ্য পদার্থ থাকায় সময় বেশি লেগেছে। তবে ওই দোকানগুলোর কোন এক দোকান থেকে বিদ্যুতের সর্টসার্কিট থেকে আগুন লাগতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারনা করছেন জানিয়ে বলেন,চারটি দোকানে প্রায় ১৫/১৬ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে