বগুড়ায় ফেনসিডিল নিয়ে পৌরসভার স্বাস্থ্য কর্মীসহ গ্রেপ্তার ২

প্রকাশিত: জুন ২৪, ২০২১; সময়: ৭:৩৯ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া : বগুড়া জেলার শিবগঞ্জে ফেন্সিডিলসহ সিরাজগঞ্জের বেলকুচি পৌরসভার স্বাস্থ্যকর্মী ও উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতার ছেলেসহ ২ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাদের কাছ থেকে ৫৯ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার ও ব্যবহৃত মোটরসাইকেল জব্দ করা হয়েছে। গত বুধবার সন্ধ্যায় শিবগঞ্জ উপজেলার কিচক ইউনিয়নের গোপিনাথপুর বাসস্ট্যান্ড থেকে আহত অবস্থায় তাদের আটক করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলো, সিরাজগঞ্জ জেলার বেলকুচি ডিগ্রি কলেজের ভাইস প্রিন্সিপাল ও চালা গ্রামের সাইফুল আলমের ছেলে বেলকুচি পৌরসভার মেয়রের মোটরসাইকেল চালক জান্নাতুল ফেরদাউস রাশেদ (৪০) ও একই গ্রামের উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রয়াত সভাপতি ইউসুফ জী খানের ছেলে ও পৌরসভার স্বাস্থ্যকর্মী রাসেল খান (৪০)। তারা দুইজনই বেলকুচি পৌর মেয়র সাজ্জাদুল হক রেজার ঘনিষ্ঠ সহযোগী। তারা দুই বন্ধু মিলে দীর্ঘ দিন ধরে মেয়র রেজার নেতৃত্বেই সিরাজগঞ্জের বেলকুচি সহ আশপাশের উপজেলায় ফেন্সিডিলের ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে বলে একটি বিশ্বস্ত সুত্র জানিয়েছে।

শিবগঞ্জ থানার এসআই তরিকুল ইসলাম জানান, বুধবার সন্ধ্যায় গোপিনাথপুর বাসস্ট্যান্ডে মোটরসাইকেল ও বাইসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এসময় মোটরসাইকেল আরোহী রাশেদ ও রাসেল রাস্তার পড়ে গিয়ে আহত হয়। পরে স্থানীয় লোকজন তাদেরকে উদ্ধার করে সড়কের পাশে এক চিকিৎসকের কাছে প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থা করে। তখন আহত মোটরসাইকেল আরোহীরা তাদের কাছে থাকা ব্যাগ খুঁজতে থাকে। তাদের আচরণে স্থানীয়দের সন্দেহ হলে তারা থানা পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ গিয়ে তাদেরকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নেয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু তারা হাসপাতালে যেতে রাজি না হয়ে পুলিশের কাছ থেকে পালিয়ে যাবার চেষ্টা করে। এতে সন্দেহ হলে পুলিশ তাদের আটক করে ব্যাগে তল্লাশি চালায়। এসময় তাদের ব্যাগে ৫৯ বোতল ফেন্সিডিল পায়। পরে তাদের আটক করা হয়।

শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সিরাজুল ইসলাম জানান, দিনাজপুরের হিলি বন্দর থেকে তারা মোটরসাইকেল যোগে ফেন্সিডিল বহন করে সিরাজগঞ্জে যাবার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়। পরে তল্লাশি চালিয়ে তাদের কাছে ফেনসিডিল পাওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

ওসি আরও জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা মাদক পাচারের কথা স্বীকার করেছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে ঐ মামলায় আদালতের মাধ্যমে তাদের জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে