নওগাঁয় বিধিনিষেধ বাড়ল আরও সাত দিন

প্রকাশিত: জুন ২৩, ২০২১; সময়: ৩:১১ pm |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : নওগাঁয় চলমান বিধিনিষেধ আরও সাত দিন বাড়ানো হয়েছে। এর মধ্যেই জেলায় বেড়ে চলেছে করোনায় মৃত্যু ও সংক্রমণের সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় সর্বোচ্চ চারজনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন করে ৫৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্র এ তথ্য জানিয়েছে।

করোনাসংক্রান্ত দৈনিক প্রতিবেদনের তথ্য সম্পর্কে জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির ফোকাল পারসন ও ডেপুটি সিভিল সার্জন মঞ্জুর-এ মোর্শেদ বলেন, গত ঈদুল ফিতরের পর থেকে নিয়ামতপুর উপজেলা ও নওগাঁ সদর উপজেলায় বেশি রোগী শনাক্ত হচ্ছিল। তবে গত দুই সপ্তাহ ধরে নিয়ামতপুর ও নওগাঁ পৌরসভার পাশাপাশি পোরশা, সাপাহার, মহাদেবপুর ও পত্নীতলা উপজেলাতেও বেশি রোগী শনাক্ত হচ্ছে। এ জন্য জেলা করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী চলমান বিশেষ বিধিনিষেধ আরও সাত দিন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ৩০ জুন পর্যন্ত চলমান বিধিনিষেধ বহাল থাকবে।

বুধবার দুপুরে জেলা প্রশাসন কার্যালয় থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে ৩ থেকে ৯ জুন নওগাঁ পৌরসভা ও নিয়ামতপুর উপজেলার পাশাপাশি অন্যান্য উপজেলার হাটবাজার এলাকায় আংশিক লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছিল। করোনার সংক্রমণের হার কিছুটা কমে যাওয়ায় ১০ থেকে ১৬ জুন পর্যন্ত পুরো জেলায় ১৫ দফার বিশেষ বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়।

জেলা প্রশাসনের ওই বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ১৬ জুন জেলা করোনার প্রতিরোধ কমিটির সভায় করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে স্থানীয় প্রশাসনের জারি করা বিধিনিষেধ আরও সাত দিন বাড়িয়ে ২৩ জুন পর্যন্ত করা হয়েছে। আজ জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভায় চলমান বিধিনিষেধ আরও সাত দিন বাড়িয়ে ৩০ জুন পর্যন্ত করার সিদ্ধান্ত হয়।

জেলা প্রশাসনের বিধিনিষেধে বলা হয়, জেলায় সকাল সাতটা থেকে সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে দোকানপাট খোলা রাখা যাবে। হোটেল-রেস্তোরাঁ শুধু পার্সেল আকারে বা অনলাইনে ফরমাশ নিয়ে খাবার বিক্রি করতে পারবে। রাস্তার পাশে চায়ের খোলা রাখা যাবে না। ওষুধ, খাদ্য, নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য কেনা, চিকিৎসাসেবার মতো প্রয়োজন ছাড়া সন্ধ্যা সাতটা থেকে পরের দিন সকাল আটটা পর্যন্ত কোনো অবস্থাতেই বাড়ির বাইরে যাওয়া যাবে না।

বিধিনিষেধে আরও বলা হয়, নওগাঁ জেলার সঙ্গে রাজশাহী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার যাতায়াতের সব পথ বন্ধ থাকবে। জেলার অভ্যন্তরে নিয়ামতপুর উপজেলা ছাড়া অন্যান্য উপজেলায় বাস ও মাইক্রোবাস আসনসংখ্যার অর্ধেক যাত্রী নিয়ে যাতায়াত করতে পারবে। অটোরিকশা শুধু দুজন যাত্রী নিয়ে চলাচল করতে পারবে।

২৪ ঘণ্টায় আরও চারজনের মৃত্যু, শনাক্ত ৫৩
আজ বুধবার দুপুরে সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে পাঠানো করোনাসংক্রান্ত প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে বুধবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় ২৪৫ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৫৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ২১ দশমিক ৬৩ শতাংশ। নতুন শনাক্তদের নিয়ে জেলায় নমুনা পরীক্ষায় শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ৩ হাজার ৭৩৬। এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আরও চারজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ৬৮।

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে