ভোলাহাটে গৃহহীনদের হাতে ঘর তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত: জুন ২০, ২০২১; সময়: ৮:০০ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, চাঁপাইনবাবগঞ্জ : চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভোলাহাটে ২য় পর্যায়ে গৃহহীনদের হাতে গৃহ তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ভিডিও কনফারেন্সে এ অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়।

ভোলাহাট উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে উপজেলা চেয়ারম্যান মো. রাব্বুল হোসেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সমর কুমার পাল, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো.গরিবুল্লাহ দবির, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) শেখ মেহেদী ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

আরও উপস্থিত ছিলেন, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাহবুবুর রহমান, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো.কাউছার আলম সরকারসহ বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, বীর মুক্তিযোদ্ধা, সকল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান, রাজনৈতিক নেত্রীবৃন্দ, উপকারভোগী, সূধীগণ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সমর কুমার পাল জানান, ভোলাহাটে ২য় পর্যায়ে ৪১১জন গৃহহারার মধ্যে ৩৯১ জনের মাঝে প্রধানমন্ত্রী গৃহ হস্তান্তর করেন।

এর পূর্বে ১৬০জনকে ১ম পর্যায়ে গৃহ প্রদান করা হয়। ৩য় পর্যায়ে আরো ৪০০টি বাড়ী তৈরির কাজ চলমান আছে বলে জানান তিনি।

এদিকে প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের সাথে সাথে ২য় পর্যায়ের ৯১জন উপকার ভোগীদের মাঝে বাড়ী চাবি, জমির দলীল বুঝিয়ে দেয়া হয়।

উল্লেখ্য, এ অনুষ্ঠানে সদ্য সাবেক উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো. নুরুল হককে বক্তব্য দেয়ার সুযোগ না দেয়া গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

একটি ঘর পেয়ে দুঃখী মানুষের মুখে যে হাসি দেখতে পাই সেটাই আমার জীবনের সবচেয়ে বড় পাওয়া বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ২০ জুন রবিবার সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সারাদেশে ৫৩ হাজার ৩৪০ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমির মালিকানাসহ গৃহ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা এ পর্যন্ত ৪ লাখ ৪২ হাজার ৬০৮ পরিবারকে গৃহ নির্মাণ করে দিয়েছি। তিনি বলেন, ‘আমরা লক্ষ্য স্থির করেছি, বাংলাদেশকে দারিদ্রমুক্ত করব। এর জন্য শিক্ষাকে গুরুত্ব দিয়েছি, কমিউনিটি ক্লিনিকের মাধ্যমে মানুষের দোরগোড়ায় স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দিয়েছি। মা ও শিশুর স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করেছি। খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতের পাশাপাশি গৃহহীন মানুষকে ঘরবাড়ি তৈরি করে দিচ্ছি।

তিনি বলেন, ক্ষমতা থেকে নিজে খাব, নিজে ভালো থাকব, এটা নয়। ক্ষমতা আমাদের কাছে ভোগের বিষয় নয়। কীভাবে মানুষকে ভালো রাখা যায় এটা হলো বড়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, যেখানে জমি পাব না। এই তহবিল থেকে জমি কিনে দেব। ঘর করে দেব। এভাবে আমরা যাচ্ছি, বাংলাদেশের কোনো মানুষ গৃহহীন থাকবে না। কোথাও কেউ গৃহহীন থাকলে আমাদের জানাবেন। আমরা তাদের ঘরবাড়ি করে দেব। আমি মনে করি, এতটুকু করলে আত্মা শান্তি পাবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে