রাণীনগরে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে একই পরিবারের তিনজনকে অপহরণ নাটক!

প্রকাশিত: জুন ৯, ২০২১; সময়: ৯:০৪ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাণীনগর : নওগাঁর রাণীনগরে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে পরিকল্পিতভাবে বাবা, মা, বোনকে বাড়ী থেকে পালিয়ে দিয়ে অপহরণ নাটক সাজানোর ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় পুলিশ ওই তিন জনকে উদ্ধার করে পরিকল্পনাকারী মা এবং ছেলের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে আদালতে সোর্পদ করেছে।

এ ব্যাপারে বাবা বাবলু সেচ্ছায় আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন রাণীনগর থানার ওসি মো. শাহিন আকন্দ। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার কালীগ্রাম ইউনিয়নের ভেবড়া গ্রামে।

রাণীনগর থানার ওসি মো. শাহিন আকন্দ বলেন, গত ৫ জুন রাতে হঠাৎ করেই বিশেষ সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারেন উপজেলার ভেবড়া গ্রামের সোলাইমান আলীর ছেলে বাবলু (৫০), তার স্ত্রী (৪২) ও কন্যাকে (১৪) অপহরণ করা হয়েছে। এবং অপহরণকারীরা ৫০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করছে।

এমন সংবাদের ভিত্তিতে নওগাঁ জেলা পুলিশ সুপার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সদর সার্কেল, ডিবির ওসি, রাণীনগর থানা ও একডালা অস্থায়ী ক্যাম্প পুলিশ অভিযানে নেমে বাবলুর ছেলে পাপ্পুর দেয়া তথ্য মত্যে একই গ্রামের দুইজনকে আটক করে। এরপর পুলিশ জানতে পারে তাদেরকে অপহরণ করা হয়নি বরং প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে তাদেরকে বাড়ী থেকে পালিয়ে দিয়ে অপহরণ নাটক সাজানো হয়েছে।

নওগাঁ পুলিশ সুপারে সার্বিক নির্দেশনায় সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, ডিবি পুলিশ রাণীনগর থানা ও একডালা অস্থায়ী ক্যাম্প পুলিশ এবং ডিবি টিমের সাইবার ইউনিটসহ তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে বিভিন্ন জায়গায় অভিযান পরিচালনা করা হয়। অব্যাহত অভিযানে পরের দিন সোমবার বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার মিতইল এলাকা থেকে মা-মেয়ে এবং একই দিন নাটোরের মাদ্রাসা মোড় এলাকা থেকে বাবাকে উদ্ধার করে পুলিশ।

এরপর উদ্ধার হওয়া বাবলু পুলিশকে জানায়, সম্প্রতি একই গ্রামের জনৈক ব্যক্তির শালির মেয়ে অপহরণ মামলায় তার ছেলে পাপ্পুকে আসামী করা হয়েছে। ওই মামলা থেকে বাঁচতে এবং প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে ছেলে পাপ্পু , স্ত্রী এবং ছেলের বন্ধু মিলে এই অপহরণ নাটক সাজায়। যা তার জানা ছিলনা।

ওসি শাহিন আকন্দ আরো বলেন, ছেলের নামে দায়ের করা মামলায় পুলিশ তাদেরকে ধরতে আসছে এমন ভয় দেখিয়ে বুঝতে না দিয়ে কৌশলে বাবলুর স্ত্রী, বাবলু ও মেয়েকে নিয়ে বাড়ী থেকে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় থানা পুলিশের পক্ষ থেকে অপহরণ নাটকের মূল পরিকল্পনাকারী বাবলুর ছেলে পাপ্পু, স্ত্রী এবং ছেলের এক বন্ধুসহ অজ্ঞাতনামাদের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করে সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন জানিয়ে পাপ্পু ও পাপ্পুর মা’কে মঙ্গলবার আদালতে প্রেরণ করা হয়।

সাজানো অপহরণের বিষয়ে বাবলু নিজেই আদালতে ১৬৪ ধারায় সেচ্ছায় স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্ধি দিয়েছেন। তবে এঘটনাটি আরো বিস্তারিত জানতে এবং আরো কেউ জড়িত আছে কিনা এসব বিষয়ে তদন্ত করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন এই কর্মকর্তা।

এদিকে পুলিশের জোরালো তৎপরতায় দ্রুত এমন ঘটনার রহস্য উদঘাটন ও প্রতারকদের গ্রেফতারপূর্বক আইনের আওতায় নিয়ে আসায় এলাকাবাসী পুলিশের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছেন।

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে