নাটোরে পাউবো প্রকৌশলীকে লাঞ্চিত ও সরকারি কাজে বাধাদানে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা কারাগারে

প্রকাশিত: মে ২৬, ২০২১; সময়: ৬:২৪ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, নাটোর : নাটোর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আবু রায়হানকে মারপিট, হত্যার হুমকি ও সরকারি কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মীর নাফিউল ইসলাম অন্তরকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে পুলিশ অন্তরকে তার উত্তর বড়াগাছা এলাকার বাড়ি গ্রেপ্তার করা হয়।

পুলিশ অন্তরকে আদালতে সোপর্দ করলে জেল হাজতে পাঠিয়েছে আদালত। বুধবার দুপুরে সিনিয়র জুডিশিযাল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ভার্চুয়াল জামিন শুনানীতে বিচারক তানজিম আলম তাবাসসুম জামিন না মঞ্জুর করে অন্তরকে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।

এর আগে তাকে সাংবাদিকদের সামনে হাজির করে নাটোর জেলা পুলিশ। বুধবার দুপুরে নাটোর পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সামনে আয়োজিত প্রেসব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা বলেন, পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগ সাধারণ সম্পাদক মীর নাফিউল ইসলাম অন্তরকে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় উত্তর বড়গাছা এলাকা থেকে আটক করা হয়। তাকে আটকে পুলিশের একাধিক টিম কাজ করে। অন্তর নাটোর-২ আসনের সংসদ সদস্য শফিকুল ইসলাম শিমুলের আপন ভাগ্নে। তারপরেও সংসদ সদস্য তাকে গ্রেপ্তারে পুলিশ-প্রশাসনকে সহযোগীতা করায় জেলা পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাকে ধন্যবাদ জানানো হয়।

ঠিকাদারী সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে প্রথম শ্রেণীর ঠিকাদার ও জেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ মীর আমিরুল ইসলাম জাহানের ছেলে অন্তর সোমবার বিকালে পানি উন্নয়ন বোর্ড অফিসে গিয়ে নির্বাহী প্রকৌশলী আবু রায়হানকে মারপিট, ফাইলপত্র তছনছ ও হত্যার হুমকি দেয়।

এ ঘটনায় প্রকৌশলী আবু রায়হান বাদী হয়ে মীর নাফিউল ইসলাম অন্তরকে আসামি করে সরকারি কাজে বাধা এবং কমকর্তাকে মারধরের অভিযোগে নাটোর সদর থানায় মামলা দায়ের করেন ।

এদিকে অন্তরের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহার ও তার মুক্তির দাবী জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে শহরের ৭ নং ওয়ার্ডবাসী।

বুধবার দুপুরে স্থানীয় একটি রেস্তোরায় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মলয় দাস ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান শুভসহ ৭ নং ওয়ার্ডের প্রায় দেড় শত মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে