নিয়ামতপুরে করোনা সংক্রমণ রোধে সতর্কতা জারী

প্রকাশিত: মে ২৬, ২০২১; সময়: ৩:২৪ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, নিয়ামতপুর : চাঁপাইনবাবগঞ্জে করোনা পরিস্থিতি আশংকাজনক হারে বৃদ্ধি পাওয়ায় নওগাঁর নিয়ামতপুরে সতর্কতা জারী করা হয়েছে। জেলাটিতে প্রশাসন ৭ দিনের বিশেষ লকডাউন ঘোষণা করায় নিয়ামতপুরে এই সংক্রমন যাতে না ছড়িয়ে পড়ে সেদিকে লক্ষ্য করে স্থানীয় প্রশাসন উপজেলার জনগণকে সর্তক করেছেন এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জ সংলগ্ন সীমানায় পুলিশি চেক পোস্ট বসানো হয়েছে।

উপজেলা প্রশাসনকে সার্বিকভাবে সহযোগিতা করছেন পুলিশ প্রশাসন। পুলিশ সীমান্ত এলাকায় কঠোর লকডাউন বাস্তবায়নে সীমান্ত এলাকায় পুলিশের চেকপোস্ট বসানো হয়েছে, দিনরাত মানুষের সেবা দিতে কাজ করছেন নিয়ামতপুর পুলিশ প্রশাসন। দায়িত্বরত এসআই দর্শন হোসেন জানান, সরকারি নির্দেশনা মেনে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য সকলকে অনুরোধ করা হচ্ছে।

এ সময় এসআই তরিকুল, এসআই শাহাদাত, এসআই ইউনুস, এসআই ইব্রাহিম, এসআই ফরিদ, এ,এসআই রুহুল আমিনসহ আইন শৃঙ্খলা ও গ্রাম পুলিশ সদস্যরা সার্বিকভাবে দায়িত্ব পালন করেন।

নিয়ামতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জয়া মারীয়া পেরেরা জানান, বেরিকেড দেওয়া আছে। আজাদের মোড়ে চেকপোষ্ট দেওয়া আছে যাতে নাচোল থেকে কেউ আসতে না পারে। মঙ্গলবার গণবিজ্ঞপ্তিতে শতর্কতা জারী করা হয়েছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় লকডাউন চলাকালে ওই এলাকার কোন জনসাধারন এবং গণপরিবহন এ উপজেলায় প্রবেশ বা গমন বন্ধ ঘোষনা করা হয়েছে।

তবে পণ্যবাহী পরিবহণ ছাড় দেওয়া হচ্ছে এবং বিশেষ কোন কারনে কোন ব্যক্তি এ উপজেলায় আসলে সে ব্যক্তি র‌্যাপিড এন্টিজেন টেস্ট সনদ দেখাতে পারলে তাকে আসতে দেওয়া হচ্ছে। জনগণ যদি দায়িত্ব পালন না করে শুধু পুলিশ দিয়ে সম্ভব হবে না। অনেকে চুরি করে এলাকায় ঢুকার চেষ্ট করছে, ধানক্ষেত দিয়ে ঢুকতেছে। তাই সবচেয়ে বড় প্রয়োজন জনসচেতনতা। এই সাইডটা একসাথে কাজ করতে হবে।

আমি সকলকে অনুরোধ করবো আপনারা সকলে আমাদের পাশে দাঁড়ান, আমাদেরকে সহযোগিতা করেন। আমাদের চেষ্টা যেন সফল হয়। আমাদের চেষ্টার মধ্যে করে আমাদের চেষ্টা যেন নষ্ট না করে, সবাই যেন আমাদের পাশে থাকে, সবাইকে সুস্থ্য রাখতে সহযোগিতা করতে পারি। চাঁপাইতে কেউ যাবে না, কেই যেন না আসে।

এসময় দায়িত্বরত পুলিশ সদস্য এবং গ্রাম পুলিশ সদস্যদের সার্বিক সহযোগীতা করার জন্য স্থানীয় জনগণকে অনুরোধ করা হয়েছে বলে তিনি জানান। এছাড়াও স্থানীয় হাট বাজার ও গণ পরিবহনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে, শতভাগ মাস্ক ব্যবহার ও অন্যান্য বিধি নিষেধ কার্যকরে স্থানীয়ভাবে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলেও তিনি জানান।

নিয়ামতপুর থানার অফিসার ইন চার্জ হুমায়ন কবির বলেন, চাঁপাই, রাজশাহী সীমান্ত এলাকায় চেকপোষ্ট বসানো হয়েছে। চাঁপাই এর কোন লোক, কোন গাড়ী নিয়াতপুরে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না এবং আমাদের কোন লোককে চাঁপাই এ যেতে দেওয়া হচ্ছে না। চেকপোষ্ট আমাদের আজাদের মোড়, খড়িবাড়ীর জোনাকী অপর দিকে ধানসুরা এবং শিবপুর এলাকায় টহল চলছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে