পার্সেল ট্রেনে ফেনসিডিল, রেল কর্মচারীসহ গ্রেপ্তার ৪

প্রকাশিত: মে ৫, ২০২১; সময়: ১:২৭ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, আদমদীঘি : বগুড়ার আদমদীঘির সান্তাহার রেলওয়ে থানাধীন নাটোর স্টেশনে পার্সেল ট্রেনে অভিযান চালিয়ে ২৮২ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার ও দুই রেল কর্মচারীসহ ৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। মঙ্গলবার দুপুরে গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে সান্তাহার রেলওয়ে থানায় মাদকদ্রব্য আইনে মামলা দায়েরের পর জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, পঞ্চগড় থেকে ঢাকাগামী মালবাহী বিশেষ ট্রেন (পার্সেল স্পেশাল ৪ ডাউন) ট্রেনের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মচারীদের সহযোগিতায় মাদক কারবারিরা ফেনসিডিল বহন করছে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৫ রেল কর্তৃপক্ষের সহায়তায় সোমবার রাত ৮টায় নাটোর স্টেশনে ট্রেনটি দাঁড় করায়।

এরপর তারা ট্রেনের পাওয়ার কারের (বগি নং ৫৪৮৬) ভেতর ইলেকট্রিশিয়ান কেবিন তল্লাশী করতে চাইলে রেলওয়ে কর্মচারি (রেলওয়ে নিরাপত্তাবাহিনি) আলমগীর মিয়া ও রেলওয়ে ইলেকট্রিশিয়ান আব্দুল করিম বাধাঁ প্রদান করেন। এতে তাদের আরো সন্দেহের সৃষ্টি হয়। তারা পাওয়ার কার কেবিনের ইলেকট্রিশিয়ান কেবিনে প্রবেশ করতেই সেখান থেকে দুইজন মাদক কারবারি দৌঁড়ে পালানোর চেষ্টা করলে তাদের সহ ওই দুই রেলকর্মচারিকে গ্রেপ্তার করেন। এসময় ওই বগিতে দুটি স্কুল ব্যাগ ও দুটি প্লাষ্টিকের বস্তায় রাখা ২৮২ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার পটিয়া গ্রামের আব্দুর রহিমের ছেলে ও রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনির সদস্য আলমগীর মিয়া (৩২), ঠাকুরগাঁও রানীসংকৈলের সন্ধারই গ্রামের জালাল আহম্মেদের ছেলে ও রেলওয়ে ইলেকট্রিশিয়ান আব্দুল করিম (৩৩), মাদক কারবারি দিনাজপুরের ফুলবাড়ির বারকোনা (ইস্তাব নগর) গ্রামের সোলাইমানের ছেলে রুবেল হোসেন (২৩), বিামপুরের পূর্ব জগন্নাথপুর গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে কাউছার আলীকে (২৬) গ্রেপ্তার করা হয়। র‌্যাব মঙ্গলবার সকালে তাদের থানায় হস্তান্তর করেন।

সান্তাহার রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনজের আলী জানান, গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে থানায় মাদক আইনে মামলা দায়েরের পর জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

  • 108
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে