অগ্রণী ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক হলেন আবদুছ ছামাদ পাটওয়ারী

প্রকাশিত: এপ্রিল ৮, ২০২১; সময়: ৯:৫২ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, কচুয়া : অগ্রণী ব্যাংকের মহা-ব্যবস্থাপক পদে পদোন্নতি পেলেন চাঁদপুরের কচুয়ার কৃতি সন্তান মো. আবদুছ ছামাদ পাটওয়ারী। আব্দুছ ছামাদ পাটওয়ারী কচুয়া উপজেলার প্রসন্নকাপ পাটওয়ারী বাড়ির মো: ইদ্রিস পাটওয়ারী ও মিসেস ফিরোজা বেগমের সন্তান।

জানা গেছে, বিশিষ্ট ব্যাংকার আব্দুছ ছামাদ পাটওয়ারী কচুয়ার প্রসন্নকাপ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে প্রাথমিক শিক্ষা শেষ করেন। এরপর মতলব দক্ষিণ উপজেলার ঐতিহ্যবাহী নারায়ণপুর পপুলার দ্বি-মূখী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১৯৭৭ সালে বিজ্ঞান বিভাগে প্রথম বিভাগে এসএসসি পাস করেন। পরবর্তীতে কুমিল্লার লাকসাম নবাব ফয়েজুননেছা কলেজ থেকে একই বিভাগ থেকে ১৯৭৯ সালে প্রথম বিভাগে এইচএসসি পাস করেন। পরবর্তীতে প্রাচ্যের অক্সফোর্ড খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সমাজকল্যাণ বিভাগ থেকে ১৯৮৪ সালে অর্নাস ও ১৯৮৫ সালে মাস্টার্স সম্পন্ন করেন।

তিনি ১৯৮৮ সালে ব্যাংকার্স রিক্রুটমেন্ট কমিটির মাধ্যমে সিনিয়র অফিসার হিসেবে অগ্রণী ব্যাংকে প্রধান কার্যালয়ে যোগদানের মধ্য দিয়ে ব্যাংকিং ক্যারিয়ার শুরু করেন। কর্মজীবনে তিনি একাধিক করপোরেট শাখাসহ বিভিন্ন শাখা, সার্কেল এবং প্রধান কার্যালয়ের বিভাগীয় প্রধানসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছেন। এছাড়াও দাপ্তরিক কাজে ভারত, হংকং, ভিয়েতনামসহ দেশ-বিদেশে অসংখ্য ট্রেনিং ও কর্মশালায় অংশগ্রহণ করেছেন।

বিশিষ্ট ব্যাংকার আবদুছ ছামাদ পাটওয়ারী ১৯৬২ সালে চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলার প্রসন্নকাপ গ্রামের এক সম্ভান্ত্র মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তারা ৬ ভাই ও ৩ বোন। ভাইদের মধ্যে তিনি চতুর্থ। তাঁর স্ত্রী কাজী তাহমিনা। বড় মেয়ে সাবরিনা ছামাদ নর্থ সাউথ ইউনির্ভাসিটিতে অধ্যয়রনত। ছেলে তানজিদ ছামাদ পাটওয়ারী ঢাকা কলেজ থেকে চলতি বছর এইচএসসিতে সাফল্যের সাথে উত্তীর্ণ হয়েছেন। তিনি কচুয়া উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ¦ মো. আইয়ুব আলী পাটওয়ারীর আপন চাচাতো ভাই।

এদিকে কচুয়ার প্রসন্নকাপ গ্রামের গৌরব বিশিষ্ট ব্যাংকার ও সমাজসেবক আবদুছ ছামাদ পাটওয়ারী অগ্রণী ব্যাংক মহাব্যবস্থাপক (আন্তর্জাতিক) পদে পদোন্নতি পাওয়ায় তাঁকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ।

  • 15
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে