জয়পুরহাটে বাল্যবিবাহ করতে গিয়ে বর গেলেন কারাগারে

প্রকাশিত: এপ্রিল ৮, ২০২১; সময়: ৯:৩৩ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, জয়পুরহাট : ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রীকে বিয়ে করতে গিয়ে বর গেলেন কারাগারে । বুধবার রাতে জয়পুরহাটের আক্কেলপুর পৌরশহরের শান্তা মহল্লার একটি বাড়িতে এই ঘটনা ঘটেছে।

দণ্ডপ্রাপ্ত বর এরশাদ আলী (১৯)। তিনি নওগাঁর বদলগাছি উপজেলার মৃত লয়েজ আলীর ছেলে। পুলিশ ওই রাতেই তাঁকে সাজাভোগের জন্য কারাগারে পাঠিয়েছে।

ভ্রাম্যমান আদালত ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, তানজিলা খাতুন নামে ওই মেয়েটির বাবা অনেক আগেই মারা গেছেন। মা অন্যত্র বিয়ে হয়ে সংসার করছেন। এতিম মেয়েটিকে তার ফুফু বাড়িতে নিয়ে লালন-পালন করছিলেন। সে সোনামুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তি হয়েছে। লকডাউনের কারণে স্কুল বন্ধ রয়েছে। একারণে বিদ্যালয়ের শ্রেণি কক্ষ দেখতে পায়নি সে। হঠাৎ করেই অভিভাবকেরা তার বিয়ে ঠিকঠাক করেন।

বুধবার রাতে ফুফুর বাড়িতে মেয়েটির বিয়ের আয়োজন করা হয়। বর বিয়ে বাড়িতে চলে এসেছেন। রান্নার কাজ শেষ পর্যায়ে রয়েছে। বর-কনের বিয়ে পড়ানোর প্রস্তুতি চলছিল। হঠাৎ করেই বিয়ে বাড়িতে হাজির হন ইউএনও এস. এম হাবিবুল হাসান। তাকে দেখে বিয়ে বাড়ি থেকে দাওয়াতি লোকজন চলে যান। সেখানে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে বরের কারাদন্ড দেওয়া হয়।

ইউএনও এস, এম হাবিবুল হাসান বলেন, বাল্যবিবাহের আয়োজন করা হয়েছিল। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে বাল্যবিবাহ বন্ধ করা হয়েছে। বরকে সাত দিনের কারাদন্ড দেওয়া হয়েছে। বিয়ে ভেঙে যাওয়ায় মেয়েটি খুশি হয়েছে।

আক্কেলপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইদুর রহমান বলেন, বাল্যবিবাহের অপরাধে ভ্রাম্যমান আদালত বরকে সাত দিনের কারাদন্ড দিয়েছেন। সাজাভোগের জন্য ওই রাতেই বরকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

 

  • 15
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে