তাড়াশে স্বাধীনতার ৫০ বছরেও পাকা হয়নি রাস্তা

প্রকাশিত: মার্চ ১৭, ২০২১; সময়: ১২:২৭ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, তাড়াশ : নির্বাচন আসে, নির্বাচন যায়, নির্বাচিত হয় জন প্রতিনিধি কিন্তু ভাগ্যের পরিবর্তন হয় না সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার দুটি গ্রামের হাজারো মানুষের। উপজেলার তালম ইউনিয়নের চৌড়া ও দেশীগ্রাম ইউনিয়নের গুড়পিপুল গ্রামের হাজারো মানুষের। এই দুই গ্রামের সংযোগস্থলের মাত্র দেড় কিলোমিটার কাঁচা রাস্তা পাকা হওয়ার জন্য দুই গ্রামবাসী অপেক্ষা করছে দশকের পর দশক।

সরেজমিনে দেখা যায়, চৌড়া-গুড়পিপুল কাঁচা সড়কটির ওপর এ গ্রামের লোকজন নির্ভরশীল। এলাকার লোকজন এ সড়ক দিয়েই যাতায়াত করছেন। শুধু তাই নয় ওই এলাকার স্কুল-কলেজগামী ছাত্র-ছাত্রীরাও এ সড়কের ওপর নিভর্রশীল। এলাকার কৃষকরা তাদের উৎপাদিত ধান-পাটসহ অন্যান্য পণ্য বাজারজাত করতে এ সড়ক দিয়েই বিভিন্ন স্থানে নিয়ে যায়। ফলে কৃষকরা ধানসহ অন্যান্য পণ্য বাজারজাত করতে যানবাহন খরচ বাড়ছে ও কষ্টের সঙ্গে যাতায়াত করতে হচ্ছে।

স্থানীয় সোহরাব মুন্সী, নবীর প্রামানিক, গঞ্জের আলী ও নাজিম উদ্দিনসহ অনেকেই জানান, নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা নির্বাচনের সময় যে প্রতিশ্রুতি দেন নির্বাচিত হওয়ার পর তা ভুলে যান। কেউ কথা রাখে নি। কিন্তু নির্বাচন চলে গেলে এই রাস্তা ও এলাকাবাসীর দুর্দশার কথা কারোই মনে থাকেনা। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন চলাচলরত সাধারণ মানুষ। ফলে দুই গ্রামের দশ হাজার মানুষ নানা দূর্ভোগ আর দুর্যোগকে সঙ্গী করে মানবেতর জীবন যাপন করছেন এই কাঁচা রাস্তাটি দিয়ে।

এলজিইডির তাড়াশ উপজেলা প্রকৌশলী আবু সাইদ বলেন, চৌড়া থেকে গুড়পিপুল সড়কটির দ্রুত পাকারণ করা হবে। সড়কটি আইডিভুক্ত করা হয়েছে ও প্রকল্পে দেয়া হয়েছে।

  • 27
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে