ধামইরহাটে যাচাই বাছাইয়ে বাদ পড়া ৫৭ জন মুক্তিযোদ্ধাদের মানববন্ধন

প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০২১; সময়: ১০:৩৬ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, ধামইরহাট : নওগাঁর ধামইরহাটে যাচাই-বাছাইয়ে বাদ পড়া ৫৭ জন মুক্তিযোদ্ধা মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে। ২৮ ফেব্রুয়ারী বেলা ১১ টায় উপজেলা পরিষদে সম্মুখে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি পালনকরে বাদ পড়া বীর মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের সন্তান-ওয়ারিশগণ।

জানা যায়, জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের (জামুকা) অনুমোদন ব্যতীত বেসামরিক গেজেটধারী বীর মুক্তিযোদ্ধাদের যাচাই-বাছাই চলতি ফেব্রুয়ারী মাসের ৬ তারিখে শুরু হয়ে পর পর ৩ দিনে সমাপ্ত হয়। যার প্রতিবেদন গত ২২ র্ফেরুয়ারী মহাপরিচালক, জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল (জামুকা) বরাবর প্রেরণ করে জামুকা কর্তৃক নিয়োগকৃত কমিটি।

উক্ত তালিকায় ৩২ জনকে তালিকায় রেখে ও স্বাক্ষী না থাকা, স্বাক্ষীদের স্বাক্ষ্য কমিটির নিকট সঠিক না মনে হওয়া ও সংশ্লিষ্ট প্রমানক নেই মর্মে ৫৭ জনকে তালিকা বাদ দিয়ে তালিকা প্রকাশ করেন। এরই প্রতিবাদে ২৮ ফেব্রুয়ারী বেলা ১১ টায় বীর মুক্তিযোদ্ধা, তাদের পরিবারবর্গ, সন্তান ও সচেতন সমাজ এর ব্যানারে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ইয়াকুব আলী, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ফারুক হোসেন, প্রভাষক সুলতান মাহমুদ প্রমুখ।

বক্তাগণ অভিযোগ করেন, বাদ পড়া সকলেই প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা, তাদেরকে অন্যায়ভাবে তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে, যার খবর পেয়েই বীর মুক্তিযোদ্ধা সাহার আলীর স্ট্রোক হয়ে অকাল মৃত্যু ঘটে। তারা আরও অভিযোগ করেন যে, যাচাই-বাছাই কমিটিতে যুদ্ধকালীন কমান্ডার ছাড়াই সভাপতি মনোনীত করা হয়েছে বীর মুক্তিযোদ্ধা বদিউজ্জামানকে, যা জামুকার নীতিমালার পরিপস্থি।

ধামইরহাট উপজেলার সাবেক কমান্ডার ও যুদ্ধকালীন কমান্ডার ফরমুদ হোসেন, বলেন, কমিটিতে প্রথমে জামুকা ধামইরহাটের যাচাই-বাছাই কার্যক্রমে আমাকে সভাপতি নিয়োগ করেন, পরে যাচাই-বাছাইয়ের ২ দিন পূর্বে আমাকে বাদ দিয়ে অন্য একজনকে সভাপতি নিয়োগ করা হয়েছে, যা বিধি বহিভর্ূূত হয়েছে, অনেক প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা তালিকা নাম না আসায় আমি ক্ষোভ প্রকাশ করছি।

এসব অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে যাচাই-বাছাই কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা বদিউজ্জামান বলেন, আমরা যা করেছি সঠিক ভাবেই কমিটির অন্যান্য সদস্যদের মতামত নিয়েই করেছি, এতে কোন অনিয়ম হয়নি।

  • 6
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে