সাতবাড়ীয়ায় অসহায়দের জন্য ‘মানবতার দেয়াল’

প্রকাশিত: জানুয়ারি ৮, ২০২১; সময়: ৪:৪৮ pm |

এম এ আলিম রিপন, সুজানগর : লেখা যার আছে সে দিয়ে যান, যার নাই সে নিয়ে যান। সচ্ছল এবং দুস্থ মানুষের প্রতি এমন আবেদন জানানো লেখা সংবলিত দেয়ালটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘মানবতার দেয়াল’ দেয়ালে এমন একটি লাগানো ব্যানার দিয়ে এবার সুজানগরের সাতবাড়ীয়ায় যাত্রা শুরু করেছে মানবতার দেয়াল।

অনুকরণীয় এই মানবিক কাজটি করেছে ইউনিভার্সিটি স্টুডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন অব সাতবাড়ীয়া নামক একটি স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন। স্থানীয় সাতবাড়ীয়া বাজার সড়কের কলেজের গেটের উত্তর-পূর্ব কর্ণার এলাকার একটি দেয়ালেই লেখা হয়েছে মানবিক আবেদনের এ কথাগুলো। ওই দেয়ালে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে বিভিন্ন ধরনের পোশাক। সচ্ছল মানুষরা ওই দেয়ালে রেখে যাচ্ছেন তাদের অব্যবহৃত ও বাড়তি পোশাক। আর সেগুলো দুস্থ মানুষরা যার যেটা প্রয়োজন, সেটা নিয়ে যাচ্ছেন। এ কারণেই দেয়ালটির নামকরণ করা হয়েছে ‘মানবতার দেয়াল’।

বৃহস্পতিবার আনুষ্ঠানিকভাবে এর কার্যক্রম শুরু করা হয়। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন পাবনা-২ আসনের এমপি আহমেদ ফিরোজ কবির। এ সময় সুজানগর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এম এ আলিম রিপন, ইউনিভার্সিটি স্টুডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন অব সাতবাড়ীয়া এর সভাপতি সজিব হোসেন অবাক,সাধারণ সম্পাদক রইচ উদ্দিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। উদ্বোধনকালে এমপি আহমেদ ফিরোজ কবির বলেন উদ্যোগটি অত্যন্ত চমৎকার। বর্তমান যুব সমাজ মাদক ও নানাভাবে অপকর্মে জড়িয়ে পড়ছে, তাদের মধ্যে থেকে একদল যুব সমাজের এমন উদ্যোগ সত্যিই প্রসংশনী।

এ সময় তিনি সকল প্রকার সহযোগীতা করারও আশ^াস দেন এবং সচ্ছল মানুষের এমন মানবিক কাজের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান। এরপর ওই দেয়ালে এমপি সহ উদ্যোগী ওই যুবকরা ছাড়াও স্থানীয় কয়েক ব্যক্তি তাদের অব্যবহৃত পোষাক রাখতে শুরু করেন। আর অসহায় ব্যক্তিরা আবার ওখান থেকে তাদের পছন্দ ও চাহিদা অনুয়ায়ী পোষাক নিচ্ছেন ব্যবহার করার জন্য। সুজানগর প্রেসক্লাবের সভাপতি শাহজাহান আলী বলেন, সমাজে আজ মানবতার চরম বিপর্যয় চলছে। গানমাধ্যমে চোখ রাখলেই যুব সমাজের চরম অবক্ষয় ও সংকট নিয়ে সুশীলসামাজ হতাশ।

এসব খবরের ভীড়ে এমন একটি উদ্যোগ সতিই আবাক ও আশার সঞ্চয় জাগায়। সাতবাড়ীয়া ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল বাছেত বাচ্চু বলেন বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যায়নরত এ এলাকার তরুন যুবকদের এ উদ্যোগ সত্যিই বিবেককে নাড়া দিবে সমাজের সকলকে। এ উদ্যোগের প্রচার হলে উপকৃত হবে দুস্থ মানুষ গোষ্ঠী। উদ্যোক্তারা জানান, সমাজে অনেক শ্রেণির মানুষ রয়েছে, যাদের কাপড়চোপড় কেনার সামর্থ্য নেই। আবার তাদের ঘরে ওই পরিবারগুলোর পাশে দাঁড়াতেই মানবিক দেয়াল স্থাপনের উদ্যোগ নেয় তারা। সকলের সহযোগী পেলে আরও জনকল্যান ও মানব কল্যাণ কর্মকাণ্ড করার ইচ্ছে রয়েছে বলেও জানান তারা।

  • 37
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে