মান্দায় নির্মাণাধীন বসতবাড়ি ভাংচুর

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ২১, ২০২০; সময়: ৩:০৮ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, মান্দা : নওগাঁর মান্দায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে নির্মাণাধীন একটি বসতবাড়িতে দফায় দফায় ভাংচুর করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রতিপক্ষের হুমকির মুখে বর্তমানে বাড়িতে বসবাস করতে পারছেন না ভুক্তভোগী পরিবার।

উপজেলার নুরুল্লাবাদ ইউনিয়নের সোনারপাড়া গ্রামের এসব ঘটনায় মান্দা থানায় একাধিকবার অভিযোগ দায়ের করা হলেও কোন ব্যবস্থা নেয়া নেয়নি পুলিশ। গত রোববার আবারও প্রতিপক্ষের ৩ জনের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

ভুক্তভোগী গুলনাহার জানান, স্বামী দেলোয়ার হোসেনের পৈত্রিক সুত্রে পাওয়া ও আমার কবলাকৃত সম্পত্তিতে গত ১৫ অক্টোবর পাকা স্থাপনার নির্মাণ কাজ শুরু করি। এর কয়েকদিন পর পূর্ব শত্রুতার জের ধরে বজলুর রশিদ খাজাসহ তার সহযোগীরা সেটি ভেঙে গুড়িয়ে দেয়। এতে আমার দেড় লক্ষাধিক টাকার ক্ষতিসাধন হয়।

তিনি আরও জানান, এরপর আবারও কাজ শুরু করলে গত ৫ নভেম্বর প্রতিপক্ষরা রাতের অন্ধকারে দেশিয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে নির্মাণাধীন স্থাপনা গুড়িয়ে দিয়ে লক্ষাধিক টাকার ক্ষতিসাধন করে। এসময় বাধা দেওয়ায় স্বামী দেলোয়ার হোসেনসহ আমাকে মারপিট করে প্রতিপক্ষরা।

পরে আমার শয়নঘরে ঢুকে আসবাবপত্র ভাংচুরসহ ৩ লাখ টাকা লুট করে নিয়ে যায়। এ অবস্থায় স্থানীয়দের সহায়তায় আবারও নির্মাণ কাজ শুরু করি। গত ১৪ ডিসেম্বর আমরা বাড়িতে না থাকার সুযোগে প্রতিপক্ষের লোকজন লাঠি, লোহার রড ও সাবল দিয়ে ইটের দেয়াল ও প্রাচীর ভেঙে গুড়িয়ে দেয়।

ভুক্তভোগী গুলনাহার অভিযোগ করে বলেন, বর্তমানে প্রতিপক্ষের হুমকিতে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে বড়িতে বসবাস করতে পারছি না। সাবালিকা মেয়েকে নিয়ে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। এসব ঘটনায় মান্দা থানায় একাধিকবার অভিযোগ দায়ের করা হলেও কোন ব্যবস্থা নেয়নি পুলিশ। সর্বশেষ গত রোববার আবারও প্রতিপক্ষের বজলুর রশিদ খাজাসহ তিনজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

মান্দা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহিনুর রহমান আগের অভিযোগ প্রাপ্তির বিষয়টি অস্বীকার করেন। তিনি বলেন, গত রোববার ভুক্তভোগী পরিবারের একটি অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনা তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

  • 20
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে