চৌহালীতে গ্রাহকদের মাঝে বন্যা বীমার টাকা বিতরণ

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৫, ২০২০; সময়: ৪:২০ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিরাজগঞ্জ : পৃথিবীতে প্রথম চালু হওয়া বন্যায় বীমার টাকা সিরাজগঞ্জের চৌহালীতে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত গ্রাহকদের মাঝে বিতরন করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে উন্নয়ন সংস্থা মানব মুক্তির কার্যালয় থেকে ৫০ জন পরিবারকে ২ হাজার ৪০০ টাকা করে প্রদান করে আনুষ্ঠানিকতা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আফসানা ইয়াসমিন। এরপর ঘোরজান ও স্থল ইউনিয়নের আরো ৪৫০ পরিবারের মাঝে এ টাকা প্রদান করা হবে।

এসময় বীমা গ্রীন ডেল্টা ইন্সুরেন্স কোম্পানীর ভাইস প্রেসিডেন্ট আলী তারেক পারভেজ, দাতা সংস্থা অক্সফাম বাংলাদেশের প্রতিনিধি মোনতাসিম বিল্লাহ, কেএনএমএন আজম, উপজেলা সমাজ সেবা অফিসার জেল হোসেন, পিআইও মজনু মিয়া, মানবমুক্তি সংস্থার প্রতিনিধি গুরুদাস বিশ্বাস, আবুল হাশেম, ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম শহিদ, আব্দুল মজিদ সরকার, নজরুল ইসলাম, প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, পাইলট প্রকল্পের আওতায় পৃথিবীতে প্রথম ২০১৪ সালে আন্তর্জাতিক সাহায্য সংস্থা অক্সফাম-এর সহযোগীতায় সিরাজগঞ্জের সদর এবং চৌহালী উপজেলার দুর্গোম চরাঞ্চল্যের ১ হাজার ৬২৬টি বন্যা কবলিত পরিবারকে নিয়ে প্রগতী ইন্সরেন্সের মাধ্যমে বন্যা বীমা কার্যক্রম চালিয়ে আসছিল। মাঝ খানে কয়েক বছর তা বন্ধ থাকলেও এবছর অক্সফামের সহযোগীতায় আবারো এই কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এজন্য দাতা সংস্থা অক্সফাম চৌহালী উপজেলার স্থল ও ঘোরজান ইউনিয়নের ৫০০ পরিবারকে এবছর অন্তঃর্ভুক্ত করে পরিবার প্রতি ১২শ করে টাকা বন্যার বীমার প্রিমিয়াম গ্রীন ডেল্টা ইন্সুরেন্স কোম্পানীকে প্রদান করে। বীমা প্রতিষ্ঠানের বেধে দেয়া বন্যার পানি বিপদসীমা অতিক্রম করে দীর্ঘায়িত হওয়ায় প্রিয়ামের টাকা সহ বীমা দাবীর ২৪শ টাকা গ্রাহকদের প্রদান করে।

এদিকে বীমা দাবীর ক্ষতিপুরণের টাকা পেয়ে উন্নয়ন সংস্থা মানব মুক্তি ও দাতা সংস্থা অক্সফামের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তরা।

  • 57
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে