কচুয়ায় স্কুল ছাত্রী মিশু হত্যার দায়ে দুইজন গ্রেপ্তার

প্রকাশিত: আগস্ট ৪, ২০২০; সময়: ৫:১৬ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, কচুয়া: কচুয়া উপজেলার বড়-হায়াতপুর গ্রামে চাঞ্চল্যকর স্কুল ছাত্রী জান্নাতুল নাঈম মিশু হত্যার ঘটনায় দুই আসামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার কচুয়া থানার ওসি ওয়ালী উল্যাহ অলি তাঁর নিজ কার্যালয়ে কচুয়া প্রেসক্লাবের সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে প্রেস বিফ্রিং এর মাধ্যমে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

এসময় ওসি বলেন, মেধাবী ছাত্রী মিশু হত্যায় সন্দেহভাজন দুই আসামী নুরু আলম নুরা ও সজিবকে আটক করা হয়। আসামীদ্বয় ভিকটিমকে পরিকল্পিত ভাবে শ^াসরোধ করে হত্যা করেছে। প্রাথমিক ভাবে জিজ্ঞাসাবাদে তারা মিশু হত্যার সাথে জড়িত বলে স্বীকার করেছেন। নুর আলম নুরা (২৫) বড়-হায়াতপুর গ্রামের মনির হোসেনের ছেলে এবং সজীব হোসেন (২০) ফরিদগঞ্জ উপজেলার গাব্দেরগাঁও গ্রামের আমির হোসেনের ছেলে। তবে নিহতের মা ও স্বজনরা দাবি করছেন তাকে ধর্ষণ করে হত্যা করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত: কচুয়া উপজেলার বড়-হায়াতপুর গ্রামের অধিবাসী ও প্রবাসী আবু হানিফের মেয়ে ও সাদিপুরা চাঁদপুর এম.এ খালেক স্কুল এন্ড কলেজের নবম শ্রেনীর মেধাবী ছাত্রী জান্নাতুল নাঈম মিশু গত শুক্রবার ঈদের আগের দিন দুপুরে বাড়ির পাশে বিলে ঘাস কাটতে গিয়ে নিখোঁজ হয়। ঈদের পরের দিন শনিবার পাশ^বর্তী বিলের খালে তার গলিত লাশ দেখতে পায় এলাকাবাসী। পরে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দিলে তার লাশ উদ্ধার করে চাঁদপুর মর্গে প্রেরন করে কচুয়া থানা পুলিশ। ওই ঘটনা তার মা ফাতেমা আক্তার সেফালী বাদী হয়ে কচুয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করে।

পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে সোমবার রাতে দুই আসামীকে গ্রেপ্তার করে জেলহাজতে প্রেরণ করে। এসময় কচুয়া থানার ওসি তদন্ত মো: ইব্রাহিম খলিল, কচুয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি রাকিবুল হাসান,সাধারন সম্পাদক জিসান আহমেদ নান্নু,সিনিয়র সহ-সভাপতি আতাউল করিম,সহ-সভাপতি মানিক ভৌমিক, সাবেক সভাপতি আবুল হোসেন, প্রিয়তোষ পোদ্দারসহ প্রেসক্লাবের অন্যান্য সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

অপর দিকে স্কুল ছাত্রী জান্নাতুল নাঈম মিশুর হত্যাকারীদের ফাঁিসর দাবিতে বিভিন্ন জায়গায় মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে এলাকাবাসী।

  • 176
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে