সিংড়ায় পুলিশের বাধায় মে দিবসের কর্মসূচী পন্ড

প্রকাশিত: মে ২, ২০১৯; সময়: ১২:০০ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, নাটোর : নাটোরের সিংড়ায় উপজেলা চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে উপজেলা শ্রমিক ঐক্য পরিষদের একাংশের মে দিবসের র‌্যালীতে পুলিশ বাধা দিলে কর্মসূচী পন্ড হয়ে যায়। ওই র‌্যালিতে নেতৃত্ব দেন সিংড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি শফিকুল ইসলাম শফিক। বুধবার মহান মে দিবসের কর্মসূচীর অংশ হিসেবে এই র‌্যালির আয়োজন করা হয়। এর আগে মঙ্গলবার রাতে সিংড়া বাস স্ট্যান্ড এলাকায় সংগঠনটির পুর্ব ঘোষিত সমাবেশস্থলের মঞ্চসহ সাজসজ্জা ভেঙ্গে দেয়া হয়।

বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম শফিকের নেতৃত্বে কয়েকশ শ্রমিক পৌর শহরের সরকার পাড়া এলাকা থেকে একটি র‌্যালী বের করে। র‌্যালীটি বাসষ্ট্যান্ড এলাকার মৎস্য আড়ৎ গেটে পৌঁছিলে পুলিশ বাধ দিলে কর্মসূচী পন্ড হয়ে যায়। পরে সেখান থেকে ফিরে এসে সরকার পাড়ায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ অফিসের সামনে তারা সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে। ওই সমাবেশে বিশেষ অতিথির ছিলেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান কামরান, শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সভাপতি সাহাদত হোসেন সাধু প্রমুখ।

সিংড়া উপজেলা চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম শফিক বলেন, মঙ্গলবার দিবাগত রাতে তাকে ফোন করে স্থানীয় ও জেলা প্রশাসন সহ সিংড়া থানা পুলিশের পক্ষ থেকে বুধবারের সমাবেশ বা র‌্যালী করতে নিষেধ করা হয়। অথচ তারাই প্রথম কর্মসুচী ঘোষনা করে প্রচারণা চালায়। স্থানীয় প্রশাসন সহ পুলিশ প্রশাসনকে অবগতি পত্রও দেওয়া হয়। হঠাৎ করে অপর অংশ একই এলাকায় কর্মসুচী পালনের ঘোষনা দেয়। স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষে মঙ্গলবার রাত ১টার পরে ফোন করে তাকে কর্মসুচী বাতিল করতে বলা হয়। তিনি তাদের অনুরোধ মেনে রাতে কর্মসুচী বাতিল করেন। তবুও কয়েক হাজার শ্রমিক তাদের সংগঠনের পূর্বাহবানে সিংড়া সরকারপাড়া থেকে র‌্যালী বের করে যা পুলিশ বাধা দিলে পন্ড হয়ে যায়। চেয়ারম্যান শফিক অভিযোগ করে বলেন, উপজেলায় দলের একজন ‘সিনিয়র’ নেতার ইশারায় এসব হয়েছে।

উপজেলা নির্বাচনের সময় ওই নেতার নির্দেশে দলের সুবিধাবাদী কয়েকজন নেতা আওয়ামী লীগ প্রার্থী হিসেবে আমার বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে নৌকার বিরুদ্ধে প্রচারনা চালায়। আমি তৃনমুল নেতা কর্মীদের সাথে নিয়ে নানা অত্যাচার নির্যাতন সহ্য করে প্রচার চালিয়ে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হই। নির্বাচনের সময় আওয়ামী লীগ বা নৌকার বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ায় তারা জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছেন। তাই তারা আবারও রাজনৈতিক ফায়দা নিতে প্রশাসনের সহায়তায় কর্মসূচী পালন করছে।

সিংড়া সার্কেলে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মীর আসাদুজ্জান জানান, সিংড়া বাস টার্মিনালে শ্রমিক দিবসের আরেকটি অনুষ্ঠান চলার কারনে সংঘাত এড়ানোর জন্য তাদেকে সামনের দিকে যেতে দেওয়া হয়নি। তবে কারা সমাবেশ মঞ্চ ভেঙ্গে দিয়েছে তা জানেন না বলে জানান তিনি।

শ্রমিক ঐক্য পরিষদের ওই অপর অংশের আয়োজনে বাস টার্মিনাল থেকে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের নেতৃত্বে একটি র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালীটি সিংড়া শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে পুনরায় বাস টার্মিনালে এসে শেষ হয়। পরে সেখানে শ্রমিক সমাবেশে বক্তব্য দেন তিনি। এসময় পৌর মেয়র জান্নাতুল ফেরদৌস, শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গির হোসেন সহ আওয়ামী লীগ ও শ্রমিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, শফিকুল ইসলাম শফিক নৌকা প্রতীক নিয়ে সিংড়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়ী হওয়ায় ওই সিনিয়র নেতার ইশারায় উপজেলা আওয়ামী লীগের একটি অংশ তাকে বর্জন করেছে। সম্প্রতি উপজেলার প্রথম সভাও বয়কট করেন সিংড়ার ১২ ইউপি চেয়ারম্যান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে