তুরস্কের আকাশে অদ্ভুত ছবি, মেঘ নাকি ইউএফও?

প্রকাশিত: জানুয়ারি ২৫, ২০২৩; সময়: ১:২১ pm |
তুরস্কের আকাশে অদ্ভুত ছবি, মেঘ নাকি ইউএফও?

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : তুরস্কের আকাশে দেখা মিলল অদ্ভূত রঙিন মেঘের। লাল-কমলা রঙের মেঘ দেখে বোঝা মুশকিল আদৌ মেঘ নাকি অন্য কিছু। তুরস্কের বুরসা শহরের আকাশে এটির দেখা মেলে। অদ্ভূত এই দৃশ্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। চলন্ত গাড়ি থেকেও এর ভিডিও রেকর্ড করা হয়েছে। এই বিরাট মেঘপুঞ্জ প্রায় এক ঘণ্টা আকাশে ছিল।

আসলে এটি কোনো ভিনগ্রহের যান নয়, বরং মেঘের ছবি। মেঘ সাদা-ছাই-কালো রঙের দেখা গেলেও এমন রঙিন মেঘের নজির নেই। লাল-কমলা মেঘের এ ছবি অবিশ্বাস্য হলেও বাস্তব।

অদ্ভুত গোলাকার আকৃতির মেঘটির কী ব্যাখ্যা দিচ্ছেন বিজ্ঞানীরা?

এটি সূর্যাস্তের সময় দেখা গিয়েছিল। গোলাকার আকৃতির মেঘ ছাড়া আর কোনও মেঘ আকাশে তখন দেখা যায়নি। এই ধরনের মেঘ তৈরির বিষয়ে তুরস্কের স্টেট ওয়েদার সায়েন্স সার্ভিসেস থেকে জানানো হয়েছে যে, এটি একটি বিরল ঘটনা। যা লেন্টিকুলার ক্লাউড নামে পরিচিত। এটি এক ধরনের মেঘ।

২০০০ থেকে ৪০০০ মিটার উচ্চতায় দেখা যায় মেঘটি। পরিবেশ বিজ্ঞানীরা জানান, সাধারণত এই ধরনের মেঘ আকাশে দেখা গেলে পরের দিন বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকে। বাতাসে আর্দ্রতার পরিমাণ বাড়ে। পার্বত্য এলাকায় বায়ুপ্রবাহ বাধাগ্রস্থ হয়ে অনেক সময় একই স্থানে পাক খেতে থাকে। এই অবস্থায় বায়ুর অংশবিশেষ উপরের দিকে উঠে গিয়ে শীতল হয়ে এই ধরনের মেঘ তৈরি করতে পারে।

ফক্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আকাশের বাতাস শান্ত ও আর্দ্র থাকলেই এই ধরনের মেঘ তৈরি হয়। এই ধরনের মেঘ শুধু শীতকালে দেখা যায়। আশ্চর্যের বিষয় হলো এই মেঘের মাঝখানে একটি গর্তও রয়েছে।লেন্টিকুলার ক্লাউডে গোলাকৃতি বাঁক রয়েছে। যা একে অন্য় সব মেঘের থেকে আলাদা করে। গোলাকৃতি ওই মেঘের মাঝখানে গভীর ছিদ্রও দেখা যায়।

বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, এটি খুব কম জায়গাতেই হয়। সেই হিসেবে এটিকে বিরল দৃশ্যও বলা যেতে পারে। ঝড় আসার ইঙ্গিতও দেয় এই লেন্টিকুলার ক্লাউড। বিশেষ ধরনের এই মেঘ নানা আকার ধারণ করে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
topউপরে