বাগমারায় পুকুর খননের জমি না দেয়ায় কৃষকের উপর হামলা

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৩, ২০২৩; সময়: ১:৪৬ pm |
বাগমারায় পুকুর খননের জমি না দেয়ায় কৃষকের উপর হামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার ৬ নং শ্রীপুর ইউনিয়নের মজিদপুরে কৃষি জমিতে অবৈধ পুকুর খননের জমি না দেওয়ায় হামলার শিকার হয়েছেন লালন নামে এক কৃষক। বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টার দিকে মোজাফফর এর ছেলে মোঃ লালনকে বেপরোয়া ভাবে হাতুরী, লোহার রড ও বাঁশের লাঠি দিয়ে পিটিয়ে শরীরের বিভিন্ন অংশে ব্যাপক জখম করে।

আহত লালন গুরুত্ব অবস্থায় বাগমারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চিকিৎসাধীন রয়েছে। এছাড়াও স্বপনের অন্যায়ের প্রতিবাদ করতে গিয়ে খেতু মন্ডলের পরিবারের সদস্যরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে, তারা বাড়ি থেকে বের হলেই তাদের কেউ মারপিট করবে বলে হুমকি ধামকি দিচ্ছে বলে ভুক্তভোগীরা জানান।

অভিযুক্ত আতিকুর হোসেন স্বপন রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার ৬ নং শ্রীপুর ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ড মজিদপুরের নজিবুলের ছেলে।

স্থানীয়ভাবে তিনি অত্র ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি পদেও আছেন। আরেক দিকে তার স্ত্রী রেনু খাতুন বাগমারা থানায় কনস্টেবল হিসেবে প্রায় তিন বছর যাবৎ এখানে কর্মরত আছেন সে সুবাদে স্থানীয় প্রশাসনিক শক্তি কাজে লাগিয়ে প্রতি বছর তার বাড়ির আশেপাশে আবাদি তিন ফসলি জমি অবৈধভাবে দখল করে পুকুর খননই তার একমাত্র পেশা।

ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে কোন প্রকার জমির মালিকদের সাথে কোন ডিড বা আলাপ আলোচনা ছাড়াই জোরপূর্বক অবৈধ ভাবে বিভিন্ন স্থানে অবৈধ ভাবে পুকুর খনন করে আসছে প্রায় ৩-৪ বছর যাবৎ। তার এই শক্তির প্রধান উৎস বাগমারা থানায় কর্মরত স্ত্রী পুলিশ কনস্টেবল রেনু খাতুন। স্বামীর স্টেশনে চাকরিতে যুক্ত থাকা অবস্থায় স্বপনকে নানা অন্যায় কাজে সহযোগিতা করে আসছে তার এই স্ত্রী।

অন্যায় ও অবৈধ কাজ করেও স্বপন নানাভাবে তার স্ত্রীর কারণে পার পেয়ে যাচ্ছে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের হাত থেকে। রেনু খাতুন বাগমারা থানায় তিন বছর থেকে কনস্টেবল পদে কর্মরত থাকায় স্ত্রীর নানা অনৈতিক সুপারিশের ফলে পুলিশ প্রশাসনের নানা সহযোগিতা পেয়ে স্বপন আইন-কানুনের প্রতি কোনো তোয়াক্কা না করে এলাকায় জোরপূর্বক জমি দখল করে পুকুর খনন করে আসছে বলে ভুক্তভোগীরা জানান।

ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও তার স্ত্রীর ক্ষমতার বলে স্বপন সমাজের নানা অপকর্মের সাথে সম্পৃক্ত। শ্রীপুরবাসীর সকল জনসাধারণের জানে যে স্বপন একজন দুষ্কৃতিকারী। সে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও তার স্ত্রীর ক্ষমতার দাপটে মজিদপুরবাসীকে নানা অন্যায় অত্যাচার ও জুলুমের মধ্যে জিম্মি করে রেখেছে। মজিদপুরবাসী চরম অসহায় তার অন্যায়ের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার হয় না শুধুমাত্র তার পুলিশ কনস্টেবল স্ত্রীর হস্তক্ষেপের কারণে। তার জুলুমের হাত থেকে রক্ষা পায়নি অল্প বয়সে ছেলে থেকে বৃদ্ধ বয়সের ও মানুষ।

গত ৪/৫ দিন আগে স্বপন এর অবৈধ পুকুর খনন বন্ধে জমির মালিকদের বিভিন্ন আপত্তি ও অভিযোগের প্রেক্ষিতে উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে স্বপন এর অবৈধ পুকুর খনন বন্ধ করা হলে স্বপন ও তার সন্ত্রাসবাহিনীর মাধ্যমে এলাকায় ব্যাপক সন্ত্রাসী ও ত্রাসের কায়েম করে জমির মালিকদের মারপিট ও খুন যখমের হুমকি ধামকির প্রদর্শনের করে আসছে প্রতিনিয়ত। ফলে ৪/৫ টি পরিবারের সদস্যরা বাড়ি থেকে বের হতে পারছে না।

এই পরিবারের লোকজন তারা এখন অসহায় এবং সম্পূর্ণরূপে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। যারাই বাড়ি থেকে বের হচ্ছে তাদেরকে স্বপন ও স্বপনের সন্ত্রাসবাহিনীর লোকজন চারিদিকে ঘেরাও করে আতঙ্ক ও ত্রাস সৃষ্টির করে লোক সম্মুখে দিনের বেলায় মারপিট করছে। ইতিমধ্যে বয়স্ক লোক রমজান, কাজিমূদিনের ছেলে সাইদ কে মারপিট করেছে।

শ্রীপুর ইউপি চেয়ারম্যান মকবুল হোসেন মৃধা বলেন, স্বপন অবৈধ ভাবে জোরপূর্বক জমির মালিক কে না বলে পুকুর খনন করছিলো। এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনায় গেলে উপস্থিত টের পেয়ে সবাই পালিয়ে যায়। আমি লোক মারফত শুনেছি লালন বাগমারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি আছে। আমি চেয়ারম্যান হিসেবে এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

বাগমারা থানার ওসি আমিনুল ইসলাম বলেন, এখন পর্যন্ত এ বিষয়ে কোন অভিযোগ পাইনি অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।

বাগমারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু সুফিয়ান বলেন, কৃষকদের অভিযোগের পেক্ষিতে সরেজমিনে গিয়ে কাউকে না পেয়ে চলে এসেছি। আর এই অবৈধ পুকুর খনন বন্ধে কঠোর নজরদারিতে আমরা রেখেছি কোন ভাবেই অবৈধ পুকুর খনন হতে দেওয়া হবে না। মজিদপুর হামলার ঘটনা শুনেছি বাগমারা থানা কে অভিযোগের ভিত্তিতে ব্যাবস্থা গ্রহনের জন্য বলা হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
topউপরে