গুরুদাসপুরে সাংবাদিকের উপর হামলার ঘটনায় ৩ জন গ্রেপ্তার

প্রকাশিত: জানুয়ারি ৮, ২০২৩; সময়: ৬:২১ pm |
গুরুদাসপুরে সাংবাদিকের উপর হামলার ঘটনায় ৩ জন গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক, নাটোর : নাটোরের গুরুদাসপুরে সাংবাদিক পেটানো মামলায় ৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। রোববার ভোর রাতে গুরুদাসপুরের পার্শ্ববর্তী তাড়াশ উপজেলার মান্নাননগরের একটি পুকুর এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃত আসামিরা হলেন, নহর মোল্লা (২০), জুয়েল রানা (২৮), মো. সুমন (৩০)। মামলার তিন আসামীকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন গুরুদাসপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আব্দুল মতিন। তবে পুলিশের এই অভিযানে সাংবাদিক পোটানো ঘটনার মুল হোতা মামলার প্রধান আসামি গুরুদাসপুর পৌর যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নান্নু মোল্লাকে গ্রেপ্তার না করায় ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন সাংবাদিক মহল। গ্রেপ্তারকৃতরা চুনোপুটি বলে মন্তব্য করেছেন স্থানীয় সাংবাদিকরা।

ওসি আব্দুল মতিন জানান, ৪ জানুয়ারি (বুধবার) সাংবাদিক নাজমুল হাসান নাহিদ সহ সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনায় গত শনিবার রাতে থানায় একটি এজাহার দায়ের করা হয়। মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহত সাংবাদিক নাজমুল হাসান নাহিদ স্বাক্ষরিত এজাহারের পরিপ্রেক্ষিতে শনিবার রাতেই মামলা রেকর্ডভুক্ত করা হয়।

মামলার এজাহারে গুরুদাসপুর উপজেলা সদরের চাঁচকৈড় বাজারপাড়া এলাকার নাসির মোল্লার দুই ছেলে মোঃ নান্নু মোল্লা (৩৫) ও নহর মোল্লা (২০), জুয়েল রানা এবং মকিমপুরের মো. সুমনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ১০ জনকে আসামী করা হয়েছে। ১৪৩/৩২৩/৩২৫/৩০৭/১১৪ ধারা সহ পেনাল কোড ১৮৬০ বিধি অনুযায়ী মামলা রেকর্ডভুক্ত করে আসামীদের গ্রেপ্তারে পুলিশ শনিবার রাতেই অভিযানে নামে। রোববার ভোর রাতে পাশ্ববর্তী তাড়াশ উপজেলার মান্নাননগরের একটি পুকুর এলাকা থেকে মামলার তিন আসামি নহর মোল্লা , জুয়েল রানা,মো. সুমনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

তিনি আরও বলেন, গ্রেপ্তারকৃত তিন জনকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে মামলার প্রধান আসামীর অবস্থান জেনে তাকে গ্রেপ্তারে অভিযান চালানো হচ্ছে। খুব শিঘ্রই তাকে গ্রেফতার করা হবে বলে তিনি জানান।

উল্লেখ্য, গত ৪ জানুয়ারী দৈনিক সমকাল পত্রিকার গুরুদাসপুর প্রতিনিধি নাজমুল হাসান নাহিদ সহ গুরুদাসপুর উপজেলায় কর্মরত ১১ সাংবাদিক উপজেলার বিয়াঘাট ইউনিয়নের স্লুইস গেইট এলাকায় অবৈধভাবে পুকুর খনন ও এক্সেভেটর মেশিন (ভেকু) মেশিন জব্দ করার সংবাদ সংংগ্রহ করতে যান। সংবাদ সংগ্রহ শেষে ফেরার পথে অবৈধ পুকুর খননকারী এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী মাটি খেকো ও গুরুদাসপুর পৌর যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নান্নু মোল্লা তার বাহিনী নিয়ে সাংবাদিকদের ওপর চড়াও হয়ে মারপিট করে।

তারা সাংবাদিক নাজমুল হাস নাহিদকে রাস্তার ওপর ফেলে বেধড়ক মারপিট সহ বুকের ওপর উঠে লাথালথি করতে থাকে। এতে নাজমুল গুরুতর আহত হন। সন্ত্রাসীদের হামলায় সাংবাদিক নাজমুল হাসান নাহিদের বুকের দুটি হাড় ভেঙ্গে যায়। বর্তমানে সাংবাদিক নাজমুল রাজশাহী মেডিকেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এঘটনায় মামলা করতে গেলে পুলিশ নানা টালবাহানা করে। পরে শুক্রবার রাতে মামলাটি গ্রহন করে পুলিশ।

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
topউপরে