নতুন করে মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি পেলেন যারা

প্রকাশিত: জানুয়ারি ৮, ২০২৩; সময়: ১২:১৫ pm |
খবর > জাতীয়
নতুন করে মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি পেলেন যারা

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : প্রায় ৫ বছর পর অপেক্ষার পর চূড়ান্ত যাচাই-বাছাই শেষে ২১টি জেলার ৩৯২ জনকে বীর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। জামুকার ৮২তম সভায় তাদের স্বীকৃতির বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সম্প্রতি জামুকার এ সংক্রান্ত কার্যপত্র চূড়ান্ত অনুমোদন করেন মুক্তিযুদ্ধবিষয় মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।

বিভিন্ন তথ্য ও একাধিক সূত্রে জানা গেছে, ২০১৪ সালে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি পেতে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে ও সরাসরি আবেদন করেছিলেন প্রায় দেড় লাখ ব্যক্তি। দীর্ঘ অপেক্ষার পর প্রথম দফায় তাদের মধ্যে থেকে সাড়ে তেরশ ব্যক্তিকে ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারিতে মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি দেওয়া হয়। এরই ধারাবাহিকতায় এবার ৩৯২ জনকে স্বীকৃতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বীর মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি পেলেন যারা
মাদারীপুরের কালকিনি নির্মল চন্দ্র চন্দ, ছিদ্দিকুর রহমান, আব্দুল হক, সামসুল হক মাল, আতাউর রহমান, আ. রহিম, পরেশ চন্দ্র সরকার, আব্দুস সামাদ হাওলাদার, আ. মালেক তালুকদার, মালেক হাওলাদার, ইছাহাক সরদার, আবুল হোসেন মোলতা, মাখন লাল বেপারী, এসকান্দার সরদার, আবুল কাশেম ফকির, মৃত সৈয়দ আকবর আলী, সুধাংশু সরকার, মো. আব্দুল মান্নান, মীর হেমায়েত উদ্দিন, বোরহান উদ্দিন হাওলাদার, মো. নুরুল হক কাজী, আব্দুল রাজ্জাক হাওলাদার, মৃত মো. শাহজাহান আকন, মো. শাজাহান হাওলাদার, মো. মোতালেব হাওলাদার, মো. মোক্তার হোসেন মাতুব্বর, বাহদুর আজাহার বেপারী, কাজী দেলোয়ার হোসেন, অরুন মন্ডল, মো. গোলাম কিবরিয়া, আ. করিম চৌকিদার, আ. রহিম চৌকিদার, নেছার উদ্দিন চৌকিদার, মো. হারুন অর রশীদ মোলতা, ছায়াদুল হক, মনোহর ভক্ত, সেলিম খান ও সেকান্দার হওলাদার।

নরসিংদী সদরের জয়নাল, আনোয়ার হোসেন, নরসিংদীর শিবপুরের সাফিউদ্দিন সরকার, আলী আকরাম, সফিকুল ইসলাম, মৃত জাকির হোসেন ভূঞা, শামসুদ্দিন আহাম্মদ, রেফাত উলতাহ ভূইয়া, আসাদুজ্জামান, বেলাব উপজেলার আব্দুল আউয়াল ভূঞা, গিয়াস উদ্দিন,আতাহার আলী, হুমায়ুন কবীর, মনোহরদী উপজেলার তাজুল ইসলাম ভূইয়া, খোরশেদ উদ্দিন, আবদুল করিম, শামসুল ইসলাম, মৃত আবুল কাসেম, আক্রাম হোসেন, রমিজ উদ্দিন, রাজি উদ্দিন, আলফাজ উদ্দিন, আমিনুল হক (যাদু), পলাশ উপজেলার জাহানারা বেগম, রায়পুরা ফজলুল হক ও ফিরোজ আল মামুন।

টাঙ্গাইল সদরের আব্দুল হামিদ, আঃ মজিদ খান, মৃত আব্দুল জলিল মিয়া,আতাউর রহমান, এস এম রফিকুল ইসলাম, মোবারক আলী, রওশন আলী জোতদার, মহি উদ্দিন, মনছুর আলী সরকার, রুহুল আমীন খান (খোকন), জয়নাল আবেদিন, রফিকুল ইসলাম খান, মৃত আজাহার আলী শিকদার, মির্জাপুর উপজেলার লুৎফর রহমান, মজিবর রহমান খান, ইয়াছিন আলী মিঞা, মৃত মো. ইন্তাজ আলী মিয়া, হযরত আলী, তারাপদ সরকার, হামিদুল হক চান মিয়া, আঃ মজিদ সরকার, বাসাইল উপজেলার মজিবর রহমান, এমদাদুল হক খান বালা, মৃত মীর আফসার উদ্দিন, আবদুর রহমান, মহিউদ্দিন, নাজিম উদ্দিন মিয়া, খোরশেদ আলম খান, শাহজাহান খান, এরশাদুল হক (বুলবুল), লিয়াকত আলী খান, ইনছাদুর রহমান খান, আঃ মালেক মিয়া, কালিহাতী উপজেলার মোজহারুল ইসলাম তালুকদার, হাতেম আলী, হারুন-অর-রশিদ খান, আবু বকর সিদ্দিক, রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ, আবুল হোসেন, শফিকুল আলম, গোপালপুর উপজেলার মৃত শ্রী কৃষ্ণ প্রসাদ, আরিফুর রহমান খান, সখিপুর উপজেলার আঃ ছবুর ছোবান, কে বি এম রেজাউল করিম, হাবিবুর রহমান, ভূঞাপুর উপজেলার আঃ হাকিম, দেলদুয়ার উপজেলার নয়ান মিয়া ও নাগরপুর উপজেলার আরফান খান।

কিশোরগঞ্জ কুলিয়ারচর উপজেলার আজিজুল হক, মৃত সৈয়দ সামছূল আলম, শাহাব উদ্দিন, করিমগঞ্জ উপজেলার আঃ কাদির, হোসেনপুর উপজেলার এ কে এম মৌঃ আঃ রশিদ, বাজিতপুর উপজেলার মোহাম্মদ মকবুল আহম্মেদ, শাহাব উদ্দিন আহম্মদ, পাকুন্দিয়া উপজেলার মৃত ইমাম উদ্দীন, শহীদুলতাহ, শ্রী সুভাষ চন্দ্র বর্মন, গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার আব্দুল মজিদ, মোহাম্মদ আলী, জাহান পালোয়ান, ময়মনসিংহ সদরের শাহজাহান, ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার আঃ কদ্দুছ, তাহির উদ্দিন, ত্রিশাল উপজেলার আব্দুর রাজ্জাক, আতাউর রহমান, আহামদ আলী, খন্দকার মো. জুলফিকার, মৃত মনির উদ্দিন মন্ডল, শামছুদ্দিন সরকার, মীর মোশারফ হোসেন (বাবুল), মঞ্জুরুল হক, মকবুল হোসেন, কাজী আব্দুর রশিদ, গৌরীপুর উপজেলার ইদ্রিস আলী বেপারী ও এ কে এম শামছুল হক।

ফুলবাড়ীয়া উপজেলার মৃত মমতাজ উদ্দিন মন্ডল, মৃত নিতাই চন্দ্র দেবনাথ, ফজলুল হক চৌধুরী, কুতুব উদ্দিন, সুরুজ মিয়া, শেরপুর শ্রীবরদী উপজেলার আবু বক্কর, কেন্দুয়া উপজেলার শেখ সাইফুল হক, খালিয়াজুরীর রুস্তম আলী ও কলমাকান্দা উপজেলার মজিবুর রহমান।

জামালপুর মেলান্দহ উপজেলার মৃত আফছার উদ্দিন, মুহাম্মদ ছাদুল্যাহ, মিজানুর রহমান তালুকদার, নজরুল ইসলাম, শাহজাহান, সরিষাবাড়ী উপজেলার নজরুল ইসলাম তরফদার, মকবুল হোসেন, নুরুল ইসলাম, আন্দাল পারভেজ সিরাজী, চাঁদপুর সদর প্রান গোপাল সাহা, মো. আমীর আলী চৌধুরী, মো. শাহশাজান ভূইয়া, মৃত বজলুল গনি, আবিদ মিয়া, আনোয়ার হোসাইন চৌধুরী, আবু তাহের পাটওয়ারী, মোবারক হোসেন ঢালী, মৃত হাজী আঃ করিম খান, আব্দুল কাদের মাস্টার, জয়নাল বেপারী, অনিল চন্দ্র বসু, মুহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, এম এম সিদ্দিকুর রহমান, মনোরঞ্জন ঘোষ, শেখ মনির আহমেদ, কচুয়া উপজেলা ইবাদ উলতাহ, তাজুল ইসলাম, মতলব উত্তর মোবারক হোসেন ঢালী, আবুল খায়ের, আঃ ছোবহান, বিলতাল হোসেন, পানজত আলী, শাহজাহান মিয়া, মতলব দক্ষিণ আব্দুল ওহাব দেওয়ান, হাইমচরের মৃত হযরত আলী সরকার ও শ্রীবাস চন্দ্র মাঝি।

চট্টগ্রামের সাতকানিয়ার নুরুন্নবী, পরিমল বড়ুয়া, কবির আহম্মদ, দারুল ইসলাম, কাজল কান্তি দাস, শামশুল আলম, হরিপদ নাথ, বোয়ালখালীর মৃত ছৈয়দ দেলোয়ার হোসেন, জালাল আহমদ, কুমিলতা চান্দিনা মৃত আঃ খালেক, জাহাঙ্গীর আলম, মৃত বাদশা মিয়া, মনোমোহন কর্মকার, রাঙামাটির কাপ্তাইয়ের আব্দুর রহমান, আব্দুল মন্নান, মোহাম্মদ মুজিবুর রহমান, চট্টগ্রামের সন্‌দ্বীপের আব্দুল হান্নান চৌধুরী, নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের আবুল হাশেম, আবুল কালাম, এ টি এম আবুল কাশেম, আবু জাহের, সোনাইমুড়ির নিত্যানন্দ শীল, মজিবুল হক, বান্দারবানের আলীকদমের ছালামত উল্যাহ ও লামার আমির হোসাইন।

কক্সবাজারের চকোরিয়ার কবির আহমদ, নুরুল আবছার, মোজাম্মেল হক, এস এম সিরাজুল হক, কবির আহাম্মদ, আফজল আহমদ, মাহমুদুর রহমান, নুরুল ইসলাম, আমির হোসাইন, আহামদ কবির, রশিদ আহমদ, মরহুম মৌলভী খলিলূর রহমান, আব্দু শুক্কুর, কবির আহমদ, কক্সবাজার সদর সিরাজুল ইসলাম, টেকনাফ রশিদ আহমদ চৌধুরী, হাফেজ আহমেদ, নোয়খালী সদরের মৃত ডা. মুজিবর রহমান, আবদুল মন্নান, শফিক উলতাহ, সমীর রঞ্জন মজুমদার, ফজলুল হক, মো. জাফর, মৃত রুহুল আমিন, আবুল হাসেম, পেকুয়ার কবির আহমদ, নুরুল ইসলাম, নুরম্নল ইসলাম, মৃদুল সেন, মৃত এমদাদ মিয়া, সেকান্দার আলী, মোক্তার আহমদ, মোহাম্মদ হোছাইন, বদিউল আলম, শাহা আলম, রামু শামশুল আলম ও আবুল কালাম আজাদ।

নোয়াখালী চাটখিল মো. আবদুর রহমান, তোফায়েল আহম্মদ, বদু মিয়া, আবুল খায়ের, আ ব ম হুমায়ুন কবির, মৃত নুরুল আমিন, আবু বকর ছিদ্দিকী, কক্সবাজার উখিয়ার মোহাম্মদ সিকান্দর, মোহাম্মদ মোস্তফা, শাহ আলম চৌধুরী, কুমিলতা ব্রাক্ষ্মণপাড়ার আবু শাহের চৌধুরী, সজল চন্দ্র সরকার, আবদুল সামাদ, শাহ আলম, নাছির উদ্দিন, মৃত আবুল কাশেম, আব্দুল মবিন, সুলতান আহাম্মেদ, বজলুর রহমান ভূঁইয়া, বিপুল বিহারী নন্দী, বুড়িচং উপজেলা মৃত আবদুল ওয়াদুদ, বিষ্ণু কুমার ভট্টাচায্য, কুমিলতা মরহুম তাজুল ইসলাম, শমসের আলী ভূইয়া, এ কে এম মিজানুর রহমান ভূইঁয়া, কুমিলতা বরুড়া কুঞ্জ মোহন দাস, জিতেন্দ্র চন্দ্র ভৌমিক, চৌদ্দগ্রাম আলী আকবর, লুৎফুর রহমান, কুমিলতা মাস্টার আলী আজম মজু, শিবপদ চক্রবর্তী, মোস্তাফিজুর রহমান, দাউদকান্দি মোবারক হোসেন, লাকসাম আবদুর রহমান, তিতাস ছাদেক মিয়া, মৃত আব্দুল জলিল, রফিকুল ইসলাম, মহসিন আলী, কবির আহমেদ, ফারুক হোসেন, মোশাররফ হোসেন খাঁন, মেঘনার মো. বারেক, দেবিদ্বারের নুরুল ইসলাম সরকার ও রমিজ উদ্দিন।

ফেনী সদরের মোহাম্মদ রফিক, আলী আহম্মদ মতিন, মো. ইদ্রিস, ফেনী ফুলগাজী উপজেলার মোস্তফা আজিজ মনসুর, লক্ষ্মীপুর রামগতি ফরিদ উদ্দিন, চন্দনাইশ সাইফুদ্দীন ফারুকী, কক্সবাজার মহেশখালী সালেহ আহমদ সামাদ, নাজির আহমদ, আক্যমং, পটিয়া নুর মোহাম্মদ, মৃত মো. ওমর, মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম, মৃত নেছার আহম্মদ, সুলতান মাহমুদ, মৃত যাদব চন্দ্র নাথ, মো. ফারুক আহম্মেদ, এখলাছুর রহমান, নিধুরাম নাথ, হিমাংশু বিমল নাথ, সুজিত নাথ, মো. আবু তাহের তালুকদার, আব্দুস ছালাম, মো. আবুল কাশেম, মো. আশরাফুজ্জামান, মিলন কুমার দেব, কৃষ্ণ মোহন নাথ, চট্টগ্রাম মীরসরাই ইছাখালীর মোকছদ আহম্মদ ও শেখের তালুক মো. আবু তাহের চৌধুরী।

নওগাঁ মান্দা কালীগ্রাম মো. নূরুল আমীন প্রাং, বদ্দপুর মো. খোরশেদ আলম, বদ্দপুর, মো. মুনছুর আলী মন্ডল, কেঁচড়া, মৃত আদির উদ্দিন, পাকুরিয়া মো. কছিমুদ্দিন, তুলশীরাম পুর মো. সিরাজুল ইসলাম, খাগড়া, মো. হুজুর আলী, খুদিয়াভাঙ্গা, মো. খয়রুল আলম প্রাং, বড়কালিপুর মো. আবুল সরদার, নওগাঁ আত্রাই পতিসর মো. খলিলুর রহমান, হিসাবদিনগর প্রভাস চন্দ্র সরকার, মির্জাপুর মৃত নূরুন্নবী মোলতা, বড় কালিকাপুর মো. নজরুল ইসলাম, কাঁশ্যব পাড়া, আবুল কালাম আজাদ, সাহেবগঞ্জ মো. আকবর আলী, দর্শনগ্রাম রাধাকান্ত প্রামানিক, পাঁচুপুর সুশীল চন্দ্র সরকার, মদনডাঙ্গা, মো. আব্দুস সামাদ সরদার, তাড়াটিয়া কাজী জালাল উদ্দীন, বড়সাঁওতা মৃত এ কে আজাদ, রসুলপুর মো. সাঈদুর রহমান, সাহেবগঞ্জ মো. আলাউদ্দীন সরদার, পতিসর মো. হারেজ আলী সরদার, বান্দাইখাড়া মো. আজিজার রহমান সরদার, কয়েড়া মো. আব্দুল জব্বার মন্ডল ও সাহেবগঞ্জ শশাঙ্ক চন্দ্র পাল।

দিনাজপুর ফুলবাড়ী কাটাবাড়ী মো. জহরুল হক, মো. রফিকুল ইসলাম, বীরগঞ্জ সুজালপুর মুহম্মদ নূরুল ইসলাম, ভোলা তজুমদ্দিন কেয়ামূলতা এ কে এম ফয়েজউলতাহ (রতন), শায়েস্থাকান্দি নারায়ণ চন্দ্র দাস, কোড়ালমারা মো. নেজামুল হক হাওলাদার, কাজিকান্দি মো. ইসমাইল, চরফ্যাশন কুলসুমবাগ মো. নাছির আহাম্মদ, আবুকরপুর মৃত মোহাম্মদ শাহানুর আলম (শামছুল আলম), ১ নম্বর ওয়ার্ড মো. মোস্তাক আহমেদ, উত্তর মাদ্রাজ মো. হোসেন, উত্তর চর আইচা আব্দুর রহমান, কুলছুমবাগ মো. জসিম উদ্দিন, কুলছুমবাগ মো. বেলতাল মিয়া, মো. মফিজুর রহমান, হাজারীগঞ্জ মো. বেলায়েত হোসেন, আলীগাঁও, মো. আলতাফ হোসেন সিকদার, মো. সামছুল আলম, হাসানগঞ্জ নরুল হুদা, কচুয়াখালী মো. সাদেক, শরফুল উদ্দিন হাওলাদার, আঃ ওহাব, আলী আহাম্মদ, মৃত সেকেন্দার মিয়া, আব্দুল সহিদ মিয়া, আবু তাহের, জহর লাল দাস, নূর হোসেন, জয়নাল আবেদীন, দেলোয়ার হোসেন হাওলাদার ও আবদুল মোতালেব।

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, দেশে এখন গেজেটভুক্ত মুক্তিযোদ্ধার সংখ্যা ১ লাখ ৯৮ হাজার ৮৭৩ জন। এরমধ্যে বিভিন্ন বাহিনীসহ শহীদ মুক্তিযোদ্ধা ৬ হাজার ৩৯৯ জন। মুক্তিযোদ্ধা ভাতাভোগী মুক্তিযোদ্ধা ও তার পরিবারের সংখ্যা ২ লাখ ৩০ হাজার ৪২৪। মুক্তিযোদ্ধারা মাসে ২০ হাজার টাকা ভাতা পেয়ে থাকেন।

এছাড়াও উৎসব ভাতা, চিকিৎসা ভাতাসহ বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে ১২ রকমের সুবিধা পাচ্ছেন তারা। অন্যদিকে বিশেষ ক্যাটাগরিতে খেতাবপ্রাপ্ত, যুদ্ধাহত ও শহীদ ১ লাখ ১ হাজার ৯৯৮ জন সর্বনিম্ন ২৫ হাজার থেকে ৪৫ হাজার টাকা পর্যন্ত ভাতা পেয়ে আসছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
topউপরে