শৈত্যপ্রবাহ আরো বাড়বে, জেনে নিন দেশের কোথায় কত তাপমাত্রা

প্রকাশিত: জানুয়ারি ৭, ২০২৩; সময়: ৪:২৭ pm |
শৈত্যপ্রবাহ আরো বাড়বে, জেনে নিন দেশের কোথায় কত তাপমাত্রা

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : পৌষ মাসের শেষ প্রান্তে শীতের প্রকোপে জবুথবু দেশের মোটামুটি প্রায় সব জনপদ। শীতে বিপর্যস্ত জনজীবনে সবচেয়ে বেশি ভোগান্তি হচ্ছে খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষের। এ অবস্থায় বয়ে চলা মৃদু শৈত্যপ্রবাহ আরো বাড়বে বলে খবর দিচ্ছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

রবিরার সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘন্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, সারাদেশে দিন ও রাতের তাপমাত্রা সামান্য বাড়তে পারে। তাপমাত্রা কমে যাওয়ায় মাঝারী থেকে তীব্র শীতের অনুভূতি থাকতে পারে।

আবহাওয়া অফিস বলছে, ফরিদপুর, মাদারীপুর, কিশোরগঞ্জ, দিনাজপুর, নীলফামারী, পঞ্চগড়, যশোর, চুয়াডাঙ্গা, কুষ্টিয়া, সাতক্ষীরা ও বরিশাল জেলাসহ রাজশাহী বিভাগের উপর দিয়ে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে।

মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত মাঝারী থেকে ঘন কুয়াশা পড়তে পারে। এটি দেশের কোথাও কোথাও দুপুর পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে। শনিবার দুপুর দুইটার দিকেও রাজধানী ঢাকা ছিল অনেকটাই কুয়াশাচ্ছন্ন।

এদিকে গতকাল শুক্রবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২৬ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিনয়াস রেকর্ড হয়েছে কক্সবাজারের টেকনাফে। আর শনিবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে চুয়াডাঙ্গায় ৮ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

চুয়াডাঙ্গা আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রকিবুল হাসান বলেন, ‘এটি চলতি মৌসুমে চুয়াডাঙ্গার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা। এ নিয়ে চলতি মাসে দুদিন দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে এই জেলায়।’

কোথায় কত তাপমাত্রা:

ঢাকা বিভাগের ঢাকায় ১১ দশমিক ৫ ডিগ্রি; টাঙ্গাইল ১১ ডিগ্রি; ফরিদপুর ৯ দশমিক ৫ ডিগ্রি; মাদারীপুর ৯ ডিগ্রি; গোপালগঞ্জ ১০ দশমিক ৮ ডিগ্রি; কিশোরগঞ্জ ৯ দশমিক ৮ ডিগ্রি।

রাজশাহী বিভাগের রাজশাহীতে ৯ দশমিক ১ ডিগ্রি; পাবনার ঈশ্বরদীতে ৯ দশমিক ৪ ডিগ্রি; বগুড়ায় ১০ দশমিক ২ ডিগ্রি; নওগাঁর বদলগাছী ৯ দশমিক ৫ ডিগ্রি; সিরাজগঞ্জের তাড়াশে ১০ ডিগ্রি।

রংপুর বিভাগের রংপুরে ১০ দশমিক ৫ ডিগ্রি; দিনাজপুরে ৯ দশমিক ৪ ডিগ্রি; নীলফামারীর সৈয়দপুরে ৯ দশমিক ৬ ডিগ্রি; পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ৯ দশমিক ৫ ডিগ্রি; নীলফামারীর ডিমলায় ১০ ডিগ্রি; রাজারহাটে ১০ দশমিক ৫ ডিগ্রি।

ময়মনসিংহ বিভাগের ময়মনসিংহে ১০ দশমিক ৯ ডিগ্রি; নেত্রকোনায় ১১ দশমিক ৩ ডিগ্রি।

সিলেট বিভাগের সিলেটে ১৫ ডিগ্রি; শ্রীমঙ্গলে ১৩ দশমিক ৬ ডিগ্রি।

চট্টগ্রাম বিভাগের চট্টগ্রামে ১৪ ডিগ্রি, সন্দ্বীপে ১৪ দশমিক ৩ ডিগ্রি; সীতাকুণ্ডে ১৪ ডিগ্রি; কক্সবাজারে ১৫ দশমিক ৮ ডিগ্রি; কুতুবদিয়ায় ১৪ দশমিক ২ ডিগ্রি; টেকনাফে ১৫ দশমিক ৭ ডিগ্রি।

কুমিল্লায় ১৩ ডিগ্রি; চাঁদপুরে ১২ দশমিক ৫ ডিগ্রি, নোয়াখালীর মাইজদীকোর্টে ১৪ ডিগ্রি, ফেনীতে ১৩ ডিগ্রি; নোয়াখালীর হাতিয়ায় ১৪ দশমিক ৫ ডিগ্রি।

খুলনা বিভাগের খুলনায় ১০ দশমিক ৫ ডিগ্রি; মংলায় ১০ দশমিক ৮ ডিগ্রি; সাতক্ষীরায় ৯ দশমিক ৮ ডিগ্রি; যশোরে ৮ দশমিক ৬ ডিগ্রি; চুয়াডাঙ্গায় ৮ দশমিক ৪ ডিগ্রি; কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ৯ দশমিক ৩ ডিগ্রি।

বরিশাল বিভাগের বরিশালের ৯ দশমিক ৫ ডিগ্রি, পটুয়াখালী ১২ ডিগ্রি, পটুয়াখালীতে খেপুপাড়া ১২ দশমিক ৩ ডিগ্রি; ভোলা ১১ ডিগ্রি।

আবহাওয়া অফিসের তাপমাত্রার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, সারাদেশে রাতের এবং দিনের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে। দিন ও রাতের তাপমাত্রা পার্থক্য কমে যাওয়ার কারণে সারাদেশে মাঝারি থেকে তীব্র শীতের অনুভূতি থাকতে পারে। এছাড়া পরবর্তী ৭২ ঘণ্টার শেষের দিকে তাপমাত্রা হ্রাস পেতে পারে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
topউপরে