তানোরে খাস জমি রক্ষার দাবিতে মানববন্ধনে পল্লীর ভুমিহীনরা

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ২৪, ২০২২; সময়: ৯:৩৮ am |
তানোরে খাস জমি রক্ষার দাবিতে মানববন্ধনে পল্লীর ভুমিহীনরা

নিজস্ব প্রতিবেদক, তানোর : রাজশাহীর তানোরে ভুমিহীন পল্লীর খাস জমি রক্ষার দাবিসহ খাস জমি থেকে উচ্ছেদ হওয়া আদিবাসী ভুমিহীনদের পূর্বাসন ও প্রান্তিক কৃষকরে গমের জমিতে সেচ প্রদানের দাবিতে মানববন্ধন কর্মসুচী পালন করেছে কৃষ্ণপুর কামার পাড়ার ভুমিহীন পল্লীর ভুমিহীনরা।  শুক্রকার বিকাল ৩ টার দিকে পাঁচন্দর ইউনিয়ন পরিষদের সামনের রাস্তায় বিভিন্ন স্লোগান সম্বলিত ফেস্টুন হাতে এ মানববন্ধন করেন কৃষ্ণপুর এলাকার ভুমিহীনরা।

বে-সরকারী সংস্থা রোলফাও এর সহায়তায় প্রায় ঘন্টাব্যাপি চলা মানববন্ধনে অংশ গ্রহনকারী ভুমিহীন পল্লীর সকল বয়সী নারী-পুরুষরা বলেন, গত ৬ মাস আগে কৃষ্ণপুর স্কুল পাড়ায় খাস জমি থেকে আদালত কর্তৃক উচ্ছেদ হওয়া ভুমিহীনরা বর্তমানে গ্রামের গ্রামের বিভিন্ন মানুষের বাড়ির পার্শ্বে আশ্রীত হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন তারা পূর্নবাসনের দাবি জানান।

অপর দিকে কামারপাড়ার খাস জমিতে বসবাসরত ভুমিহীন পল্লীর জায়গা দখলে নিতে অধ্যক্ষ আতাউর রহমানের অব্যাহত হুমকির মুখে তারা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। তারা ভুমিহীনরা তাদের নিরা পত্তা ও খাস জমিগুলো ভুমিহীনদের মধ্যে বন্দবস্ত দেয়ার দাবিসহ খাস জমি রক্ষার দাবিও জানান তারা।

এছাড়াও পানির অভাবে মরতে বসা প্রান্তিক কৃষক আব্দুল গনির গমের জমিতে সেচ প্রদান করে গম রক্ষার দাবিও জানান মানববন্ধনে অংশ নেয়া ভুমিহীনরা। ভুমিহীনরা অভিযোগ করে বলেন, খাস জমি থেকে উচ্ছেদ হওয়ার হওয়ার দীর্ঘদিনেও ভুমিহীনদের পুর্নবাসন করার কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি।

খাস জমি দখলে নিতে ভুমিহীন পল্লীতে হামলা ভাংচুর মারপিটের ঘটনায় কোন প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। ফলে প্রভাবশালীরা দফায় দফায় ভুরিভোজ করে গ্রামের মানুষের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি করে অব্যহত হুমকি প্রদান করছেন। ফলে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন ভুমিহীন পল্লীর আদিবাসী ও বিভিন্ন সম্প্রদায়ের ভুমিহীনরা।

একই সাথে গমের জমিতে সেচের জন্য সরকারের সংশ্লষ্ট দপ্তরে আবেদন করেও জমিতে সেচের পানি পাননি কৃষক আব্দুল গনি। এসব বিষয়ে উর্ধতন কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি ও হস্তক্ষেপ কামনায় তারা এ মানববন্ধন করেন বলেও জানান ভুমিহীনরা।

তানোর উপজেলা নির্বাহী অফিসার পংকজ চন্দ্র দেবনাথ বলেন, আদালত কর্তৃক উচ্ছেদ হওয়া ভুমিহীনদের পুর্নবাসনের জন্য এলাকায় খাস জমি খোজা হচ্ছে এবং তাদেরকে পুর্নবাসন চেষ্টা করা হবে। ভুমিহীন পল্লীর খাস জমি কাউকে জবর দখলে নিতে দেয়া হবেনা।

তিনি বলেন, জমিতে সেচের জন্য বরেন্দ্র কর্তৃপক্ষকে চিঠি দিয়ে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। জমিতে সেচ না দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। তানোর তানার অফিসার ইনচার্জ ওসি কামরুজ্জামান মিয়া বলেন, আইনশৃংখলার বিঘ্ন ঘটানোর চেষ্টা করা হলে আইনগত ব্যবস্তা নেয়া নেয়া।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
topউপরে