বিএনপির ছেড়ে দেওয়া আসনে সিসি ক্যামেরা নিয়ে সংশয়ে ইসি

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ১৯, ২০২২; সময়: ৩:২৫ pm |
বিএনপির ছেড়ে দেওয়া আসনে সিসি ক্যামেরা নিয়ে সংশয়ে ইসি

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : বিএনপির সংসদ সদস্যদের পদত্যাগ করার কারণে শূন্য হওয়া আসনগুলোতে উপনির্বাচনে সিসি ক্যামেরা ব্যবহার নিয়ে সংশয়ে আছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

সোমবার (১৯ ডিসেম্বর) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন কমিশন (ইসি) ভবনে সাংবাদিকদের এই তথ্য দেন নির্বাচন কমিশনার (ইসি) মো. আলমগীর।

এই নির্বাচন কমিশনার বলেন, ‘সিসি ক্যামেরা ব্যবহার কোনো সল্যুশন নয়। এটা আইসিইউতে থাকার মতো। বিএনপির এমপিরা পদত্যাগ করবেন এবং এই পাঁচটি আসন শূন্য হবে এটা অপ্রত্যাশিত ছিল। তাছাড়া এ বিষয়ে বাজেটও ধরা হয়নি।’

অনেকদিন ধরে দলের মধ্যে বিএনপির সাত সংসদ সদস্যদের সংসদে থাকা নিয়ে আলোচনা ছিল। তারা পদত্যাগ করতে পারেন এমন আলোচনা থাকলেও খুব জোরাল ছিল না।

গত ১০ ডিসেম্বর ঢাকার সমাবেশ থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দেন বিএনপির সংসদ সদস্যরা। ঘোষণার পরদিন (১১ ডিসেম্বর) সংসদে বিএনপির ছয়জন সংসদ সদস্য স্পিকারের কাছে পদত্যাগপত্র জমা দেন। কিন্তু দেশের বাইরে থাকায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য হারুন অর রশীদের পদত্যাগ করতে পারেননি। তবে তিনি পদত্যাগপত্রে স্বাক্ষর করে গেছেন বলে দাবি করেছেন বিএনপির পদত্যাগ করা সংসদ সদস্যরা।

পদত্যাগ করার পর এসব সংসদীয় আসন শূন্য ঘোষণা করে গেজেট প্রকাশ করে সংসদ সচিবালয়। এরপর এসব আসনে ভোটগ্রহণের জন্য গতকাল তফসিল ঘোষণা করা হয়।

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, আগামী ১ ফেব্রুয়ারি শূন্য পাঁচ আসনে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। আসনগুলো হলো- চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২, বগুড়া-৪, বগুড়া–৬, ঠাকুরগাঁও-৩, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২।

বিএনপির এমপিদের ছেড়ে দেওয়া আসনগুলো সিসি ক্যামেরা বসানো নিয়ে সংশয়ের কথা জানিয়ে নির্বাচন কমিশনার আলমগীর বলেন, ‘অনেক নির্বাচনে সিসি ক্যামেরা ছিল না। তবুও কোনো অঘটন ঘটেনি। এবার নির্বাচনে প্রতিযোগিতা হবে। এতে ব্যালেন্সও হবে। ফলে এই উপ-নির্বাচনে সিসি ক্যামেরা লাগবে না।’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
topউপরে