ভোটযুদ্ধের মাধ্যমেই জাতীয় পার্টি দেশে গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত রেখেছে: রওশন এরশাদ

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ১৭, ২০২২; সময়: ২:৪৪ pm |
ভোটযুদ্ধের মাধ্যমেই জাতীয় পার্টি দেশে গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত রেখেছে: রওশন এরশাদ

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা ও জাতীয় পার্টির প্রধান পৃষ্ঠপোষক বেগম রওশন এরশাদ বলেছেন, সাবেক রাষ্ট্রপতি এইচ এম এরশাদ গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত রাখতেই ক্ষমতা ছেড়ে সবার অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন নিশ্চিত করেছিলেন। কিন্তু সেদিন তাঁর দল জাতীয় পার্টিকে লেভেল প্লেইং ফিল্ডে নির্বাচন করতে দেয়া হয়নি। পার্টির শীর্ষনেতা নেতাসহ হাজার হাজার নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা দেয়া হয়েছিল। জ্বালিয়ে দেয়া হয়েছিল অনেকের ঘরবাড়ি। তিনি বলেন, সেই থেকেই দেশে প্রতিহিংসার রাজনীতির শুরু হয়।

শনিবার রাজধানীর গুলশানে বিরোধী দলীয় নেতার রাজনৈতিক কার্যালয়ে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে তিনি এসব কথা বলেন।

রওশন এরশাদ বলেন, তাঁর দল সব সময় নির্বাচনমূখি রাজনীতি বিশ্বাস করে। সে কারণেই দেশের সব ক্রান্তিকালেও জাতীয় পার্টি নির্বাচনে অংশ নেয়, আগামীতেও অনুষ্ঠেয় সব নির্বাচনে তাঁর দল অংশ নেবে বলে জানান বিরোধী দলীয় নেতা। তাই নেতাকর্মীদের সব বিভ্রান্তি ও ভেদাভেদ ভুলে দলীয় ঐক্য বজায় রেখে পার্টিকে শক্তিশালী করার আহবানও জানান বেগম রওশন এরশাদ।
পার্টির সিনিয়র নেতা ও সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন খানের সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংসদের বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ মশিউর রহমান রাঙ্গা।

এতে আরো বক্তব্য রাখেন বিরোধী দলীয় নেতার রাজনৈতিক সচিব গোলাম মসীহ্, সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী গোলাম সারোয়ার মিলন, পার্টির সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য এসএমএম আলম, প্রেসিডিয়াম সদস্য ক্বারী হাবিবুল্লাহ বেলালী, সাবেক রাষ্ট্রপতির ছাত্র ও শিক্ষা বিষয়ক উপদেষ্টা রফিকুল হক হাফিজ, সাবেক এমপি এমএ গোফরান, জাতীয় পার্টি ও বিরোধী দলীয় নেতার মূখপাত্র কাজী মামুনূর রশীদ, সাবেক এমপি অ্যাডভোকেট জিয়াউল হক মৃধা, সাবেক এমপি ইঞ্জিনিয়ার মামুনূর রশীদ, সাবেক এমপি নূরুল ইসলাম মিলন, কেন্দ্রীয় নেতা নূরুল আনোয়ার বেলাল, দলের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক ইকবাল হোসেন রাজু, সাবেক ছাত্র নেতা খন্দকার মনিরুজ্জামান টিটু, কেন্দ্রীয় জাপা নেতা জহির উদ্দিন জহির, মহিলা পার্টি নেত্রী মনোয়ারা তাহের মানু, শারমিন পারভিন লিজা, হাসনা হেনা, শেখ রুনা ও জাতীয় ছাত্র সমাজের সদস্য সচিব আবু সাঈদ লিয়ন প্রমূখ।

এদিকে দু’জনকে কেন্দ্রীয় আহ্বায়ক কমিটির যুগ্ম আহবায়ক ও দু’জনকে কেন্দ্রীয় সদস্য করা হয়েছে। এরা হলেন সাবেক প্রতিমন্ত্রী গোলাম সারোয়ার মিলন, সাবেক রাষ্ট্রপতির উপদেষ্টা রফিকুল হক হাফিজকে যুগ্ম আহ্বায়ক করা হয়েছে। আর অ্যাড. জাহিদ হাসান খান বিপুল ও নূরে হাফসাকে কেন্দ্রীয় সদস্য করা হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
topউপরে