তিনশ’র কাঁচা মরিচ এখন ৩০ টাকা

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ২, ২০২২; সময়: ১১:৪৪ am |
তিনশ’র কাঁচা মরিচ এখন ৩০ টাকা

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : রাজধানীতে মাস তিনেক আগেও যে কাঁচা মরিচ ৩০০ টাকা কেজিতে বিক্রি হয়েছিল সেই মরিচের দাম এখন মাত্র ৩০ টাকা। রাজধানীর বাইরে দাম আরও কম। তাও আবার ডেকে ডেকে কাঁচা মরিচ বিক্রি করছেন বিক্রেতারা। যেখানে কয়েক মাস আগে মানুষ একশ গ্রাম মরিচ কিনতে পারত না সেখানে এখন দোকানিরাই জোর করে এক কেজি মরিচ দিয়ে দিচ্ছেন।

গেল সপ্তাহ জুড়েই কাঁচা মরিচের এ দাম লক্ষ্য করা গেছে। শুক্রবার রাজধানীর মুগদা এলাকায় দেখা গেছে ভ্যানে করে মরিচের বিশাল পসরা সাজিয়ে বসেছেন এক বিক্রেতা। হাক ডাক দিচ্ছেন ‘এক কেজি ৩০ বলে।’ তবে যেটা একটু দেখতে ভালো সেটা ৪০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।

এই বিক্রেতা বলেন, ‘এখন আড়তে প্রচুর কাঁচা মরিচ। দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে মরিচ আসতেছে। ফলনও হয়েছে ভালো। তাই মরিচের দাম কম। কম দামে পেলে আমাদের দিতে সমস্যা নাই।’ কম দামে মরিচ কিনতে পেরে খুশি ক্রেতারাও। এক ক্রেতা বলেন, ‘কিছুদিন আগে মরিচের কেজি ছিল ২০০-৩০০ টাকা। তখন আধা পোয়া-এক পোয়াই কেনা যেত না। এখন তারাই জোর করে এক কেজি মরিচ দিয়ে দিচ্ছে।’

এদিকে ঢাকার বাইরে কাঁচা মরিচের দাম আরও সস্তা। জানা গেছে, কোনো কোনো এলাকায় কাঁচা মরিচের দাম প্রতি কেজি ১৫-২০ টাকায় নেমে এসেছে। দিনাজপুর, রাজশাহী, খুলনা, মেহেরপুরসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় কাঁচামরিচ বিক্রি হচ্ছে ১৫-২০ টাকা কেজিতে। পাইকারিতে দাম আরও কম। প্রতি মণ বিক্রি হচ্ছে ৩০০-৪০০ টাকা।

মরিচ চাষীরা বলছেন, ঝড় বৃষ্টি না হওয়ায় মরিচের ফলন খুবই ভালো হয়েছে। কিন্তু দাম পাওয়া যাচ্ছে না। ব্যাপারীরা প্রতি মণ মরিচ মাঠ থেকে সাড়ে ৩শ’ থেকে ৩৭০ টাকায় কিনে নিয়ে যাচ্ছেন। ফলনের প্রথম দিকে চাষিদের লাভ হলেও এখন সবাই লোকসানে রয়েছেন।

এর আগে, গেল আগস্ট মাসের দিকে কাঁচা মরিচ বিক্রি হয় প্রতি কেজি ২০০-৩০০ টাকায়। তখন ভারত থেকে মরিচ আমনাদির সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। আগস্টের প্রথম সপ্তাহে ভারতের কোচবিহার থেকে কাঁচা মরিচ আমদানি করেন বাংলাদেশের আমদানিকারকরা।

তখন দীর্ঘ ৯ মাস বন্ধ থাকার পর ভারত থেকে কাঁচা মরিচ আমদানি শুরু হয়। দিনাজপুরের হাকিমপুর উপজেলার হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি হওয়া কাঁচা মরিচের প্রতি কেজিতে শুল্ক দিতে হয় ২৮ টাকা। তার পর থেকেই দেশের বাজারেও দাম কমতে শুরু করে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
topউপরে