বাঘা পৌর নির্বাচন ঘিরে মেয়র প্রার্থীদের দৌড়ঝাঁপ

প্রকাশিত: নভেম্বর ২০, ২০২২; সময়: ২:৪৮ pm |
বাঘা পৌর নির্বাচন ঘিরে মেয়র প্রার্থীদের দৌড়ঝাঁপ

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাঘা  : আগামী ২৯ ডিসেম্বর রাজশাহীর বাঘা পৌরসভা নির্বাচন ঘিরে মেয়র পদে অংশ নিতে এরই মধ্যে মাঠে নেমেছেন ডজনেরও বেশি প্রার্থী। বর্তমানে মেয়র পদে রয়েছেন বিএনপি নেতা আব্দুর রাজ্জাক। তাঁর বিরুদ্ধে পৌরসভার আর্থিক অনিয়মের অভিযোগ তদন্ত করছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

এদিকে ডজন খানেক প্রার্থীর প্রচারণায় অংশ নেওয়ায় এরই মধ্যে বাঘা পৌর এলাকাজুড়ে নির্বাচনী আমেজ তৈরি হয়েছে। তবে সবচেয়ে বেশি আলোচনা হচ্ছে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিয়ে। এগিয়ে থাকা প্রার্থীদের মধ্যে আওয়ামী লীগেরই রয়েছেন আটজন। এছাড়া বিএনপির তিনজন, জামায়াত ও জাতীয় পার্টির একজন করে প্রার্থী প্রচারণা চালাচ্ছেন।

বাঘা পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে দৌড়ঝাঁপ করেছেন বাঘা পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মামুন হোসেন, বাঘা পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল কুদ্দুস সরকার, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আমানুল হাসান দুদু, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও সাবেক মেয়র আক্কাছ আলী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম বাবুল, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও প্যানেল মেয়র শাহিনুর রহমান পিন্টু, সাধারণ সম্পাদক মামুন হোসেন, উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফাতেমা মাসুদ লতা ও উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সুরুজ্জামান সুরুজ। তবে তাঁদের মধ্যে অনেকেই বিতর্কিত।

কেউ কেউ গণমাধ্যমের খবরের শিরোনামও হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি আলোচিত ব্যক্তি হলেন সাবেক পৌর মেয়র ও আওয়ামী লীগ নেতা আক্কাছ আলী। তিনি শেখ হাসিনাকেও একবার কালো পতাকা প্রদর্শন করেছিলেন। নারীকে মারধর, সরকারি কর্মচারীকে মারধরসহ বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে তাঁর নামে একাধিক মামলা হয়েছিল। সম্প্রতি কাউন্সিলে হামলার অভিযোগে আক্কাছ আলীর দলীয় পদ থেকে অব্যাহতির সুপারিশ করেছে জেলা আওয়ামী লীগ।

এদিকে বর্তমান সরকারের অধীনে বিএনপি নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার ঘোষণা দিলেও বাঘা পৌর নির্বাচনে অংশ নিতে তিনজন নেতা প্রচারণা চালাচ্ছেন। তাঁদের মধ্যে রয়েছেন বর্তমান মেয়র ও বিএনপি নেতা আব্দুর রাজ্জাক, বাঘা পৌর বিএনপির সভাপতি কামাল হোসেন ও উপজেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি আবদুল্লাহ আল মামুন।

এদিকে মনোনয়ন পাওয়ার আশা প্রকাশ করে মামুন হোসেন বলেন, ‘দীর্ঘদিন থেকে আওয়ামী লীগের রাজনীতি করে আসছি। কখনো দলের সঙ্গে বেঈমানি করিনি।’

আক্কাছ আলী বলেন, ‘আমাকে নিয়ে অনেক ষড়যন্ত্র হয়েছে। এখনো হচ্ছে। তার পরও আমিই আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাব বলে আশা রাখি। বাঘার তৃণমূলের নেতাকর্মীদের আমার প্রতি আস্থা আছে।’

বাঘা পৌর বিএনপির সভাপতি কামাল হোসেন বলেন, ‘বিএনপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছে না। তবে এর মধ্যেও যদি আমাকে ভেতরে ভেতরে সমর্থন দেওয়া হয়, তাহলে নির্বাচনে অংশ নিতে আগ্রহী।’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
topউপরে