খেরসনের দখল নিলেও আতঙ্কে ইউক্রেন বাহিনী

প্রকাশিত: নভেম্বর ১৫, ২০২২; সময়: ১০:২৩ am |
খেরসনের দখল নিলেও আতঙ্কে ইউক্রেন বাহিনী

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : রাশিয়ানিয়ন্ত্রিত ডিনিপ্রো নদীর বিপরীত পাশে ঘাঁটি স্থাপন করেছেন রুশ সেনারা। রাশিয়া গোলাবর্ষণ শুরু করতে পারে বলে আতঙ্কে রয়েছে ইউক্রেনীয় বাহিনী।

খেরসনের কর্মকর্তারা ১৩ থেকে ১৯ নভেম্বর পর্যন্ত ডিনিপ্রো নদীতে পরিবহণ চলাচল নিষিদ্ধ করেছেন। রাশিয়ার ফেলে যাওয়া বিস্ফোরক এ অঞ্চলে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রয়েছে এবং যারা ওই এলাকা ছেড়ে পালিয়ে গিয়েছিলেন তাদের বাড়িঘরে মাইন বা কোনো ফাঁদ আছে কিনা তা পরীক্ষা শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাদের বাড়ি ফিরে না আসার জন্য সতর্ক করা হয়েছে।

খেরসনের গভর্নর ইয়ারোস্লাভ ইয়ানুশেভিচ নাগরিকদের জনাকীর্ণ স্থান এড়িয়ে চলতে বলেছেন এবং সোমবার শহরের কেন্দ্রস্থল থেকে দূরে থাকতে বলেছেন। কারণ সামরিক বাহিনী সেখানে মাইন চিহ্নিত করে তা নিষ্ক্রিয় করার জন্য কাজ করবে। সেখানে সোমবার বিকাল ৫টা থেকে মঙ্গলবার সকাল ৫টা পর্যন্ত কারফিউ বলবত থাকবে।

এদিকে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি সোমবার খেরসন সফরে গিয়ে বলেছেন, ইউক্রেনের পক্ষ শান্তির জন্য প্রস্তুত। ‘আমরা শান্তির জন্য প্রস্তুত, আমাদের সব দেশের জন্য শান্তি।

ইউক্রেনীয় নেতা এর আগে বলেছিলেন, কিয়েভ প্রয়োজনীয় মাইন-সুইপিংয়ের কারণে সাংবাদিকদের খেরসনে যেতে দিতে চায় না।

গত ৯ নভেম্বর রাশিয়ান প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু স্পেশাল মিলিটারি অপারেশন জোনে যৌথ বাহিনীর কমান্ডার সের্গেই সুরোভিকিনের প্রস্তাবে ডিনিপারের ডান তীর থেকে রুশ বাহিনীকে প্রত্যাহার করার নির্দেশ দেন।

সামরিক কর্মকর্তা জোর দিয়ে বলেছিলেন, রুশ বাহিনী সফলভাবে ইউক্রেনীয় আক্রমণ প্রতিহত করছে এবং কাখোভস্কায়া এইচপিপি বাঁধের নিচে অঞ্চলের সম্ভাব্য বন্যার কারণে গোষ্ঠীটি বিচ্ছিন্ন হওয়ার হুমকির কারণে বাহিনী সরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। সুরোভিকিনের মতে, সব বেসামরিক নাগরিক যারা তাদের সরিয়ে নেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছিল, তাদের বাম তীরে আনা হয়েছে। তাদের সংখ্যা এক লাখ ১৫ হাজারেরও বেশি। সূত্র-রয়টার্স

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
topউপরে