৪০ দিন ফজরের নামাজ আদায় করায় পুরস্কার ৪৮ জন শিক্ষার্থী

প্রকাশিত: নভেম্বর ১২, ২০২২; সময়: ১:৩৬ pm |
৪০ দিন ফজরের নামাজ আদায় করায় পুরস্কার ৪৮ জন শিক্ষার্থী

নিজস্ব প্রতিবেদক, নওগাঁ : ১০ থেকে ১৭ বছরের ৬৫ জন শিক্ষার্থী নিবন্ধন করে ছিলো। যারা কি না ৪০ দিন ফজরের নামাজ জামায়াতের সাথে আদায় করবে। শর্ত যারা সম্পুর্ন করতে পারবে তাদের একটি নতুন বাই সাইকেল প্রদান করা হবে।

এক টানা ৪০ দিন ফজরের নামাজ পড়ে ৪৮ জন বিভিন্ন বয়সের শিক্ষার্থী পুরস্কার হিসেবে পেয়েছেন বাইসাইকেল। যারা কোন কারনে ৪০ দিন ফজরের নামাজ আদায় করতে পারেন নি তাদের নিরাশ না করে হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে ইসলামিক বই।

নওগাঁ কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে ৪০ দিন ফজরের নামাজ আদায় করায় ৪৮ জন শিক্ষার্থীর হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে বাইসাকেল আর ১৭ জন শিক্ষার্থী পেয়েছেন ইসলামিক বই।নওগাঁ নওজোয়ান মাঠে শুক্রবার বিকেলে শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দেওয়া হয়। মাঠে যেন এক উতসব মুখর পরিবেশ বিরাজ করছিলো শিক্ষার্থীদের চোখে মুখে।নামাজ আদায় করে সাইকেল উপহার পেয়ে অনেক খুশি শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকরা। নারীদের এমন উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছে উভয়। ছেলের এমন অর্জনে ভীষন খুশি অভিবাবকরা তবে এমন অভ্যাস যেন হারিয়ে না যায় সেই দিকে সচেষ্ট মনোনিবেশ রাখার আহবান শিক্ষার্থীদের প্রতি অভিবাবকদের।

৪০ দিন ফজরের নামাজ পড়ে বাইসাকেল পেয়েছেন শহরের কাচারি মসজিদ এলাকার ১০ বছর বয়সী শিশু উমর বিন সবুর। এই বয়সে নামাজ পড়ে এমন একটা উপহার পেয়ে ভীষন উচ্চসিত সে।

সবুর জানায়- তারা বাবা যখন প্রথম তাকে জানিয়েছিলো তখনই সে ঠিক করে নিয়েছিলো এই পুরস্কার সে অর্জন করবে । তার বাবা ও মা তাকে প্রতিদিন ফজরের নামাজের আগে ঘুম থেকে ডেকে দিতো। এবং সে প্রতিদিন তার বাবা’র সাথে ফজরের নামাজ জামায়াতের সাথে আদায় করতো। এই সাইকেল পুরস্কার হিসেবে পেয়ে সে অনেক উপকৃত হবে বলে জানায়। সে এই সাইকেল করে প্রতিদিন মাদ্রাসায় শিক্ষা গ্রহন করতে যাতায়াত ব্যবস্থাইয় সহায়তা করবে বলে সে জানায়।

আরও এক শিক্ষার্থী মুসফিকুর রহমান তামিম জানায়- সে ৪০দিন ফজরের নামাজ জামায়াতের সাথে আদায় করে একটি বাইসাকেল পুরস্কার হিসেবে আজ পেয়েছে। এতে করে সে ও তার পরিবারের সকলে অনেক খুশি। তার এই সাইকেলটি তার স্কুল কোচিং এ যাওয়া আশার জন্য অনেক সহায়তা করবে। বকুল বালিকা দলের শিক্ষার্থীদের প্রতি এমন উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে বলেন এমন উদ্যোগ সকল পর্যায়ের সংগঠন নিলে ভালো হতো।

অভিভাবকরা জানান – কেন্দ্রীয় মসজিদের বড় হুজুরের কাছে জানতে পারার পর প্রথমদিকে একটু কষ্ট হয়েছিলো কিন্তু পরবর্তীতে সব ঠিক হয়ে যায় । এখন এই ৪০দিনের নামাজের পুরস্কার হিসেবে সাইকেল পেয়ে তারা অনন্দিত এবং কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন সংগঠনকে । বাচ্চারা যেন এই নামাজ নিয়মিত পরেন এবং এর সিস্টাচার যেন ভুলে না যায় এর প্রতি নিজের যত্নবান হওয়ার কথা জানান পুরস্কার প্রাপ্তদের প্রতি। বর্তমানে রাস্তা ঘাটে কিশোর গ্যাং এর উতপাতে বেরে যাওয়ায় এই পদ্ধাতি বাচ্চাদের ধর্মীয় দিক দিয়ে অনুশাষনে রাখবে বলে তারা মনে করেন । সেই সাথে বকুল বালিকা দল সংগঠন যেন আরোও ভালো ভালো কাজ করে জেলার উন্নয়নের সহোযোগিতা করবে বলে তারা আশা করেন।

এদিকে বকুল বালিকা দলের সহ-সভাপতি নাহিদ নিগার তিন্নি জানান- পুর্বে জেলার অনেক অসহায় মানুষের জন্য কাজ করেছি। এছাড়া শহর পরিস্কার পরিচ্ছান্ন রাখার জন্য সংগঠনটির পক্ষ থেকে ডাস্টবিন এর ব্যবস্থাও করা হয়েছে। এবার শিক্ষার্থীদের জন্য কিছু করতে হবে এমন চিন্তা থেকে এই উদ্যোগ গ্রহন করা। এতে করে শিক্ষার্থীরা ধর্মীয় এবং শারিরিক দুই ভাবে উন্নতি লাভ করবে ।

এদিকে বাই-সাইকেল বিতরন অনুষ্ঠানে বকুল বালিকা দলের সহ-সভাপতি নাহিদ নিগার তিন্নি’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে শিক্ষার্থীদের হাতে বাইসাইকেল ও ইসলামিক বই তুলে দেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মির্জা ইমাম উদ্দিন।

তিনি বলেন- বকুল বালিকা দল সংগঠনটি জেলার উন্নয়নমুলক কাজে অনেক সহায়তা করেছেন।শিক্ষার্থীরা ৪০ দিন ফজরের নামাজ আদায় করে তাদের দিনের শুরুর দিকে ভালো হয়ে থাকে। এতে করে সারাদিনের ক্লান্তি দূর করে তারা ভালো কাজের স্প্রহা পাবে বলে তিনি মনে করেন।

ডিজিটাল এই যুগে ইন্টারেন্ট এর ডামাডোল থেকে শিশুদের মুক্তি দিতে এমন আয়োজন করেছে নওগাঁ সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের গড়া সংগঠন বকুল বালিকাদের দল। এমন সমাজসেবামুলক কার্যকর্ম চলমান থাকবে বলে জানান সংগঠনটির নেতৃবৃন্দরা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
topউপরে