ছাগল চুরির অভিযোগে ছাত্রলীগ নেতাসহ আটক ২

প্রকাশিত: নভেম্বর ১২, ২০২২; সময়: ১০:৪২ am |
ছাগল চুরির অভিযোগে ছাত্রলীগ নেতাসহ আটক ২

নিজস্ব প্রতিবেদক, মহাদেবপুর : নওগাঁর মহাদেবপুরে ছাগল চুরির অভিযোগে উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মুন্না সরদার (২২) সহ দুইজনকে আটক করে গণধোলায়ের পর থানায় সোপর্দ করেছেন গ্রামবাসী।

ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার (১১ নভেম্বর) দুপুরে উপজেলার সফাপুর ইউনিয়নের ঈশ্বর লক্ষীপুর গ্রামে।

আটককৃতরা হলো, উপজেলার সফাপুর ইউনিয়নের সফাপুর সরদার পাড়া গ্রামের আবু বক্কর সিদ্দিকের পুত্র ও মহাদেবপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মুন্না সরদার (২২) এবং মৃত মোশাররফ হোসেনের পুত্র মুক্তার হোসেন (৩৫)। তারা দুইজন সম্পর্কে মামা-ভাগ্নে।

স্থানীয় বাসিন্দা ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মুন্না সরদার ও মুক্তার হোসেন এ দিন দুপুরে দক্ষিণ লক্ষীপুর গ্রামের জয়নাল আবেদীনের একটি গাভীন ছাগল চুরি করে মোটরসাইকেল যোগে দক্ষিণ লক্ষিপুর থেকে ঈশ্বর লক্ষীপুরের দিকে যাচ্ছিলেন। দুপুর পোনে ১ টার দিকে দ্রুত গতিতে মোটরসাইকেল চালিয়ে যাওয়ার সময় এক পথচারীকে ধাক্কা দিলে তিনি রাস্তায় পড়ে আহত হন।

এ সময় মসজিদে যাতায়াতকারী মুসল্লীরা তাদেরকে আটকিয়ে দ্রুত গতিতে মোটর সাইকেল চালানোর বিষয়ে জানতে চাইলে তারা বলেন, অসুস্থ ছাগলটির চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিয়ে যাচ্ছেন। তাদের আচরণ দেখে সন্দেহ হলে তারা ইউপি সদস্য আব্দুস সাত্তারকে মোবাইল ফোনে বিষয়টি জানান। পরে বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে সফাপুর ইউপি চেয়ারম্যান শামসুল আলম বাচ্চুসহ গণ্যমান্য লোকজন গ্রামেই শালিস বসিয়ে বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মিমাংসার চেষ্টা চালান।

সেখানে গ্রামবাসীর চাপের মুখে বিষয়টি মিমাংসা করতে ব্যর্থ হয়। পরে গ্রামবাসীরা থানায় খবর দিলে পুলিশ গিয়ে মুন্না সরদার ও মুক্তার হোসেনকে আটক করে এবং মোটরসাইকেল ও ছাগলটি জব্দ করে থানায় নিয়ে আসে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সফাপুর ইউপি চেয়ারম্যান শামসুল আলম বাচ্চু কোন মন্তব্য করতে রাজী হননি। মহাদেবপুর থানার ওসি (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ বলেন, এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

মহাদেবপুর উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি সূত্রে জানা যায়, চলতি বছরের ২১ এপ্রিল উপজেলা ছাত্রলীগের অনুমোদন দেয়া ওই কমিটিতে আটজন সাংগঠনিক সম্পাদক রয়েছে। তাদের মধ্যে মুন্না সরদারের নাম ৬ নম্বরে রয়েছে।

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
topউপরে