আলহামদুলিল্লাহ ৪টি বাড়ি নিউইয়র্কে: কাজী মারুফ

প্রকাশিত: নভেম্বর ১১, ২০২২; সময়: ৯:৫২ am |
আলহামদুলিল্লাহ ৪টি বাড়ি নিউইয়র্কে: কাজী মারুফ

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : ঢাকাই ছবির প্রখ্যাত পরিচালক ও অভিনেতা কাজী হায়াতের ছেলে কাজী মারুফ এখন আর সিনেমায় কাজ করেন না।স্থায়ীভাবে বসবাস করছেন সুদূর আমেরিকায়। ২০১৯ সালে দেশটির গ্রিন কার্ড পান তিনি।

অভিনয় যার রক্তে তিনি কেন দেশ ছেড়ে মার্কিন মুলুকে প্রবাসী হলেন? কেমন চলছে তার প্রবাসী জীবন?

এর আগে ‘ইতিহাস’ খ্যাত এই নায়ক অকপটেই জানিয়েছিলেন, রুটি-রুজির তাগিদে দেশ ছেড়ে যুক্তরাষ্ট্রে এসেছেন। আর সবার মতো এখানে কাজ করে জীবন নির্বাহ করছেন।

এবার এ নায়ক জানালেন, সেখানে শুধু থাকছেনই না। ইতোমধ্যে চারটি বাড়ির মালিকানাও নিয়েছেন তিনি।

মঙ্গলবার কাজী মারুফ তার ফেসবুক পেজে এ কথা জানান।

নিউইয়র্কের চারটি বাড়ির ছবি পোস্ট করে ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ চারটি বাড়ি নিউ ইয়র্কে। দেশের টাকায় বাড়ি কিনিনি। এখানে কষ্ট করে বাড়ি কিনেছি। উল্টো দেশে রেমিট্যান্স পাঠাই। দেশে কিছুই নেই আমার যে দেশ থেকে টাকা নিয়ে আসব। দোয়া করবেন।’

আলহামদুলিল্লাহ বললেও এর আগের পোস্টে অবশ্য আক্ষেপ প্রকাশ করেছেন মারুফ। বাংলাদেশে ফেরার ইচ্ছার কথা ব্যক্ত করেন তিনি।

সেই পোস্টে তিনি লেখেন, ‘আমি দেশকে ভালোবেসেছি কিন্তু দেশ কি আমাকে ভালোবেসেছে? লাইভে আসব কাল (আজ)। আপনাদের বলতে, কেন আমি আমেরিকাতে? বাংলাদেশে থাকতে আমিও চাই। উড়োজাহাজ দেখলে খুব ইচ্ছে করে কবে দেশে যাব। মনে ইচ্ছে হয়, কিন্তু আছে। কিন্তুর গল্প বলতে আসব কাল ইউটিউবে।’

প্রসঙ্গত ২০০২ সালে বাবা কাজী হায়াৎ পরিচালিত ‘ইতিহাস’ সিনেমার মাধ্যমে ঢালিউডে অভিষেক ঘটে মারুফের। প্রথম সিনেমাতেই বাজিমাত করেন। সিনেমাটি ব্যবসা সফল হয়, সেরা অভিনেতা হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান মারুফ। এর পর প্রায় ৩৭টি সিনেমায় অভিনয় করেছেন তিনি।

‘দেহরক্ষী সিনেমায় নাম ভূমিকায় অভিনয় করে প্রশংসা পান। তবে ‘ইভটিজিং সিনেমায় তার কাশেম চরিত্রটি বেশি দর্শকপ্রিয়তা পায়।

২০১৪ সালে কাজী হায়াৎ পরিচালিত তার সর্বনাশা ইয়াবা ছবিটিও ব্যবসা সফল হয়। তার অভিনীত সিনেমাগুলোর মধ্যে ‘অন্ধকার’, ‘অন্য মানুষ’, ‘ক্যাপ্টেন মারুফ’, ‘শ্রমিক নেতা’,‘ গরিবের ছেলে বড়লোকের মেয়ে’, ‘আইন বড় না সন্তান বড়’, ‘রাস্তার ছেলে’, ‘পাঁচ টাকার প্রেম’, ‘অশান্ত মন’, ‘আমার স্বপ্ন’, ‘মা আমার জান, ‘আমার মা আমার অহংকার’, ‘মায়ের জন্য মরতে পারি,‘ বড়লোকের দশ দিন গরিবের একদিন’, ‘বস্তির ছেলে কোটিপতি’, ‘ওরা আমাকে ভালো হতে দিল না’, ‘মায়ের জন্য পাগল’, ‘এক টাকার ছেলে কোটি টাকার মেয়ে’, ‘অস্ত্র ছাড়ো কলম ধরো’, ‘ওয়ান্টেড’ অন্যতম।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
topউপরে