জয়পুরহাটে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে হত্যায় স্বামীর যাবজ্জীবন

প্রকাশিত: নভেম্বর ৭, ২০২২; সময়: ৭:৫৩ pm |
জয়পুরহাটে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে হত্যায় স্বামীর যাবজ্জীবন

নিজস্ব প্রতিবেদক, জয়পুরহাট : জয়পুরহাটে নয় মাসের অন্তঃসত্বা স্ত্রীকে হত্যা মামলায় স্বামীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। আজ সোমবার দুপুরে দ্বিতীয় অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোঃ গোলাম সারোয়ার এ রায় দিয়েছেন। একই সঙ্গে তাঁকে ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

দণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তি হলেন, মিজানুর রহমান (৩৭)। তিনি কালাই উপজেলার উদয়পুর ইউনিয়নের চকবারই ইটাতলা গ্রামের মৃত কলিমউদ্দিনের ছেলে। আসামি পলাতক রয়েছে। স্বেচ্ছায় আত্নসমর্পন অথবা পুলিশের গ্রেপ্তারের পর থেকে তাঁর দণ্ড কার্যকর হবে বলে রায়ে উল্লেখ করা হয়েছে।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণ ও আদালত সূত্রে জানা গেছে, মিজানুর রহমানের সঙ্গে বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার উত্তর শ্যামপুর গ্রামের তোজাম্মেল হকের মেয়ে জেসমিনের বিয়ে হয়। গত ২০০৯ সালের ২৬ অক্টোবর রাতে জেসমিনকে তাঁর স্বামী মিজানুর রহমান শ্বাসরোধ করে হত্যার পর পালিয়ে যায়। পরদিন সকাল সাড়ে নয়টায় গ্রামের লোকজন জেসমিনের মৃত্যু খবর তাঁর বাবাকে জানান। জেসমিনের বাবা তাঁর আত্বীয় স্বজনদের সঙ্গে নিয়ে জামাইয়ের বাড়িতে এসে দেখেন, শয়নঘরের খাটের ওপর জেসমিনের মরদেহ পড়ে আছে।

জেসমিনের নাক-মুখ দিয়ে রক্ত বের হচ্ছিল। তাঁরা বাড়িতে জামাইকে পাননি। তাঁরা প্রতিবেশিদের কাছে জানতে পারেন ঘটনার পর জামাই মিজানুর পালিয়ে গেছেন। ঘটনায় জেসমিনের বাবা তোজাম্মেল হক বাদি হয়ে ২৭ অক্টোবর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ২০১১ সালের ৩১ জানুয়ারি মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কালাই থানার উপপরির্দশক ( এসআই) আখতার হোসেন আসামির বিরুদ্ধে ৩০২ ধারায় আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

এরপর দীর্ঘ শুনানি শেষে সোমবার দ্বিতীয় অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোঃ গোলাম সারোয়ার এ মামলার রায় ঘোষনা করেন।

আদালতের সরকারি কৌঁসুলি নৃপেন্দ্রনাথ মন্ডল বলেন,অন্তসত্বা স্ত্রীকে হত্যার দায়ে স্বামীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন। আসামি পলাতক রয়েছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
topউপরে