পুলিশ পরিচয়ে আসামি পালিয়ে দেয়ার অভিযোগ জয়পুরহাটে দুই কথিত সাংবাদিক গ্রেপ্তার

প্রকাশিত: নভেম্বর ৭, ২০২২; সময়: ৬:৫৮ pm |
পুলিশ পরিচয়ে আসামি পালিয়ে দেয়ার অভিযোগ জয়পুরহাটে দুই কথিত সাংবাদিক গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক, জয়পুরহাট : জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে ধর্ষণ মামলার আসামীকে পুলিশ পরিচয়ে ডেকে নিয়ে পালিয়ে দেয়ার অপরাধে দুই সাংবাদিককে গ্রেপ্তার করেছে আক্কেলপুর থানা পুলিশ। গ্রেপ্তাকৃতরা হলো, ক্ষেতলাল উপজেলার মিনিগাড়ী গ্রামের মৃত. তছলিম উদ্দীনের ছেলে আব্দুল রাজ্জাক এবং ক্ষেতলাল পৌর এলাকার বুড়াইল মহল্লার মৃত. মোতারব হোসেনের ছেলে এস এম মিলন। আক্কেলপুর উপজেলার গোপিনাথপুর ইউনিয়নের ভিকনী গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে। এ ঘটনায় রাতেই ভুক্তভোগী বাদী হয়ে থানায় ধর্ষণ মামলা করেন।

ভুক্তভোগী, স্থানীয় ও থানা পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল উপজেলার দেওগ্রামের আইয়ুব আলীর ছেলে শামীম দীর্ঘদিন থেকে ওই নারীকে মোবাইল ফোনে বিভিন্নভাবে কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। এরই ধারাবাহিকতায় গত ৩দিন পূর্বে ভুক্তভোগী ওই নারী আক্কেলপুর পৌর সদরের মানিকপাড়াস্থ তার খালার বাসায় বেড়াতে যায়। মোবাইল ফোনে তা জানতে পেরে গত রবিবার (৬ই নভেম্বর) খালার বাড়িতে এসে কেউ না থাকায় গৃহবধুকে ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষণ করে। তার চিৎকারে খালা-খালু এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে এবং ধর্ষক শামীমকে আটক করেন। ওই দিন বিকালে তার স্বামী এসে তাকে এবং ধর্ষককে উপজেলার ভিকনী গ্রামে নিজ বাড়িতে নিয়ে যায়। ঘটনাটি এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয়দের মাঝে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়।

ক্ষেতলাল উপজেলার মিনিগাড়ী গ্রামের আব্দুর রাজ্জাক এবং এস.এম.মিলন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে নিজেদের পুলিশ পরিচয় দেয়। এ সময় আব্দুর রাজ্জাক ও এস.এম মিলন ধর্ষক শামীমের সাথে কথা বলার নাম করে বাড়ির বাহিরে ডেকে নেয়। এ সময় কথা বলার এক পর্যায়ে এস এম মিলন তাকে পালিয়ে দিয়ে ফেসবুকে ঘটনাটি লাইভ ভিডিও করতে থাকে।

এ সময় স্থানীয়রা অভিযুক্ত শামীমকে পলিয়ে দেওয়ার অভিযোগে আব্দুর রাজ্জাককে আটক করে থানা পুলিশে সোপর্দ্দ করেন এবং এস এম মিলন ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। পরে রাতে ভুক্তভোগী বাদী হয়ে তিন জনকে আসামী করে থানায় ধর্ষণ মামলা করলে ওই রাতেই অভিযান চালিয়ে এস.এম মিলনকে নিজ বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করে থানা পুলিশ। তবে ঘটনার পর থেকে ধর্ষক শামীম পলাতক রয়েছে।

গ্রেপ্তারকৃত আব্দুর রাজ্জাক দৈনিক দেশবাংলা এবং এস.এম মিলন নিজেদেরকে দৈনিক প্রত্যাশা প্রতিদিন পত্রিকার সাংবাদিক পরিচয় দেন।

আক্কেলপুর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবু বক্কর সিদ্দীক বলেন, ‘এ ঘটনায় থানায় একটি ধর্ষন মামলা হয়েছে। ধর্ষন মামলার আসামীকে পালাতে সাহায্য করা ও পুলিশ পরিচয়ে প্রতারনা করায় কথিত ওই ২ সাংবাদিককে গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
topউপরে