বিএনপিকে রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে ফিরে আসার অনুরোধ নানকের

প্রকাশিত: নভেম্বর ৫, ২০২২; সময়: ১:১৫ pm |
বিএনপিকে রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে ফিরে আসার অনুরোধ নানকের

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : বিএনপিকে রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড ও রাজনৈতিক ভাষায় ফিরে আসার অনুরোধ জানিয়ে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেছেন, আমরা স্বাগত জানাই বিএনপিকে। বিএনপিকে মনে রাখতে হবে, কোনোভাবেই অগ্নিসন্ত্রাস, লাঠি নিয়ে মিছিল করা যাবে না। তাদের লাঠি মিছিল বন্ধ করতে হবে।

নানক বলেন, রাজনীতিতে একটা শিষ্টাচার রয়েছে। রাজনীতিতে একটি গতানুগতিক প্রথা রয়েছে। বিএনপি নামক দলটি কিন্তু রাজনৈতিক শিষ্টাচার বহির্ভূতভাবে কথা বলে, অশালীন কথা বলে। সে কারণে আমি অনুরোধ করব, রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে ফিরে আসার জন্য। রাজনৈতিক ভাষায় ফিরে আসার জন্য।

শনিবার (৫ নভেম্বর) সকাল ১০টায় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন আওয়ামী লীগের সম্মেলনের মঞ্চ ও সাজসজ্জা উপ-কমিটির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক। এসময় আওয়ামী লীগের সম্মেলনের মঞ্চ ও সাজসজ্জা উপ-কমিটির সদস্য সচিব মির্জা আজম উপস্থিত ছিলেন।

নানক বলেন, আমাদের নেত্রীর পরিষ্কার নির্দেশনা হলো— কোনো আন্দোলন সংগ্রামে বাধা দেওয়া যাবে না। যার যার কর্মসূচি পালন করতে হবে। বিভিন্ন জায়গায় পরিবহন বন্ধ হচ্ছে, বিশেষ করে বাস ও ট্রাক বন্ধ হচ্ছে। এই বাস-ট্রাক বন্ধ হচ্ছে একটি কারণে। এটি কিন্তু সরকারের পক্ষ থেকে কোনো নির্দেশনা দিয়ে করা হচ্ছে না। আতংকের কারণে বাস-ট্রাক মালিক সমিতি বন্ধ করে দেয়। তারা দেখেছে বিএনপি-জামায়াত বাসে অগ্নিসন্ত্রাস করেছে। যাত্রীসহ বাস পুড়িয়ে দিয়েছে। যে মালিক বাসটি দেবেন তার তো অনেক টাকার ইনভলব। কাজে এত টাকার সম্পৃক্ততা যার আছে, জ্বলে যেতে পারে, জ্বালিয়ে দিতে পারে— সেই আশঙ্কা থেকেই বাস বন্ধ করতে পারে।

তিনি বলেন, আমরা যে মাঠটিতে দাঁড়িয়ে আছি সেটি ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যান। এই ঐতিহাসিক মাঠেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ৭ই মার্চের ভাষণ দিয়েছিলেন। বাঙালি জাতিকে মুক্তিযুদ্ধের দিকনির্দেশনা দিয়েছিলেন। ডিসেম্বর মাস বিজয়ের মাস। এই বিজয়ের মাস সামনে রেখে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে আগামী ১১ নভেম্বর এই মাঠে যুব মহাসমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। ১০ লক্ষাধিক যুবক এই সমাবেশে উপস্থিত থাকবে।

আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, আমাদের দলের সভাপতি কয়েকটি সংগঠনের সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করেছেন। আগামী ২৬ নভেম্বর মহিলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন শেষ করে ৩ ডিসেম্বর ছাত্রলীগ ও ৯ ডিসেম্বর যুব মহিলা লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। তারপর ২৪ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগের কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে।

জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, যুবলীগের মহাসমাবেশ ও আওয়ামী লীগের জাতীয় কাউন্সিলকে কেন্দ্র করে নেতাকর্মীদের মধ্যে প্রাণ চঞ্চলতা, আনন্দ-উদ্দীপনা সৃষ্টি হয়েছে। মঞ্চ তৈরির কাজ শুরু হয়েছে, আমাদের কর্মযজ্ঞ চলছে।

এদিকে আওয়ামী লীগের ২২তম জাতীয় কাউন্সিলসহ ছাত্রলীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, যুব মহিলা আওয়ামী লীগ সম্মেলন ও যুবলীগের ৫০ বছর উদযাপন হবে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে একই মঞ্চে। এরই মধ্যে মঞ্চ তৈরি কাজ শুরু হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
topউপরে