শীতের আমেজে ছড়াচ্ছে রাজনৈতিক উত্তাপ

প্রকাশিত: নভেম্বর ৪, ২০২২; সময়: ১০:৪২ pm |
শীতের আমেজে ছড়াচ্ছে রাজনৈতিক উত্তাপ

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : সারাদেশে দিন ও রাতের তাপমাত্রা কমেছে। দেশের উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় শুক্রবার সকালে তাপমাত্রা ছিল ১৫ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এর আগের দিন ছিল ১৫ দশমিক ৯ ডিগ্রি। তাপমাত্রা কমতে শুরু করায় দেশজুড়ে বইছে শীতের আমেজ। এই শীতের আমেজের মধ্যেই ছড়াচ্ছে রাজনৈতিক উত্তাপ।

জাতীয় নির্বাচনের এক বছর আগেই সমাবেশ করে শক্তি প্রদর্শনের চেষ্টা করছে রাজনৈতিক দলগুলো। এরফলে চাঙা হয়ে উঠেছে তৃণমূলের রাজনীতি। তুমুল আড্ডা জমছে পাড়া-মহল্লার চায়ের দোকানে। রাজনৈতিক দর্শন নিয়ে তর্ক-বিতর্কে উত্তাল গ্রাম-গঞ্জের বাজার।

নির্বাচন সামনে রেখে দেশের প্রধান দুটি দল এখনই বড় সমাবেশ করার প্রতিযোগিতায় নামার চাঙা হয়ে উঠেছে তৃণমূলের রাজনীতি। বিষয়টিকে ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন বিশ্লেষকরা। তবে তারা এই বলে সতর্ক করছেন যে, দলীয় শক্তি প্রদর্শন যাতে কোনোভাবে সংঘর্ষে রূপ না নেয়।

বিশ্লেষকরা মনে করছেন, এই সমাগমের মধ্য দিয়ে দেশের রাজনীতি নির্বাচনমুখী হচ্ছে, তবে সংঘর্ষের দিকে না গিয়ে দুই দলকেই সহনশীল হতে হবে। রাজনীতিতে সমাবেশমুখিতার সূত্রপাত গত ৮ অক্টোবর বিএনপির কর্মসূচিকে ঘিরে। ওই দিন নির্বাচনকালীন নির্দলীয় সরকারসহ আরও দাবিতে প্রতি শনিবার বিভাগীয় শহরে সমাবেশের ঘোষণা দেয় বিএনপি।

প্রথম শনিবার চট্টগ্রামে সমাবেশ করে দলটি। এরপর দ্বিতীয় শনিবার ময়মনসিংহ, তৃতীয় শনিবার খুলনা, তার পরের শনিবার রংপুরে সমাবেশ করেছে দলটি। ৫ শনিবার নভেম্বর বরিশালে সমাবেশ। আগামী ১০ ডিসেম্বর রাজধানীতেও বড় ধরনের সমাবেশের ঘোষণা আছে। এর আগে ৩ ডিসেম্বর রাজশাহীতে সমাবেশ করবে বিএনপি।

বিভাগীয় এ কর্মসূচিগুলো ছাড়াও বিএনপি, তার সহযোগী সংগঠনগুলো ঢাকায় যেসব সমাবেশ করছে, সেগুলোতে নেতা-কর্মীদের ব্যাপক সমাগম দেখা যাচ্ছে, যা দলটির গত কয়েক বছরের সমাবেশে দেখা যায়নি।

বিএনপির পক্ষ থেকে অভিযোগ রয়েছে, সরকার সাজানো পরিববহন ধর্মঘট ও পুলিশের ধরপাকড়ের মাধ্যমে বিএনপির সমাবেশগুলোতে লোকসমাগম কমানোর চেষ্টা করছে।

এদিকে, বিএনপির জনসমাবেশের পাল্টা হিসেবে আওয়ামী লীগের সাম্প্রতিক কর্মসূচিগুলোতেও ব্যাপক লোকসমাগম হচ্ছে। আগে থেকে চলমান জেলা সম্মেলনগুলোতে শোডাউন দিচ্ছে ক্ষমতাসীনরা। আগামী জেলা সম্মেলনগুলোতে আরও বেশি লোকসমাগম করার ইঙ্গিতও মিলেছে দলের নেতাদের বক্তব্যে।

ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে ব্যাপক লোকসমাগম ঘটিয়ে কাউন্সিল অধিবেশনকে জনসভায় রূপ দেয়া হয়। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের অবশ্য বলেন, ‘আওয়ামী লীগ যে সাংগঠনিক কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে, তা বিএনপির কর্মসূচির পাল্টাপাল্টি নয়।’ দলের এক সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হয়, এখন থেকে প্রধানমন্ত্রী ও দলের সভাপতি প্রতি মাসে ঢাকার বাইরে দুটি করে কর্মসূচিতে যোগ দেবেন।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, পাল্টাপাল্টি কোনো কর্মসূচি দেখানোর ব্যাপার না। আমরা যে কর্মসূচি করছি, তা তো নির্ধারিত এক মাস আগেই। আমাদের জেলা সম্মেলনগুলো এক থেকে দেড় মাস আগেই নির্ধারিত হয়েছে। আমাদের আরও ৩৮টি জেলা সম্মেলনের তারিখ দেয়া আছে। এসব সম্মেলনে ঢাকা জেলার সম্মেলনের চেয়েও বেশি লোকের জমায়েত হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
topউপরে