মাইক্রোবাসের নিচে ফেলে ছাত্রদল নেতাকে হত্যার অভিযোগ

প্রকাশিত: নভেম্বর ৪, ২০২২; সময়: ১১:০৫ am |
মাইক্রোবাসের নিচে ফেলে ছাত্রদল নেতাকে হত্যার অভিযোগ

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও তার স্ত্রী জোবায়দা রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে ছাত্রদলের মশাল মিছিলে হামলার অভিযোগ উঠেছে।

হামলার সময় অমিত হাসান অনিক নামে ছাত্রদলের এক কর্মীকে মাইক্রোবাসের নিচে ফেলে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। কে বা কারা তাকে হত্যা করে সে সম্পর্কে স্পষ্ট করে কিছু জানা না গেলেও ছাত্রদলের দাবি, ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতাকর্মীরা লাঠিসোটা, রামদা ও রড নিয়ে মশাল মিছিলের শেষ পর্যায়ে সশস্ত্র হামলা চালিয়েছে। হামলায় সংগঠনটির আরও ছয়জন আহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত সাড়ে ৮টার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে ভুলতা এলাকায় উপজেলা ছাত্রদলের মশাল মিছিলে ওই ঘটনা ঘটে।

১৬ বছর বয়সী অনিক কাঞ্চন পৌরসভা ছাত্রদলের ৫ নং ওয়ার্ডের সহসভাপতি। তিনি উপজেলার চরপাড়া এলাকার আমীর হোসেনের ছেলে ও স্থানীয় একটি স্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্র। আহতদের মধ্যে আমির হোসেন, আব্দুল হালিম, মো. সানির নাম জানা গেছে।

অনিকের বন্ধু মামুন জানান, তারেক রহমান ও জোবায়দা রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানার প্রতিবাদে গতরাতে যুবদলের আহ্বায়ক নাহিদ হাসানের নেতৃত্বে একটি মশাল মিছিল বের করা হয়। মিছিলের শেষ দিকে ছাত্রলীগ ও যুবলীগ কর্মীরা কয়েকটি মোটরসাইকেলে এসে আমাদের ওপর হামলা চালায়। একপর্যায়ে অনিককে ধরে নিয়ে ঢাকা-বাইপাস সড়কে চলন্ত মাইক্রোবাসের নিচে ধাক্কা দিয়ে ফেলে চলে যায়। এতে অনিক গুরুতর আহত হয়।

দ্রুত উদ্ধার করে তাকে নেওয়া হয় স্থানীয় একটি হাসপাতালে। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফের অনিককে নেওয়া হয় ঢাকা মেডিকেলের জরুরি বিভাগে। কিছু সময় থাকার পর সেখানেই তার মৃত্যু হয়।

স্থানীয় ছাত্রলীগ ও যুবলীগের লোকজনের হামলায় অনিকের মৃত্যু হয়েছে দাবি করে রূপগঞ্জ থানা ছাত্রদলের আহ্বায়ক নাহিদ হাসান বলেন, মিছিলের শেষ দিকে পেছন থেকে হামলা চালানো হয়। তবে ছাত্রদল নেতাদের অভিযোগ অস্বীকার করেছে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীরা।

অনিকের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া। তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার রাত দেড়টার দিকে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় অনিকের। তার মাথায় ও শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। মরদেহ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। রূপগঞ্জ থানা পুলিশকেও ঘটনা জানানো হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে