পুঠিয়া ইসলামিয়া মহিলা কলেজে শোক দিবস ও নবীন বরণ এক মঞ্চে, ব্যাপক সমালোচনা

প্রকাশিত: নভেম্বর ৩, ২০২২; সময়: ৮:২৯ pm |
পুঠিয়া ইসলামিয়া মহিলা কলেজে শোক দিবস ও নবীন বরণ এক মঞ্চে, ব্যাপক সমালোচনা

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী : রাজশাহীর পুঠিয়ায় একই সাথে জাতীয় শোক দিবস ও নবীন বরণ অনুষ্ঠানের জমকানো আয়োজন করেছেন ইসলামিয়া মহিলা কলেজ। এ ঘটনায় উপজেলা জুড়ে নানা আলোচনা ও সমালোচনা শুরু হয়েছে। সংশ্লিষ্ঠরা বলছেন, জাতীয় শোক দিবসকে বিতর্কীত করতে এই আয়োজন করেছেন কলেজ কর্তৃপক্ষ।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে পুঠিয়া ইসলামিয়া মহিলা কলেজে একই ব্যানারে ও একই মঞ্চে এই আয়োজন করা হয়।

উপজেলা চেয়ারম্যান জিএম হীরা বাচ্চু বলেন, আজকে জেলহত্যা দিবস। বঙ্গবন্ধু’র ঘনিষ্ঠ সহচর ও অন্যতম জাতীয় ৪ নেতা, যারা বঙ্গবন্ধু’র অবর্তমানে এই দেশকে স্বাধীন করার জন্য লড়াই করেছেন। তিনি বলেন, জেলখানা হচ্ছে একটি নিরাপদ স্থান। আর সেই নিরাপদ স্থানে স্বাধিনতা বিরোধিরা তাদের নির্মমভাবে হত্যা করেছিল। আজ সেই শোকের দিন। আর এই শোকের দিনে যারা আনন্দ উল্লাস করে, তাদের মধ্যে কোনো দেশ প্রেম নেই।

তিনি বলেন, শোকের দিনে আনন্দ উল্লাসের এই বিষয়টি খোজ নেয়া হচ্ছে। অব্যশই দোষিদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

তবে কলেজের অধ্যক্ষ শিহাব উদ্দীনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ বিষয়ে কোনো বক্তব্য দিবেন না বলে জানান।
কলেজ ব্যবস্থাপনা পরিষদের সভাপতি ও বর্তমান সাংসদ ডাক্তার মনসুর রহমানের পুত্র ডাক্তার মাজরুই রহমান প্রত্যয় বলেন, কলেজে গিয়ে দেখি শিক্ষকরা শোক দিবসের সাথে নবীন বরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছেন।

জাতীয় শোক দিবসে এমন আয়োজনের বিষয়টি আমার কাছে খারাপ লেগেছে তাই তৎক্ষনিক অনুষ্ঠান ছেড়ে চলে এসেছি। আর তাদের বলেছি, নবীন বরণ পরে করতে। এখন শুধু দোয়া মাহফিল করতে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরুল হাই মোহাস্মদ আনাছ বলেন, ৩ নভেম্বর জাতীয় শোক দিবস। এই দিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে অন্য কোনো অনুষ্ঠানের সাথে শোক দিবস পালন করার নিয়ম নেই।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে