রায়পুরে জরাজীর্ণ মাদ্রাসার সংস্কার চায় শিক্ষার্থীরা

প্রকাশিত: অক্টোবর ২, ২০২২; সময়: ১০:২৩ am |
রায়পুরে জরাজীর্ণ মাদ্রাসার সংস্কার চায় শিক্ষার্থীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক, লক্ষ্মীপুর : লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলার কেরোয়া ইউনিয়নের পীর ফজলুল্লাহ ইসলামী মিশন দাখিল মাদ্রাসা, এটি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৭৯ ইং সালে যার প্রতিষ্ঠাতা মাওলানা মেছবাহ্ উদ্দীন জাহাঙ্গীর।

বহু ত্যাগ তিতিক্ষার পর মাওলানা জাহাঙ্গীর এই মাদ্রাসাটি প্রতিষ্ঠা করেন, লোক মুখে শোনা যায় শুরুর দিকে মাওলানা জাহাঙ্গীর এই মাদ্রাসায় নিজের বসত ঘরের বেড়া ও নিজের বাগানের বাঁশ এবং বিভিন্ন গাছ লাগিয়ে মাদ্রাসাটি দাঁড় করান।

পরবর্তীতে এরশাদ সরকারের সময় মাদ্রাসাটির সরকারী মঞ্জুরী হয়। বর্তমানে মাদ্রাসাটি রায়পুর উপজেলার স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান হলেও তার অবস্থা খুবই জরাজীর্ণ, মাদ্রাটিতে বর্তমানে তিনশো এর অধিক ছাত্র ছাত্রী পড়ালেখা করে, সর্বশেষ এসএসসি (দাখিল) পরীক্ষায় পাশের হার ছিলো ৯৭ ভাগ।

একসময় দাখিল পরীক্ষায় টানা পাঁচ বছর ১০০ পার্সেন্ট ছাত্র ছাত্রী পাশ করে। মাদ্রাসাটির প্রতিষ্ঠাতা ও সুপার মাওলানা মেছবাহ্ উদ্দীন জাহাঙ্গীর ২০১৩ সালে রিটায়ার্ড করলে এবং ২০১৫ সালে তিনি মৃত্যুবরন করলে প্রতিষ্ঠানটির সুপার হোন মাওলানা শামসুল ইসলাম। বর্তমান সুপার শামসুল ইসলাম বলেন প্রতিষ্ঠার পর থেকে মাদ্রাসাটিতে লাগেনি কোন প্রকার উন্নয়নের ছোঁয়া তিনি আরো বলেন উপরের চাল নষ্ট হওয়ার ফলে বর্ষা মৌসুমে চালের ছিদ্র দিয়ে পানি পড়ে যার কারনে ছাত্রছাত্রীদের পড়ালেখায় বিঘ্ন ঘটে।

সরজমিনে গেলে দেখা যায়, মাদ্রাসাটির চারপাশের টিনের বেড়ার একদিক জায়গায় ভেঙ্গে আছে কোন রকম জোড়াতালি দিয়ে চলছে শিক্ষা কার্যক্রম।

টিনের চাল অনেকদিনের পুরনো হওয়ায় বিভিন্ন যায়গায় বড় বড় ছিদ্র তৈরী হয়েছে যার কারনে সামান্য বৃষ্টির ফলে শ্রেনীকক্ষে পানি পড়ে পড়া লিখায় বাধা তৈরী করে, হালকা ঝড়ে যে কোন মুহুর্তে ভেঙ্গে পড়তে পারে প্রতিষ্ঠানটি, ছাত্রীদের জন্য নেই কোন উন্নতমানের স্যানিটেশন ব্যাবস্থা। শিক্ষক শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীর দাবী জরাজীর্ণ এই প্রতিষ্ঠানটিকে সরকারী অর্থায়নে দ্রুত সংস্কার করে পাঠদানের উপযোগী করে গড়ে তোলা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
topউপরে