ইছামিত নদীতে গ্রামবাংলার ঐতিহ্যবাহী নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২২; সময়: ১১:৫৩ am |
ইছামিত নদীতে গ্রামবাংলার ঐতিহ্যবাহী নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা

নিজস্ব প্রতিবেদক, পাবনা : প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন পালন উপলক্ষ্যে তৃতীয়বারের মতো পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার ইছামতি নদীতে অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো গ্রামবাংলার ঐতিহ্যবাহী নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা।

সাঁথিয়া পৌরসভার উদ্যোগে দশদিনব্যাপী এই প্রতিযোগিতার বুধবার ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হয়। এতে মায়ের দোয়া এক্সপ্রেসকে পরাজিত করে চ্যাম্পিয়ন হয় বাগচী চ্যালেঞ্চার।

স্থানীয় নয়টি বাইচের নৌকা নিয়ে এবারের এই আয়োজন। চূড়ান্ত বাইচে চারটি নৌকা অংশগ্রহণ করে। নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা দেখতে নদীর দুই পাড়ে ভীড় জমে বিভিন্ন এলাকার কয়েক হাজার মানুষের ভীড় জমে।

বিশেষভাবে তৈরিকৃত এই বাইচের নৌকাগুলোকে খুব যত্ন করে পরিচর্যা করেন বাইচালরা। প্রতিটি নৌকাতে ৬০ থেকে ৬২ জন করে বাইচাল থাকেন। একজন ধরেন হাল আর দুইজন ছন্দে ছন্দে উৎসাহ যোগান খেলোয়ারদের। বাজনার তালে তালে আঞ্চলিক গান গেয়ে দর্শকদের মাতিয়ে রাখেন তারা।

বাহারি পোষাকে আর নানা নামে অঞ্চল ভিত্তিক দর্শক ও সমর্থকেরা উপস্থিত হন নদীর দুই পারে। সেইসাথে নারী-পুরুষ, আবাল-বৃদ্ধা, শিশু-কিশোর সকল শ্রেনী পেশার মানুষ এই নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা দেখতে আসেন। ফাইনাল খেলা শেষে প্রধান অতিথি হিসেবে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার তুলে দেন জাতীয় সংসদরে ডেপুটি স্পিকার শামসুল হক টুকু এমপি।

সাঁথিয়া পৌরসভার মেয়র মাহবুবুল আলম বাচ্চুর সভাপতিত্বে পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে বেড়া পৌরসভার মেয়র অ্যাডভোকেট আসিফ শামস রঞ্জন, সাঁথিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ দেলোয়ার, সাঁথিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাসুদ হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

চ্যাম্পিয়ন এবং রানারআপ দলকে একটি করে মোটরসাইকেল পুরস্কার দেওয়া হয়। অংশগ্রহণকারী বাকি সব দলকে একটি করে ফ্রিজ পুরস্কার দেওয়া হয়।

এ সময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডেপুটি স্পিকার শামসুল হক টুকু বলেন, নৌকাবাইচ আমাদের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির মূল অনুষঙ্গ। এই ঐতিহ্যকে ধরে রাখা আমাদের সবার দায়িত্ব ও কর্তব্য। এতে গ্রামবাংলার সাধারণ মানুষ আনন্দ উপভোগ করার সুযোগ পান। খেলাধুলা মানুষকে সকল অনৈতিক কাজ থেকে দূরে রাখে। যুব সমাজকে মাদকের হাত থেকে রক্ষা করে খেলাধুলায় আগ্রহী করতে প্রতি বছর ইছামতি নদীপাড়ে আয়োজন করা হয় নৌকাবাইচ।

উল্লেখ্য, গত ১৮ সেপ্টম্বর থেকে শুরু হয় এই নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা। এবারের বাইচে বাগচী চ্যালেঞ্চার, প্রামানিক ফাইটার, মায়ের দোয়া, উড়ন্ত বলাকা, সততা এক্সপ্রেস, পদ্মা এক্সপ্রেস, বাংলার রকেট, পবাখালি এক্সপ্রেস নামে বাইচের নৌকা অংশগ্রহণ করে।

সাঁথিয়া উপজেলার নাগডেমরা এলাকার আবুল কাশেম, সিদ্দিকুর রহমান, খবির উদ্দিন সহ কয়েকজন বলেন, প্রত্যেক বছর এখানে ইছামতি নদীতে নৌকাবাইচ খেলা হয়। আমরা প্রতিটি খেলাই দেখেছি। এটা আমাদের কাছে উৎসবের মতো। না এসে থাকতে পারিনা। আমাদের গ্রামের খেলাধুলার মধ্যে নৌকাবাইচ ই বেশি জনপ্রিয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
topউপরে