৯৯৯: স্বামীর হাতে নির্যাতনের সংখ্যাই বেশি

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২২; সময়: ২:০৫ pm |
৯৯৯: স্বামীর হাতে নির্যাতনের সংখ্যাই বেশি

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯-এ নারী নির্যাতনের প্রতিকার চেয়ে প্রতিদিন ৪৩২টি ফোনকল আসছে। এরমধ্যে স্বামীর হাতে নির্যাতনের সংখ্যাই বেশি। জানুয়ারি থেকে আগস্ট পর্যন্ত ধর্ষণ ও যৌন নির্যাতন থেকে বাঁচতে ফোনকল এসেছে দেড় হাজার। এদিকে, বাক প্রতিবন্ধী নারী ও শিশুদের জন্য চালু হচ্ছে এসওএস বাটন অ্যাপস।

পপি আক্তার, কাজ করেন ৯৯৯ জরুরি সেবায় কল টেকার হিসেবে। গত চার বছরে তিনি বেশি ফোন কল পেয়েছেন নারী নির্যাতনের। নারী ও শিশু ধর্ষণ, ধর্ষণ চেষ্টা আর প্রতারণার শিকার ব্যক্তিরাই সাহায্য চেয়েছেন জরুরি সেবায়।

জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯’র কল টেকার পপি আক্তার বলেন, “৮ বছর বয়সী মেয়েকে তার দাদার বয়সী এক লোক রেপ করে। এ ঘটনায় র‌্যাপিস্টকে আটক করা হয়। এই খবর পেয়ে থানার সঙ্গে কথা বলিয়ে দেওয়ার পরে ঘটনাস্থল থেকে ওই র‌্যাপিস্টকে ধরে নিয়ে যায় পুলিশ।”

কিভাবে সহায়তা করেন নারী নির্যাতনের এমন ফোনকলগুলোর? কিভাবে সমাধান হয়? প্রশ্ন ছিলো কল টেকার পপি আক্তারের কাছে।

পপি আক্তার বলেন, “বেশির ক্ষেত্রে দেখা যায় যে মা-বাবা এ বিষয়ে আগ্রহ দেখায় না। পাশের কেউ একজন কল করেছেন। বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে থানাকে অবহিত করা হয়।”

জাতীয় জরুরি সেবার পরিসংখ্যান বলছে, জানুয়ারি থেকে আগস্ট পর্যন্ত ৭১৪টি ধর্ষণের ফোনকল এসেছে। ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছে ৩৮৩ জনকে। যৌন নির্যাতনের কল এসেছে ৩৪৬টি। আর নারী নির্যাতনের কল এসেছে ২ হাজার ৭১৭টি। মোট নির্যাতনের কলের সংখ্যা প্রায় ৪ হাজার। যা গত বছরগুলোর তুলনায় অনেক বেশি।

জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯’র গণমাধ্যম ও জনসংযোগ কর্মকর্তা আনোয়ার সাত্তার বলেন, “ট্রিপল নাইনে যে বিষয়গুলোতে আমরা সবচেয়ে বেশি কল পেয়ে থাকি তার মধ্যে একটা হচ্ছে নারী নির্যাতন। নারী নির্যাতনের অনেকগুলো সাব-ইভেন্ট আছে, যেমন রেপ, ইভিটিজিং, যৌন হয়রানি ইত্যাদি।”

ধর্ষণ বা নির্যাতনের শিকার বাক-প্রতিবন্ধীদের জন্য একটি অ্যাপস চালু হতে যাচ্ছে। এটি চালু হলে বাক-প্রতিবন্ধীদের নিরাপত্তা বাড়বে আশা কর্তৃপক্ষের।

আনোয়ার সাত্তার আরও বলেন, “ইভটিজিং বা যৌন হয়রানি কোন নারী হয়েছেন কিন্তু ওই মুহূর্তে ফোন করে তার বিপদের কথা বলার পরিস্থিতি নেই। ওই সমস্ত ক্ষেত্রে তারা এই অ্যাপসটির সহায়তা নিয়ে সংক্রিয়ভাবে ৫ সেকেন্ডের একটি ভিডিও ধারণ হবে এবং ওই ভিডিওটি ট্রিপল নাইনের কাছে চলে আসবে। সে অনুযায়ী ৯৯৯ দ্রুত তাদের সহায়তা প্রেরণ করতে পারবে।”

তৃণমূল পর্যায়ে নির্যাতনের শিকার হলে শিশুরা কিভাবে তাৎক্ষণিক জরুরি সেবা পেতে পারে তা নিয়েও কাজ করার পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
topউপরে