বৃষ্টিতে আমন চাষিদের মাঝে স্বস্তি ফিরলেও ক্ষতির মুখে আগাম সবজি

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২২; সময়: ৯:৪৯ am |
খবর > কৃষি
বৃষ্টিতে আমন চাষিদের মাঝে স্বস্তি ফিরলেও ক্ষতির মুখে আগাম সবজি

অদ্বৈত কুমার আকাশ, নন্দীগ্রাম : দেরিতে হলেও ভারী বৃষ্টিতে স্বস্তি ফিরেছে বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার কৃষকদের মাঝে। ভরা বর্ষায় এবার বৃষ্টি না হওয়ায় জমিতে সেচ দিয়ে আমন ধানের চাষ করেছে কৃষকরা।

গত কয়েকদিনের ভারী বর্ষনে এখন এ উপজেলার মাঠঘাট পানিতে টইটুম্বুর। বৃষ্টির পানি পেয়ে সতেজ হয়ে উঠেছে আমন ধানের ক্ষেত।

অপরদিকে শরতের এই ভারী বৃষ্টিতে ক্ষতির মুখে পরেছে উপজেলার আগাম শাকসবজি চাষিরা। বৃষ্টির কারণে ফুলকপি, বাঁধাকপি, মুলা, বেগুন, টমেটো ও কাঁচা মরিচের গাছ নষ্ট হয়ে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন উপজেলার কৃষকরা।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলতি আমন মৌসুমে এ উপজেলায় ধানের চাষ হয়েছে ২০ হাজার ২৫০ হেক্টর জমিতে। আর এ বছর শীতকালীন আগাম শাকসবজির চাষ হয়েছে ২০০ হেক্টর জমিতে।

উপজেলার দলগাছা গ্রামের কৃষক মুনিরুজ্জামান জানান, বর্ষা মৌসুমে বৃষ্টির দেখা না পাওয়ায় আমরা জমিতে পানি সেচে দিয়ে আমন ধানের চাষ করেছি। এতে আমন ধান চাষে ব্যয় বেড়েছে।

তবে গত কয়েকদিন টানা বৃষ্টিপাত হওয়ায় এখন আমন ধানের ক্ষেত দেখে আমাদের মন ভরে যাচ্ছে। ধানের উৎপাদন খরচ অনেক বেশি তাই আবাদ করে তেমন লাভ হয় না।

উপজেলার বাদলাশুন গ্রামের কৃষক জুয়েল রানা বলেন, বাড়তি লাভের আশায় প্রতি বছর আগাম জাতের সবজি চাষ করি। এবারও আড়াই বিঘা জমিতে ফুলকপি ও ৪ বিঘা জমিতে কাঁচা মরিচের চাষ করেছি।

গত কয়েকদিন ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে সবজি ক্ষেতে পানি জমেছিল। এতে কিছু কিছু চারা গাছের গোড়া পচে যাচ্ছে। আর যাদের চারা গাছ ছোট ছিল তাদের আরও বেশি ক্ষতি হয়েছে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আদনান বাবু বলেন, বৃষ্টির কারণে আমন ধান অনেক ভাল হবে। কৃষি অফিস হতে আগাম শাকসবজি চাষিদের জমি থেকে বৃষ্টির পানি অতি দ্রুত বের করে দেওয়ার পরামর্শ প্রদান করা হচ্ছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
topউপরে