৪৩ কেজি ওজন ঝরিয়ে ঝরঝরে শ্রাবন্তী

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২২; সময়: ১০:৫৬ am |
খবর > বিনোদন
৪৩ কেজি ওজন ঝরিয়ে ঝরঝরে শ্রাবন্তী

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : হঠাৎ করেই ফেসবুকের একটি পোস্টে চোখ আটকে গেল। যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক থেকে পোস্টটি করেছেন ছোট ও বড় পর্দার একসময়ের জনপ্রিয় তারকা ইপসিতা শবনম শ্রাবন্তী। পোস্টটির সঙ্গে জুড়ে দিয়েছেন দুটি ছবি। ৪৩ কেজি ওজন ঝরিয়েছেন তিনি। তবে নতুন করে বিয়ে বা অভিনয়ে ফেরার জন্য নয়!

শ্রাবন্তী লেখেন, ‘আগে ওজন ছিল ১১০ কেজি। এখন ৬৭ কেজি। কিছু কিছু আপা আর ভাইয়াদের ধারণা, আমি আবার নতুন করে অভিনয় শুরু করতে যাচ্ছি। দুঃখিত, সেটা সত্যি নয়। তাই শান্ত হোন। আলহামদুলিল্লাহ, আমি আমার দুই মেয়েকে নিয়ে ভালো আছি। আমার জন্য দোয়া করবেন।’

পোস্টটি পছন্দ করেছেন সাড়ে ছয় হাজার লোক। পোস্টটির নিচে মন্তব্য জমা হয়েছে ৮২১টি। আর পোস্টটি শেয়ার হয়েছে ৯ বার। মন্তব্য করতে গিয়ে অনেকেই শ্রাবন্তীর ডায়েট চার্ট সম্পর্কে জানতে চেয়েছেন। উত্তরে আবদুল্লাহ আল সিয়াম নামের একজনের ফেসবুকের আইডি লিংক জুড়ে দিয়ে শ্রাবন্তী লিখেছেন, ‘উনার কাছে শুনুন। উনার ডায়েট চার্ট অনুসরণ করে আমি কমেছি।’ অন্যদিকে ওই পোস্টে আবদুল্লাহ আল সিয়াম মন্তব্য করেছেন, ‘আরও স্লিম হতে হবে।’

উত্তরে শ্রাবন্তী সিয়ামকে উদ্দেশ্য করে লিখেছেন, ‘আর পারব না। অনেক কষ্ট। আপনাকে রাতদিন অনেক জ্বালায়ে মারছি। আপনাকে অনেক ধন্যবাদ। আমার জন্য অনেক কিছু করলেন।’ অনেকেই শ্রাবন্তীকে এই সফলতার জন্য শুভকামনা জানিয়েছেন। অনেকে ভাবছেন, আবার হয়তো পর্দায় ফেরার জন্য এই পরিবর্তন। কিন্তু শ্রাবন্তী নিজেই সেই সম্ভাবনা উড়িয়ে দিয়েছেন।

‘রং নাম্বার’ ও ‘ব্যাচেলর’ সিনেমায় অভিনয় করে ব্যাপক আলোড়ন ফেলেন শ্রাবন্তী। ক্যারিয়ারের সবচেয়ে ভালো সময়ে বিয়ে করেন ২০১০ সালে। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ও এনটিভির সাবেক মহাব্যবস্থাপক মোহাম্মদ খোরশেদ আলমকে। ২০১১ সালে জন্ম নেয় এই দম্পতির প্রথম সন্তান রাবিয়াহ। আর ২০১৫ সালে সেই সংসারে যোগ দেয় ছোট মেয়ে আরিশা। ২০১৮ সালে এ জুটির বিচ্ছেদ হয়ে যায়।

যুক্তরাষ্ট্রেই গ্রিন কার্ড নিয়ে স্থায়ী হয়েছেন শ্রাবন্তী। মাঝে সেখানে ওয়ালমার্টে কাজ নিয়েছিলেন। ভালো না লাগায় ছেড়েও দিয়েছিলেন। মেডিকেল সহকারীর স্বল্পমেয়াদি একটি কোর্স করেছেন। এখন দুই মেয়ে নিয়ে স্বাচ্ছন্দ্যে আছেন শ্রাবন্তী। আবার বিয়ে করার কোনো পরিকল্পনা নেই বলেও জানিয়েছিলেন ২০২১ সালে এক সাক্ষাৎকারে, সর্বশেষ যেবার বাংলাদেশে এসেছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে