ফের থমকে গেল নাসার চাঁদ অভিযান

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ৪, ২০২২; সময়: ৯:৫৮ am |
ফের থমকে গেল নাসার চাঁদ অভিযান

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : চাঁদ অভিযানের জন্য প্রস্তুত আর্টেমিস ওয়ানে বিপজ্জনকভাবে আবারও জ্বালানি লাইনে ফুটো হওয়ায় দ্বিতীয় প্রচেষ্টাটিও বাতিল করতে বাধ্য হয়েছে নাসা। ওই রকেটে একটি ক্রু ক্যাপসুলকে চাঁদের কক্ষপথে পরীক্ষামূলক ডামিসহ পাঠানোর পরিকল্পনা ছিল তাদের।

সপ্তাহের শুরুর দিকে হাইড্রোজেন নিঃসরিত হলে প্রথম প্রচেষ্টা বিঘ্নিত হয়। তবে ৯৮-মিটার দৈর্ঘ্যের নাসার তৈরি এই সবচেয়ে শক্তিশালী রকেটটির অন্য কোথাও সেই নিঃসরণ হচ্ছিল। খবর ভয়েস অব আমেরিকার

নাসা ঠিক কবে আবার চন্দ্রাভিযানে যাবার চেষ্টা করতে পারে, সে বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে কিছু বলা হয়নি। মঙ্গলবারের পর, দুই সপ্তাহের একটি যাত্রাবিরতি ছিল। ব্যাপক জ্বালানি নিঃসরণ মেরামতের জন্য রকেটটিকে প্যাড থেকে সরিয়ে তার হ্যাঙ্গারে ফিরিয়ে আনার প্রয়োজন হতে পারে, সম্ভবত ফ্লাইটটি অক্টোবরের দিকে আবারও উড্ডয়নের চেষ্টা করা হতে পারে।

রকেটটি উড্ডয়নের পরিচালক চার্লি ব্ল্যাকওয়েল-টম্পসন এবং তার দল শনিবারের নিঃসরণকে বন্ধ করার চেষ্টা করেছিলেন। যেমনটি তারা গতবার করেছিলেন, যাতে সরবরাহ লাইনের একটি সীলের চারপাশের ফাঁক দূর করার আশায় অতি-ঠান্ডা তরল হাইড্রোজেনের প্রবাহ বন্ধ করা এবং পুনরায় তা চালু করা যায়। তারা দুবার চেষ্টা করেছিলেন, তবে লাইনের মধ্য দিয়ে হিলিয়ামও উদ্গিরিত হচ্ছিল এবং নিঃসরণও অব্যাহত ছিল।

ব্ল্যাকওয়েল-টম্পসন তিন থেকে চার ঘণ্টার ব্যর্থ প্রচেষ্টার পর অবশেষে রকেটটির যাত্রা থামিয়ে দেন। তারপর নাসার লঞ্চ ভাষ্যকার ডেরল নেইল ঘোষণা করেন, ‘আজকের জন্য আমাদের যাত্রা বাতিল করে দিতে হচ্ছে’।

নাসার দাবি, এখনও পর্যন্ত তৈরি হওয়া সমস্ত মহাকাশযানগুলোর মধ্যে এটি সবচেয়ে শক্তিশালী। চাঁদে একমাসের বেশি সময় ধরে পরীক্ষা চালানোর কথা রয়েছে এই মহাকাশযানের।

আর্টেমিস প্রোগ্রামটি মার্কিন সরকারের অর্থায়নে পরিচালিত মানব মহাকাশ যাত্রার কার্যক্রম, যার লক্ষ্য ২০২৪ সালের মধ্যে প্রথম নারী এবং পরে পুরুষ নভচারিদের অবতরণ করানো। বিশেষ করে চাঁদের দক্ষিণ মেরু অঞ্চলে।

পাঁচ সপ্তাহের পরীক্ষামূলক এই উড্ডয়নটি সফল হলে, মহাকাশচারীরা ২০২৪ সালে চাঁদের চারপাশে উড়তে পারবে এবং ২০২৫ সালে এটি চাঁদে নামতে পারে। ৫০ বছর আগে মানুষ শেষবারের মতো চাঁদের মাটিতে পা রেখেছিল।

কয়েকদিনের ঝড়ো আবহাওয়ার পর, শনিবারের প্রথম দিকে আবহাওয়া স্বাভাবিক হলে উৎক্ষেপণ দলটি স্পেস লঞ্চ সিস্টেম রকেটে প্রায় ১০ লাখ গ্যালন জ্বালানি ভরতে শুরু করে। কিন্তু অপারেশনের কয়েক মিনিটের মধ্যে, নিরাপত্তা নিয়ম লঙ্ঘন করে রকেটের নীচের ইঞ্জিন বিভাগ থেকে হাইড্রোজেন জ্বালানি বের হতে শুরু করে।

৪১০ কোটি ডলারের নাসার পরীক্ষামূলক ফ্লাইট, এই চন্দ্র অন্বেষণের প্রথম ধাপটির নামকরণ করা হয়েছে, গ্রীক পুরাণে অ্যাপোলোর যমজ বোন আর্টেমিসের নামে। নাসার অ্যাপোলো প্রোগ্রামের আওতায় বারোজন নভোচারী চাঁদের মাটিতে হেঁটেছেন। শেষবার ১৯৭২ সালে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও খবর

  • হারিকেন ইয়ানের আঘাতে যুক্তরাষ্ট্রে নিহত বেড়ে ৭০
  • তীর্থযাত্রীদের নিয়ে পুকুরে ট্রাক্টর, নিহত ২৬
  • শিশুকে যৌন নির্যাতন মামলায় আসামির ১৪২ বছরের কারাদণ্ড
  • ৫০০ টাকায় মিলবে জেলে থাকার স্বাদ
  • ইন্দোনেশিয়ায় ফুটবল মাঠে পদদলিত হয়ে নিহত ১২৯
  • ইমরান খানের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা
  • ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়ে ‘ইতিহাস’ গড়ল উত্তর কোরিয়া
  • পুতিনের হুমকিকে ভয় পায় না যুক্তরাষ্ট্র : বাইডেন
  • রাশিয়ার ওপর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আরও নিষেধাজ্ঞা
  • ইউক্রেনের ৪ অঞ্চলকে রাশিয়ার ভূখণ্ড ঘোষণা
  • জনপ্রিয় ইউটিউবারকে পিষে দিয়ে গেল ট্রাক
  • কাবুলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আত্মঘাতী হামলায় নিহত ১৯
  • ইরানের বিক্ষোভে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৮৩
  • প্রায় ৪০০ কর্মী ছাঁটাই করছে বিবিসি
  • যানজটে নাকাল বেঙ্গালুরু, শহরের ভেতর চলতে চালু হচ্ছে হেলিকপ্টার
  • উপরে