রাজশাহীতে শোক দিবসের কর্মসূচি পন্ড করলেন ইউপি সদস্য

প্রকাশিত: আগস্ট ১৫, ২০২২; সময়: ১০:৪২ pm |
রাজশাহীতে শোক দিবসের কর্মসূচি পন্ড করলেন ইউপি সদস্য

নিজস্ব প্রতিবেদক : দাওয়াত না দেয়ায় রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার তাতারপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শোক দিবসের কর্মসূচি পন্ড করে দিয়েছেন স্থানীয় ইউপি সদস্য সাহাবুল ইসলাম। এ সময় অকথ্যভাষায় গালাগালিজ ও শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করা হয় বিদ্যালয়ের শিক্ষক কর্মচারিদের।

এ ঘটনায় শিক্ষকদের পক্ষ থেকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। শিক্ষকরা লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করেছেন, সোমবার সকালে স্কুলে শোক দিবসের কর্মসূচি চলছিল। কর্মসূচির শেষের দিকে শলুয়া ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য সাহাবুল ইসলাম দলবল নিয়ে স্কুলে হাজির হন। শিক্ষকদের অকথ্যভাষায় গালিগালাজ করতে থাকেন। এ সময় স্কুলের নৈশ প্রহরী মামুন রশিদ প্রতিবাদ করতে তাকে চড়-থাপ্পড় মারা হয়। এ সময় বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক রাহেলা পারভীন মোবাইল ফোনে ছবি তুলতে গেলে তাকেও শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করা হয়। তার হাত থেকে মোবাইল কেড়ে নিয়ে ভিডিওটি মুঝে দেয় ইউপি সদস্য সাহাবুল।

ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক রাহেলা পারভীন বলেন, স্কুল পরিচালনা কমিটি সদস্য ও অভিভাবকদের সামনে শিক্ষক ও কর্মীচারিদের লাঞ্ছিত করা হয়েছে। এ সময় স্কুলের নির্মাণাধীন ভবনের পিলার ভেঙে ফেলে কাজ বন্ধ করে দেয় ইউপি সদস্য ও তার লোকজন।

তবে শোক দিবসের কর্মসূচী পন্ড করে দেয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে ইউপি সদস্য সাহাবুল ইসলাম বলেন, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি হিসেবে স্কুলের যেকোন অনুষ্ঠানের দাওয়াত পাওয়ার যোগ্যতা রাখি। কিন্তু আমাকে কোন অনুষ্ঠানেই দাওয়াত দেওয়া হয়না। দাওয়াত না দিলেও লোকজন নিয়ে শোক দিবসের কর্মসূচীতে যোগ দিয়ে অনুষ্ঠান সম্পন্ন করেছি।

খারাপ আচরণ করায় নৈশ প্রহরীকে চড়-থাপ্পড় মারার কথা স্বীকার করে সাহাবুল বলেন, স্কুলের ভবন নির্মাণে নিম্নমানের কাজ হচ্ছে। এক ব্যাগ সিমেন্টের সাথে চার ব্যাগ বালু দেয়ার কথা; সেখানে ছয় ব্যাগ বালু দেয়া হচ্ছিল। এ জন্য নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দিয়ে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের ডেকে তাদের সামনে নির্মাণ কাজ করার জন্য বলা হয়েছে।

চারঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন বলেন, শিক্ষকদের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করতে উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। তদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার পর অভিযুক্তির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
topউপরে