মহাদেবপুরে মাদ্রাসার অফিস সহকারীর বিরুদ্ধে ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা

প্রকাশিত: আগস্ট ১২, ২০২২; সময়: ৬:২১ pm |
মহাদেবপুরে মাদ্রাসার অফিস সহকারীর বিরুদ্ধে ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক, মহাদেবপুর : নওগাঁর মহাদেবপুরে ৫ম শ্রেণির (১২) এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে ওই মাদ্রাসার অফিস সহকারীর বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার (১১ আগষ্ট) রাতে থানায় মামলা করেছেন ছাত্রীটির মা।

মামলা সূত্রে জানা যায়, জয়পুর ডাঙ্গাপাড়া দাখিল মাদ্রাসার অফিস সহকারী ও জয়পুর ডাঙ্গাপাড়া গ্রামের মোঃ আব্দুল খালেকের পুত্র মোঃ মমেনুল হক ওরফে মমো (৫০) বিভিন্ন সময়ে ওই ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করতো। গত ২ আগষ্ট সকাল সাড়ে ১১টার দিকে ওই ছাত্রীকে মাদ্রাসার বারান্দায় দাঁড়ানো অবস্থায় পেয়ে বিভিন্ন স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেয় এবং বলে তোমার চেহারা খুব সুন্দর, গাল দুটো আরো সুন্দর, হাত দিয়ে গাল টানে এবং বলে তোমাকে আমার খুব ভালো লাগে। এতে ছাত্রীটি রাগ করে মাদ্রাসাতেই বই খাতা ফেলে বাড়িতে চলে আসে।

ওইদিনই ছাত্রীটির খোঁজ খবর নেয়ার অজুহাতে দুপুর ১টার দিকে মোঃ মমেনুল হক ওরফে মমো পীরপুকুর গ্রামে ছাত্রীটির দাদার বাড়িতে চলে যায়। সেখানে বাড়িতে কেউ না থাকায় ছাত্রীটির শয়ন ঘরে ঢুকে দরজা লাগিয়ে দিয়ে জোরপূর্বক তাকে ধর্ষণ করে। ধর্ষণ শেষে পালিয়ে যাওয়ার সময় মমেনুল হক ওরফে মমো ওই ছাত্রীটিকে নানা ভাবে ভয়ভীতি দেখায়।

ছাত্রীটির দাদী জানান, দরিদ্রতার কারণে তার মা ও বাবা গাজীপুরে বাসা ভাড়া নিয়ে তার মা গার্মেন্টেসে চাকরি করে ও তার বাবা অটো রিকসা চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করে আসছে। ছাত্রীটি তাদের সাথে জয়পুর পীরপুকুর গ্রামে থেকে পার্শ্ববর্তী জয়পুর ডাঙ্গাপাড়া দাখিল মাদ্রাসায় ৫ম শ্রেণিতে লেখাপড়া করছে। ঘটনার দিন আমি তাকে মাদ্রাসায় পাঠিয়ে দিয়ে আমার অসুস্থ মেয়েকে দেখতে মেয়ের বাড়ি যায়।

এ বিষয়ে জয়পুর ডাঙ্গাপাড়া দাখিল মাদ্রাসার সুপার মাজেদুর রহমান বলেন, অফিস সহকারী মমেনুল হক ওরফে মমোর বিরুদ্ধে মৌখিকভাবে ৫ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হবে।

এ বিষয়ে মহাদেবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আজম উদ্দিন মাহমুদ জানান, এ বিষয়ে ওই ছাত্রীর মা বাদী হয়ে জয়পুর ডাঙ্গাপাড়া দাখিল মাদ্রাসার অফিস সহকারী মোঃ মমেনুল হক ওরফে মমোকে একমাত্র আসামী করে ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। আসামী পলাতক থাকায় তাকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। তবে আসামীকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
topউপরে