ভাইদের বিরুদ্ধে বোনের কোটি টাকার সম্পদ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ

প্রকাশিত: আগস্ট ১০, ২০২২; সময়: ১০:১৪ pm |
ভাইদের বিরুদ্ধে বোনের কোটি টাকার সম্পদ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহীতে তিন ভাইয়ে বিরুদ্ধে ওয়ারিশ সূত্রে পাওয়া দুই বোনের কোটি টাকার সম্পদ প্রতারণা করে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় রাজশাহী নগরীর দড়িখরবোনা এলাকার মৃত জোনাব আলী সরকারের দুই মেয়ে রোকেয়া বেগম ও জোবদা খাতুন বাদি হয়ে তিন ভাই ও এক বোনের বিরুদ্ধে রাজশাহী যুগ্ম জেলা জজ আদালতে মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ১০২/২১। আগামী ১৭ আগস্ট মামলার শুনানির দিন ধার্য করেছে আদালত।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, রাজশাহী নগরীর নগর ভবনের পশ্চিমে বোয়ালিয়া মৌজা, জেএল নং-০৯ মধ্যে আরএস ১৩৫৬ নং খতিয়ানের লিখিত আর.এস ৩৫০২ দাগের অবস্থিত নবনির্মানকৃত মুন রাবেয়া টাওয়ার। ০.১৬৪৪ একর সম্পত্তির মূল মালিক ছিলেন মৃত জোনাব আলী সরকার ও মাতা মৃত রাবেয়া খাতুন। তাদের তিন ছেলে রওশন আলম জুলু, রফিকুল ইসলাম ও শফিকুল আলম এবং তিন মেয়ে রোকেয়া বেগম, জোবদা খাতুন ও মাহমুদা বেগম।

ওয়ারিশ সূত্রে আর.এস ৩৫০২ দাগের নির্মানকৃত মুন রাবেয়া টাওয়ার জমির প্রত্যেক ভ্রাতা ০.০৩৬৫ একর ও প্রত্যেক সহোদর তিন বোন ০.০১৮২৬ একর জমি ওয়ারিশ সূত্রে পাই। সেই সম্পদের বাটোয়ারা মামলা করে তিন বোন রাজশাহীর আদালতে। আদালতে বাটোয়ারা মামলা করার পর থেকে বিভিন্ন ভাবে তাদের সম্পদ থেকে বঞ্চিত করার চক্রান্ত করে তার তিন ভাই।

সেই সম্পত্তিতে কম্পানির মাধ্যমে ১০ তালা ভবন নির্মানের জন্য মৃত জোনাব আলী সরকারের তিন ছেলে রওশন আলম জুলু, রফিকুল ইসলাম ও শফিকুল আলম ও এক বোন মাহমুদা বেগম কৌশলে নির্মানকৃত মুন রাবেয়া টাওয়ারের বিনা খরচে ফ্ল্যাট দেয়ার নাম করে অপর দুই বোন রোকেয়া বেগম ও জোবদা খাতুন কে বোঝালে পরে আদালত থেকে তিন বোন গত ৩০ জানুয়ারি ২০১৯ সালে মামলা তুলে নেয়।

ভুক্তভোগি রোকেয়া বেগম ও জোবদা খাতুন জানান, আমার তিন ভাই ও আমার বোন মাহমুদা বেগমের স্বামী আব্দুল লফিব কৌশলে প্রতারণা করে আমাদের দুই বোনের কাছে থেকে সদর সাব রেজিষ্ট্রী অফিস রাজশাহীতে গিয়ে গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ সাল বোয়ালিয়া মৌজার আরএস নং ১৩৫৬, আর.এস দাগ নং ৩৫০২ মৌজার জমি ০.১৬৪৪ একরের মধ্যে বোনের ওয়ারিশ সূত্রে পাওয়া ০.০৩৬৫২ একর জমি হেবা ঘোষণা দলিল করে নেন এক ভাই। সেই দলিলের দাতা করা হয় বেগম জাবেদা খাতুনকে ও দলিলের গ্রহীতা হন রওশন আলম দিং, দলিল নং ১০০০/২০১৯। তবে দলিলটি এখন পর্যন্ত বালাম বইতে উঠে নাই। প্রতারণা করে এ দলিল করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন ভুক্তভোগি দুই বোন।

ভুক্তভোগীরা জানান, নগর ভবনের পশ্চিমে মুন রাবেয়া টাওয়ার বর্তমানে মামলাধীন অবস্থায় রয়েছে। মামলা নং ১০২/২১ জেলা রাজশাহী যুগ্ম জেলা জজ ১ম আদালতের আওতাধীনে মামলাটি চলমান আছে । মামলার বাদী রোকেয়া বেগম ও জোবদা খাতুন দুই বোন এবং মামলার বিবাদী তাদের নিজের তিন ভাই রওশন আলম জুলু, রফিকুল ইসলাম, শফিকুল আলম ও এক বোন মাহমুদা বেগম।

তারা আরো বলেন, রাজশাহীর সমস্ত জনগনের কাছে অনুরোধ যেহেতু ” মুন রাবেয়া টাওয়ার ” নিয়ে মামলা চলমানাধীন আদালতে। সেহেতু যাহারা উক্ত বিল্ডিং এর ফ্ল্যাট ক্রয় না করার জন্য অনুরোধ। সত্য মিথ্যা যাচাই করে নিজ দায়িত্বে ফ্ল্যাট ক্রয় করার জন্য অনুরোধ জানান ভুক্তভোগী দুই বোন রোকেয়া বেগম ও জোবদা খাতুন।

আগামী ১৭/৮/২২ তারিখে সেই মামলার শুনানি রয়েছে বলে জানান মামলার বাদি রোকেয়া বেগম ও জোবেদা খাতুন। এ অবস্থায় মুন রাবেয়া টাওয়ারে ভবনে কাউকে ফ্লেট ক্রয় না করার জন্য অনুরোধ করে ফেসবুকে মামলার কপি ও নির্মানকৃত ভবনের ছবি দিয়ে ৯ আগস্ট একটি পোস্ট করেন। যা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
topউপরে