আনন্দে বাঁচার সহজ উপায়

প্রকাশিত: আগস্ট ২, ২০২২; সময়: ১০:০৯ am |
আনন্দে বাঁচার সহজ উপায়

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : হাসি, আনন্দকে সঙ্গী করে বাঁচতে চান প্রত্যেকেই। তবুও জীবনের নিয়মে নানা পারিপার্শ্বিক পরিস্থিতি পার করতে হয়। পড়তে হয় প্রতিকূল পরিস্থিতিতে। কষ্ট বা দুঃখ জীবনেরই অংশ। সেগুলোকে পাশ কাটিয়ে খারাপ সময় পেরিয়ে খুশিতে থাকা জরুরি। কারণ মন আনন্দে থাকলে সুস্থ থাকবে শরীর। নিজেকে কীভাবে রোজ খুশি আর আনন্দে রাখবেন?

বিশেষজ্ঞদের মতে, মানসিক স্বাস্থ্যের সঙ্গে শরীরের গভীর যোগাযোগ রয়েছে। কিন্তু দুঃখ, উদ্বেগ, স্ট্রেস, চিন্তা, অবসাদ কার মধ্যে না কাজ করে? কিছু পদ্ধতি মেনে খুশিতে থাকা সম্ভব। কী সেগুলো? চলুন জেনে নিই।

প্রিয়জনের সঙ্গে কথা বলুন-

সকাল থেকে রাত- কাজে বুঁদ হয়ে আছেন। সারাদিন কম্পিউটারের সামনে বসে কাজ করছেন। অফিস থেকে ফিরেও কর্মক্ষেত্রের নানা সমস্যা নিয়ে পড়ে রয়েছে ল্যাপটপ আর স্মার্টফোনে। মাথায় আছে টার্গেট, স্যালারি, ইনসেনটিভ থেকে চাকরি হারানোর ভয়। সেই সঙ্গে রয়েছে ব্যক্তিগত নানা সমস্যা।

এমন রুটিনেই যদি আপনার দিন কাটে তবে এবার তা বদলান। কেবল কর্মক্ষেত্র নয়, সময় দিতে হবে পরিবার, প্রিয়জন আর বন্ধুদেরও। প্রিয় মানুষের সঙ্গে কথা বললে অনেক সমস্যাই মিটে যায়। নিজের মানসিক প্রশান্তির উন্নতি ঘটে।

নেতিবাচক চিন্তা থেকে দূরে-

বিশেষজ্ঞদের মতে, মন ভালো রাখতে চাইলে মন থেকে নেতিবাচক সব চিন্তা দূর করুন। যদিও কোনো চিন্তা আসে তবে সেগুলোর ইতিবাচক দিক বিবেচনা করে বিশ্লেষণ করতে হবে। তবেই সমস্যা থেকে বের হতে পারবেন।

অত্যধিক স্ট্রেস অনুভব করলে, কাজের থেকে কিছুটা বিরতি নিন। কিছুক্ষণ হাঁটুন। পরিবারে ছোট্ট শিশু থাকলে তার সঙ্গে খেলুন, সময় কাটান। দেখবেন মন ভালো হয়ে গেছে।

শরীরের যত্ন নিন-

শেষ কবে আয়োজন করে মাথার চুল আঁচড়েছেন? নিজের ত্বকের যত্ন নিয়েছেন ভালো করে? বিশেষজ্ঞদের মতে, মন ভালো রাখতে শরীরের যত্ন নেওয়া জরুরি। নিজের যত্ন নিলে মন আনন্দে থাকে। প্রশান্তি মেলে।

পর্যাপ্ত ঘুম জরুরি-

মন খারাপের সঙ্গে ঘুমের গভীর যোগসূত্র রয়েছে। ক্লান্তি দূর করতে এবং মানসিক শান্তির জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমনো দরকার। অনেক সময় কম ঘুমের প্রভাব পড়ে শরীর ও মনে। তাই রোজ অন্তত ৭ ঘণ্টা ঘুমের অভ্যাস করুন।

এসবের পাশাপাশি মন ভালো রাখতে যোগব্যায়াম করতে পারেন। ভালোলাগার কোনো কাজ থাকলে অবসরে সেটিও করা যেতে পারে। সবশেষে নিজের প্রতি আত্মবিশ্বাস ধরে রাখুন, আনন্দে বাঁচুন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে